বাংলাদেশে গাড়ি তৈরী করতে চায় জাপান

বাংলাদেশে গাড়ি তৈরী করতে চায় জাপান



সেবা ডেস্ক: বাংলাদেশে গাড়ি তৈরি করতে চায় জাপান। জাপানের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের কাছে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

দেশে অটোমোবাইল শিল্পে আমদানিনির্ভরতা কমিয়ে দক্ষতা অর্জন, উৎপাদন এবং এ শিল্পের বিকাশে নীতিমালা প্রণয়ন করতে যাচ্ছে সরকার। তাই শিল্প মন্ত্রণালয়ের আনা ‘অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা, ২০২১’-এর খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সকালে জাতীয় সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভা বৈঠক। বৈঠক শেষে দুপুরে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

দেশে গাড়ি উৎপাদনের বিষয়ে জাপানি রাষ্ট্রদূত একটা প্রস্তাব দিয়েছেন জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘তারা জাপানের একটা বিখ্যাত কোম্পানির গাড়ি এখানেই প্রডিউস করতে চান।’

জাপানের এমন আগ্রহে দেশে অটোমোবাইল শিল্পের বিকাশের সম্ভাবনা দেখছে সরকারও। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আমাদের যে পরিমাণে মুভমেন্ট হচ্ছে, কাজকর্ম হচ্ছে, তাতে আমরা শুধু ইমপোর্ট করব, সেটা না। সে ক্ষেত্রে আমাদের নিজেদেরও কিছু ডেভেলপ করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।’

ইতিমধ্যে এ খাতে কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে জানিয়ে সচিব বলেন, ‘অনেক কিছু অলরেডি চালু আছে। সেটাকে সিস্টেমেটিক ওয়েতে নিয়ে আসার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। সে জন্য তারা (শিল্প মন্ত্রণালয়) এই অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়ন নীতিমালা নিয়ে আসছে।’

নীতিমালার উদ্দেশ্য নিয়ে তিনি বলেন, ‘অটোমোবাইল, যন্ত্র উৎপাদন, ইঞ্জিনিয়ারিং ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জনে প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করে দেশীয় শিল্পকে বিকশিত করা। স্থানীয় অটোমোবাইলের উৎপাদনের সঙ্গে আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা ও যৌথ বিনিয়োগ সুযোগ বৃদ্ধি করা। যাতে সাশ্রয়ী মূল্যে বাংলাদেশে সুপরিচিত ব্র্যান্ডের মডেল ও গাড়ি উৎপাদনের সুযোগ হয়।’

স্থানীয় ডিজাইন তৈরি ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলাকৌশলের উৎকর্ষতা অর্জনে অটোমোবাইল খাতে গবেষণা ও উন্নয়নের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা হয়েছে বলেও জানান সচিব। 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।