দুই গ্রামের বিবাদ মিমাংসা করতে ষড়যন্ত্রের শিকার আ'লীগ নেতা

দুই গ্রামের বিবাদ মিমাংসা করতে ষড়যন্ত্রের শিকার আ'লীগ নেতা



উল্লাপাড়া প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দুই গ্রামের দীর্ঘদিনের বিবাদমান বিষয়কে মিমাংসা করতে ষড়যন্ত্রের শিকার পঞ্চক্রোশি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সুমন রেজা তালুকদার। মঙ্গলবার রাত থেকে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ইন্দ্রনে একটি কুচক্রী মহল সুমনকে মিথ্যা মামলা দেওয়ার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় দলের ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি কুচক্রী মহলের কর্মকান্ডের বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাদের  বিস্তারিত অবহিত করে বিচার প্রার্থনা করেছেন। 

জানা গেছে, উপজেলার পঞ্চক্রোশি ইউনিয়নের বন্যাকান্দি ও রাঘববাড়িয়া গ্রামের মধ্যে দীর্ঘদিনের বিবাদমান একটি বিষয়কে মিমাংসার জন্য উভয় পক্ষের সম্মতিতে এলাকাবাসি ও আওয়ামী লীগ নেতা সুমন রেজা তালুকদার একটি শালিসি বৈঠকের আয়োজন করেন। একটি কুচক্রী মহল প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে শালিসি বৈঠকের আগেই বেশকিছু মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য উভয় পক্ষের মধ্যে সরবরাহ করে আবারও তাদের মধ্যে কলহ বাধিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালান। এ ঘটনায় তাদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি করে শালিসি বৈঠকটি পন্ড করে দেন ঐ কুচক্রি মহল।

উপজেলার বন্যাকান্দি গ্রামের ভুক্তভোগী আব্দুল মান্নান, শফিকুল চৌধুরী, গোলবার মন্ডল ও ছানোয়ার সরদার জানান, বিগত ৫/৬ মাস পূর্বে উপজেলা নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে পঞ্চক্রোশি ইউনিয়ন পরিষদে নতুন ভোটারদের মধ্যে স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হয়। স্মার্টকার্ড সংগ্রহ করা নিয়ে ইউনিয়নের দুই গ্রাম বন্যাকান্দি ও রাঘববাড়িয়ার তরুণদের মধ্যে পরিষদ চত্বরের সামনে প্রথমে কথা কাটাকাটি পরে ঘটনায় উভয় পক্ষের মধ্যে মারামারি সংঘটিত হয়। এতে বন্যাকান্দি গ্রামের বেশ কয়েকজন ছেলে গুরুতর আহত হন। ঘটনার বেশকিছু দিন পর সুযোগ পেয়ে রাঘববাড়িয়ার ক’জন ছেলেকে বন্যাকান্দির ছেলেরা মারপিট করে বাজার থেকে তাড়িয়ে দেন। এ ঘটনা নিয়ে উভয় গ্রামের মধ্যে অসন্তোষ  চলে আসছিল। বিষয়টি মিমাংসার জন্য এলাকাবাসি ও পঞ্চক্রোশি ইউনিয়ন আ’লীগের সিনিয়র সহ- সভাপতি সুমন রেজা তালুকদার উদ্যোগ নেন।

রাঘববাড়িয়া গ্রামের ভুক্তভোগী আব্দুল আলীম জানান, বেশকিছু ঘটনা নিয়ে দুই গ্রামের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে  দ্ব›দ্ব চলে আসছে। এ বিষয়ে মিমাংসার উদ্যোগ নিলে আমরা তাতে সম্মতি জানাই। গত সোমবার মিমাংসার জন্য শালিসি বৈঠকের তারিখ নির্ধারিত ছিল। শালিসি বৈঠকের আগের দিন একটি কুচক্রি মহলের ইন্দ্রনে আমার ছোট ভাই আবদুল আজিজকে বন্যাকান্দি বাজারে গেলে কতিপয় ছেলে ধাওয়া করে।এ সময় আমার ভাই আজিজ ধাওয়া খেয়ে পালানোর সময় আহত হন। ফলে নির্ধারিত শালিসি বৈঠক বন্ধ হয়ে যায়।

আ’লীগ নেতা সুমন রেজা তালুকদার জানান, পঞ্চক্রোশি ইউনিয়নের আমার নিজ গ্রাম বন্যাকান্দি ও পাশ্ববর্তী গ্রাম রাঘববাড়িয়ার মধ্যে কতিপয় বিষয় নিয়ে দ্ব›দ্ব ও গোলমাল চলে আসছে। বিষয়টি মিমাংসার জন্য জনপ্রতিনিধিদের কাছে বারবার অনুরোধ করেছে ভুক্তভোগীরা। অদ্যবধি বিষয়টি মিমাংসা না হওয়ায় ঈদ পরবর্তীতে উভয় পক্ষের সম্মতিতে আমি সহ এলাকাবাসি একটি শালিসি বৈঠকের ব্যবস্থা করি। কিন্তু একটি কুচক্রী মহল গোলমালটি বাঁধিয়ে রাখার জন্য ষড়যন্ত্র করে আবারও উভয় পক্ষের মধ্যে গোলমাল বাঁধিয়ে দেন। এ ঘটনা নিয়ে রাজনৈতিক ফয়দা হাসিলের জন্য স্বার্থস্মেষী একটি মহল বৈঠকের শালিসকারক ও আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়ার পায়তারা করিতেছে। আমরা এলাকাবাসি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই।  
  

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।