আইসিসির নতুন নিয়ম নিয়ে চিন্তিত মুশফিক

  ক্রিকেটের কিছু নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে আসন্ন বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে। আচরণবিধি, সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা পদ্ধতি (ডিআরএস), ক্রিকেট ব্যাটের মাপ ও রানআউটের নতুন নিয়ম বাস্তবায়িত হচ্ছে এই সিরিজ দিয়ে। নতুন এই নিয়ম নিয়ে চিন্তিত মুশফিকুর রহিম। সাদা পোশাকে বাংলাদেশ দলের এই অধিনায়কের বড় দুশ্চিন্তা ব্যাটের মাপ নিয়ে।
ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) নতুন নিয়ম অনুযায়ী, এখন থেকে ব্যাটের পুরুত্ব হবে ৬৭ মিলিমিটার, সেই সঙ্গে ব্যাটের প্রান্তগুলোর নির্ধারিত মাপ থাকবে ৪০ মিলিমিটার। মাঠে দায়িত্বে থাকা আম্পায়াররা বিশেষ এক ছাঁচের মাধ্যমে মাপবেন ব্যাটের পুরত্ব। মুশফিকের শঙ্কার কারণ হলো, ব্যাটগুলোর মাপ ঠিকমতো না হলে সমস্যায় পড়তে হবে।
দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে আয়জিত আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের এই টেস্ট অধিনায়ক বলেন, ‘নতুন নিয়মগুলো জানি। যে কয়টা ব্যাট দিয়ে খেলেছি ওগুলো ঠিক হবে কিনা। এটাও একটা চ্যালেঞ্জের বিষয়।’
আসন্ন বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ থেকে আম্পায়ারদের দেওয়া হয়েছে বিশেষ ক্ষমতা। কোনও ক্রিকেটার ‘ডিসিপ্লিনারি কোড’ ভাঙলে তাকে মাঠ থেকে বের করে দিতে পারবেন আম্পায়াররা। যার ফলে কমতে পারে স্লেজিংয়ের মতো ঘটনা। যদিও এতে স্লেজিং কমবে না বলে মনে করেন মুশফিক। তার মতে, অন্য কোনও উপায় ঠিকই আবিষ্কার হয়ে যাবে!
এ প্রসঙ্গে মুশফিকের ভাষ্য, ‘স্লেজিং কমতে পারে। তবে খুব যে কমবে, তা নয়। অনেক সময় ক্যামেরাতে পড়ে গেলে মাঠের বাইরে বের হয়ে যাওয়ার চান্স আছে। কেউ তো আর চাইবে না মাঠের বাইরে যেতে। আমার মনে হয় নিয়মের ভেতর থেকেই স্লেজিংটা হবে।’
এ ছাড়া টেস্ট-ওয়ানডের মত এখন থেকে টি-টোয়েন্টিতেও থাকবে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস)। রিভিউ সিস্টেমের পাশাপাশি রান আউটের নিয়মেও এসেছে কিছু সংশোধনী। সব মিলিয়ে নতুন নিয়মগুলোর সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিতে চান অধিনায়ক মুশফিক, ‘যেহেতু নতুন, তাই একটু এদিক-ওদিক হতে পারে। চেষ্টা থাকবে যত তাড়াতাড়ি মানিয়ে নেওয়া য়ায়। দ্রুত মানিয়ে নিতে পারলেই আমরা ভালো অবস্থানে থাকতে পারব।’

, ,