শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে রিজভীকে গালিগালাজ করলেন মির্জা ফখরুল


শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে রিজভীকে গালিগালাজ করলেন মির্জা ফখরুল

জুলাই মাসের প্রথম তারিখে কাক ডাকা ভোরে মাত্র দশ-পনের জন নেতা-কর্মী নিয়ে ঝটিকা মিছিল করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের তোপের মুখে পড়েছেন রিজভী আহমেদ। দলের সিনিয়র নেতাদের অনুমোদন না নিয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে মিছিল করে নিজের নাম প্রচার করার জন্য রিজভী আহমেদকে ফোন করে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেছেন মির্জা ফখরুল। দলটা কী আপনার বাবার সম্পত্তি, এভাবে রিজভী আহমেদকে গালিগালাজ করেন বলে সূত্রের খবরে জানা গেছে।

বিএনপির নয়া পল্টন অফিস সূত্রে জানা যায়, দলের সামগ্রিক কর্মকাণ্ডে রিজভী আহমেদকে এড়িয়ে যেতে চান সিনিয়র নেতারা। কারণ রিজভী আহমেদ অকালপক্ক ও বাচাল নেতা। রিজভী আহমেদ সব বিষয়ে নিজের নাম জাহির করতে চান। এমনকি মিছিলে বার বার তার উচ্চারণ করার জন্য পাতি নেতাদের টাকা দিতেন বলেও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। কাক ডাকা ভোরে গুলশান-১ থেকে ঝটিকা মিছিল বের করে দলকে কলঙ্কিত করেছেন রিজভী। কারণ ঝটিকা মিছিল করার মত কোন ইস্যু আপাতত বিএনপির হাতে নেই। এছাড়া মির্জা ফখরুলের নলেজে না দিয়ে মিছিল করায় দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন রিজভী আহমেদ। কাণ্ডজ্ঞাণহীন কর্মকাণ্ডের জন্য ইতোমধ্যেই দলীয় নেতাদের চাপের মুখে আছেন রিজভী আহমেদ। এছাড়া বাম দলের কায়দায় ঝটিকা মিছিল করে নিজেদের সুনাম নষ্ট হয়েছে। রিজভীর এমন কাণ্ডে দলেরও ইমেজ নষ্ট হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহৎ গণতান্ত্রিক একটি দেশে ভোরের আলোয় হাতেগনা নেতাদের নিয়ে আন্ডারগ্রাউন্ড পার্টির মত মিছিল করে জনগণকে ভুল বার্তা দিয়েছেন রিজভী আহমেদ। জানা গেছে, রিজভী আহমেদের বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মির্জা ফখরুলকে অনুরোধ করেছেন সিনিয়র নেতারা।
রিজভী আহমেদের সাথে থাকা একজন কর্মী সূত্রে জানা গেছে, ১লা জুলাই সকালে মিছিলের পর কার্যালয়ে ফিরলে রিজভীকে ফোন করে কড়া ভাষায় তিরস্কার করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মির্জা ফখরুল বলেন, এমন কর্মসূচি পালন করে বিএনপির ইমেজ নষ্ট করেছেন রিজভী। বিএনপি কি মরে যাওয়া দল নাকি? আপনার সাহস দেখে আমি অবাক হচ্ছি। আমাকে না জানিয়ে মিছিল করার সাহস পান কোথায় থেকে? নাকি সরকারের কাছ বান্ডিল পেয়েই এই কাজ করেছেন। আপনার জানা উচিত যে লন্ডনের নির্দেশনা ছাড়া মিছিল ও কর্মসূচি পালন করা যাবে না। আপনি বিএনপির সংবিধান পরিপন্থী কাজ করেছেন। আমি আজই তারেক রহমানের কাছে আপনার এই স্পর্ধার ব্যাপারে নালিশ করব। জানা গেছে, মির্জা ফখরুলের গালিগালাজ খেয়ে প্রচণ্ড মন খারাপ হয়ে যায় রিজভীর। টেলিফোন আলাপ শেষে উপস্থিত সেই কর্মীর সামনেই কেঁদে ফেলেন রিজভী আহমেদ। ক্ষোভ নিয়ে রিজভী বলেন, দলের উপকার করতে গিয়ে বারবার অপমান হই আমি। আপনারা তো দুধের ধোয়া তুলশী পাতা। সরকারের সাথে আতাত করে ঠিকই বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। মাস শেষে একাউন্টে টাকা পাচ্ছেন। আর আমরা কিছু করলেই লন্ডনে নালিশ চলে যায়। এই দলের জন্য কী করলাম না আমি? হায় রে বেঈমানীর রাজনীতি! বেঈমানরা পোলাও বিরিয়ানী খাও, বিদেশে ঘুরে বেড়ায়। আর আমার মত নেতারা এক কাপড়ে, এক চাদরে বছরের পর বছর পার করে।

, ,
themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে