জামালপুরে ২৭0 টির অধিক কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ

More than 270 community clinics in Jamalpur are closed

সেবা ডেস্ক:  কেন্দ্রীয় কর্ম-সূচীর অংশ হিসেবে চাকুরী জাতীয়-করণের দাবিতে কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) আন্দোলন করায় টানা ১১দিন যাবত বন্ধ রয়েছে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো। এতে ভেঙ্গে পড়েছে তৃণ-মুলের স্বাস্থ্য সেবা। বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধ মানুষ ঠান্ডা জনিত রোগে চিকিৎসা না পাওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ থাকায়  ভিড় জমাচ্ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-সহ নানা বেসরকারী ক্লিনিকে।

জামালপুর সিভিল সার্জনের অফিস সুত্রে জানা গেছে, গত ২০ জানুযারী থেকে জামালপুর এর ২৭০টি’র অধিক কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ রয়েছে বলে ।

এদিকে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ থাকায় জেলার প্রায় ২০লক্ষ মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বিশেষ করে ইসলামপুর, শরিষাবাড়ি, দেওয়ানগঞ্জ ও বকশীগঞ্জ এর চরাঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগ এখন চরমে।

কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আসা বিনোদেরচর গ্রামের বাসিন্দা আবু কালাম জানান, বেশ কয়েকদিন যাবত কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ রয়েছে। আমার ছেলের একটু জ্বর হয়েছিল চিকিৎসা না পাওয়ায় এখন নিউমনিয়াই ভূগছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাচ্ছি।

কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার এসোশিয়েশনের সভাপতি ইকবাল মাহমুদ জানান, চাকুরী জাতীয় করণের দাবীতে জামালপুরের সকল সিএইচসিপিরা এখন ঢাকায় অবস্থান করায় সকল কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো বন্ধ রয়েছে। আমাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঢাকা থেকে চাকুরীতে ফিরবো না।

গত ২০, ২১ ও ২২ জানুয়ারী কমিউনিটি ক্লিনিক গুলো বন্ধ রেখে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও গত ২৩ ও ২৪ তারিখে জামালপুর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয় জেলার সকল সিএইচসিপিরা। কিন্তু ২৭ তারিখ থেকে অদ্যবধি জামালপুরের সকল সিএইচসিপিরা ঢাকায় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান করছে বলে জানান কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার এসোশিয়েশনের সভাপতি ইকবাল মাহমুদ ।

কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো বন্ধ থাকায় স্বাস্থ্য সেবায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছে বিষয়টি স্বীকার করে জামালপুরের সিভিল সার্জন ডা. গৌতম রায় জানান, ভোগান্তি কমাতে ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে সকল চিকিৎসকদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জানুয়ারি সিএইচসিপি এসোসিয়েশন এর কেন্দ্রীয় আহবায়ক শহিদুল ইসলাম ও প্রধান উপদেষ্টা কামাল সরকার ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটে সাংবাদিক সম্মেলনে চাকুরী জাতীয়করণের জন্য কর্মবিরতি-সহ অবস্থান কর্মসূচীর ঘোষণা দেন। প্রাথমিক পর্যায়ে উপজেলা ও জেলাতে অবস্থান কর্মসূচী শেষে ২৭ জানুয়ারি থেকে ৩১ জানুয়ারি জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে সিএইচসিপিরা। এরপরেও যদি দাবি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত না আসে তাহলে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকা কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে আমরণ অনশন কর্মসূচীতে যাবে সারা দেশের কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডাররা।

, ,