মা দিবসেই নয়, মাকে ভালোবাসুন প্রতিদিন!

মা দিবসেই নয়, মাকে ভালোবাসুন প্রতিদিন!
লেখক শিব্বির আহমেদ রানা
মিষ্টি একটা শব্দের নাম মা। আল্লাহ প্রদত্ত বড় একটা নেয়ামতের নাম মা। কোন বিশেষণ ছাড়া সংজ্ঞাহীন ভালোবাসার নাম মা। পৃথিবীতে কোন স্বর্গীয় সুধার নামম মা। সে মাকে ভালোবাসুন প্রতিদিন, প্রতিটা ক্ষণে। আজ ১৩ই মে। বিশ্ব মা দিবস। এই দিনকে সেলিব্রেট করছে অনেকে।

আজকে দেখলাম অনেকে বণিতা করে মা দিবসকে সেলিব্রেট জানাচ্ছে। মাকে ভালোবেসে অনেক স্মৃতি উথরায় দিয়ে উত্তাল করছে মা দিবসকে। তো কথা হলো- মা কে স্বরণ করাটা যেন নির্দ্দিষ্ট দিনে, নির্দ্দিষ্ট সময়ে আবদ্ব না থাকে। এটা এক পর্যায়ে এমন ভাবে প্রভাব পড়বে কেবল মা দিবসেই মা কে তালাস করা হবে! আচার্য্য হই যখন নির্দ্দিষ্ট দিনকে মা দিবস হিসেবে সেলিব্রেট করা হয়। এসব তো পশ্চিমাদের আবিস্কার, যারা কিনা মা কি নেয়ামত ছোটবেলা থেকেই বুঝতে পারেনি। যারা জন্মের পর এয়ারকন্ডিশনে বড় হয়েছে, যাদের মা নবজাত সন্তানকে ঝুড়িতে রেখে বিলাতি কুকুরকে বুকে আগলে নিয়েছে তাদের জন্য হয়তো মা দিবস পালন করা দোষের নয়। তাদের তো মা দিবসের দিন আবিস্কার করে বণিতা করে পালন করতে হতে পারে। বছর জুড়ে একটিবার মাকে স্বরণ না করলে কি হয়?

আরও পড়ুন>>বকশীগঞ্জে মা দিবসের সম্মানে শিশুদের মাঝে পোশাক বিতরণ

এবার আসুন- আমরা বাঙ্গালী। মা আমাদের বাঙ্গালী মেয়ে। সন্তান গর্ভে ধারণ করে মা কতো কষ্ট পায়। অতচ তা তারা সবর করে সহ্য করে। সন্তান যখন দুনিয়াতে ভুমিষ্ট হয় তখন মা তার সর্ব্বোচ্চ ভালোবাসা দিয়ে, জিবন বাজি রেখে সন্তানকে আগলে রাখেন। সন্তন যতই বড় হচ্ছে মা তো ঝুকিমুক্ত নয়, দায়িত্বহীন নয়। তখনই মা ছোট সন্তানটিকে যেভাবে আগলে রেখেছেন ঠিক সেভাবে বয়োবৃদ্ধি পর্যন্ত মমতার চাঁদরে আগলে রাখেন মা। এই হলো আমাদের বাঙ্গালী মা। তবে পৃথিবীর প্রতিটা মা'ই এই রকম। আমরা পশ্চিমাদের মতো মা কে পাইনি। যার দরুন নির্দ্দিষ্ট দিনে মাকে সেলিব্রেট করতে হবে। যারা বিপদে পতিত হলে অ মা! মা! মারেএ! আহ মা!- এই শব্দটুকুন উচ্চারন করেন তাদের জন্য তো প্রতিটা দিন, প্রতিটা ক্ষণ মাকে নিয়ে সেলিব্রেট হয়।


মাকে সেলিব্রেট করুন প্রতিদিন- আমি/আপনি বাড়ি থেকে বের হলে মাকে বলে বের হই। মায়ের আর্শ্বিবাদ নিয়ে বের হই। কোথাও কোন অসুবিধা হলে মাকে বলি এবং সন্তানের অমঙ্গলের সংকেত প্রথমে অদৃশ্যভাবে মা'ই অনুভব করে। অথচ সে মাকে কেন নির্দ্দিষ্ট একটা দিনে সেলিব্রেট করবো? এটা কি বড় অকৃতজ্ঞতা নয়? কোর-আনে, পুরানে, পার্বনে, ধর্মের কোন বিধান তন্ত্রে কি বলা আছে মাকে একটা নির্দ্দিষ্ট দিনে সেলিব্রেট করতে হবে? যদি না থাকে তবে এটা কাদের আমদানি? এটা কাদের সংস্কৃতি? পৃথিবীর নিঃশ্বার্ত ভালোবাসার নাম মা। প্রাপ্তির আশাহীন ভালোবেসে যাওয়ার নাম মা। অফুরন্ত ভালোবাসার নাম মা। সন্তানের জন্য নিরাময়ের মহৌষধের নাম মা। রাত-দিন ২৪ টা ঘন্টা যাদের পিছনে শয়নে, স্বপনে, ধ্যানে, চিন্তায় ব্যয় করেন তারাই তো মা। যাদের ভালোবাসা ২৪টা ঘন্টা এবং Unlimited তাদের কে কেন বছরের একটা দিনে বণিতা করে স্বরণ করা লাগবে? এটা কি মায়ের জন্য সন্তানের পক্ষ থেকে পাওয়ার কথা? মাকে ভালোবাসুন সেভাবে, যেভাবে মা আমাদের ভালেবাসেন। নিরবিচ্ছিন্ন ভালোবাসার নাম মা-সন্তানেরর ভালোবাসা।

আরও পড়ুন>>মা’ দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে শ্রীবরদীতে আলোচনা সভা

মা দিবস হোক প্রতিদিন- আমি মা দিবসের পক্ষে নই। তার মানে বণিতা করে একটা দিন মাকে ভালোবাসার পক্ষে নই। আপনারা যেটা মা দিবস মনে করেন তাকে আমি প্রতিদিনের জন্য বলছি। মা কে ভালোবাসুন- যেভাবে মা, শিশুকালে আমাকে/আপনাকে ভালোবেসেছিলেন। আপনার বউয়ের অতিষ্ট আচরণ থেকে নিরাপদে রাখুন মা কে। বৃদ্ধাবস্থায় উপনিত হলে তাদের পাশে থাকুন যেভাবে আপনি/আমি নবজাতক থাকাবস্থায় তারা পাশে ছিলেন। তাদেরকে আপনার সর্ব্বোত্তম জিনিসটা দেন, নরম ও কোমল ব্যবহারটুকুন দেন। তাদের খাওয়া-পরা কে অনর্থক খরচ মনে করবেন না। নইলে আপনি যেভাবে অবহেলা করবেন সেভাবে আপনি আপনার সন্তানের কাছে অবহেলিত হবেন।



, , ,
themeforestthemeforest