পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ পাওয়া যাচ্ছে ঘরে বসেই

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ পাওয়া যাচ্ছে ঘরে বসেই



সেবা ডেস্ক: পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ পেতে এখন পুলিশে’র কোনো কার্যালয়ে বা থানায় যেতে হচ্ছে না। অনলাইনে আবেদন করে কুরিয়া’র সার্ভিসে ঘরে বসেই সেবা পাচ্ছেন নাগরিকেরা।

 

পুলিশ সদ’র দপ্ত’র সূত্র জানায়, অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সেবা চালু করা হয় ২০১৭ সালে’র ২৫ ডিসেম্ব’র। ওই দিন বাংলাদেশ পুলিশ প্রধানমন্ত্রী’র কার্যালয়ে’র এটুআই কর্মসূচি’র যৌথ আয়োজনে রাজা’রবাগ পুলিশ টেলিকম মিলনায়তনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সেবা’র উদ্বোধন করেন।

 

পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, সাধা’রণত বিদেশে চাকরি, লেখাপড়া করা বা বিদেশ গমনে’র ক্ষেত্রে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদে’র প্রয়োজন হয়। সনদে নাগরিকে’র থানায় কোনো ফৌজদারি অপরাধে’র রেকর্ড নেই বলে প্রত্যয়ন করা হয়। pcc.police.gov.bd ঠিকানায় অথবা বাংলাদেশ পুলিশে’র ওয়েবসাইটে (www.police.gov.bd) গিয়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স মেনুতে ক্লিক করে অনলাইনে আবেদন করা যায়। আবেদনে’র সঙ্গে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র স’রকারি ফি পরিশোধে’র চালান স্ক্যান করে আপলোড ক’রতে হয়। আবেদনকারী’র ব্যক্তিগতভাবে থানায় যাওয়া’র প্রয়োজন হয় না।

 

এ’রপ’র আবেদনকারী অনলাইনে তাঁ’র আবেদনে’র সর্বশেষ অবস্থা নিয়মিত জানতে পা’রবেন। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদে সংশ্লিষ্ট থানা’র ওসি’র স্বাক্ষ’র, পুলিশ সুপা’র বা পুলিশে’র উপকমিশনারে’র প্রতিস্বাক্ষ’র এবং প’ররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে’র সত্যায়ন হওয়া’র প’র আবেদনকারী সশরী’র গিয়ে জেলা পুলিশ সুপারে’র কার্যালয় বা মহানগরে’র ক্ষেত্রে উপকমিশনারে’র কার্যালয়ে’র ওয়ানস্টপ সার্ভিস কাউন্টা’র থেকে সনদ গ্রহণ ক’রতে পা’রবেন। পাশাপাশি আবেদনকারী কুরিয়া’র সার্ভিসে’র মাধ্যমে সনদ গ্রহণ ক’রতে চাইলে সেটি উল্লেখ করে কুরিয়া’র সার্ভিসে’র ফি (১৫-২০ টাকা) পরিশোধ ক’রতে হবে। আবেদন জমা হওয়া’র প’র ঢাকায় সাত কর্মদিবস আ’র ঢাকা’র বাইরে ১০ কর্মদিবসে’র মধ্যে পাওয়া যায় সনদ।

 

অনলাইন সনদে’র আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো এটিতে একটি কিউআ’র কোড থাকে। যেকোনো স্মার্টফোন থেকে কোডটি স্ক্যান ক’রলে ইস্যু হওয়া সনদে’র একটি অনলাইন লিংক পাওয়া যাবে। লিংক থেকে পাওয়া যাবে একটি অবিকল ডিজিটাল কপি। ফলে সনদ জাল হওয়া’র কোনো আশঙ্কা থাকে না এবং যেকোনো বিদেশি মিশন অনলাইনে এটা যাচাই ক’রতে পারে।

 

আগে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ পেতে সেবাপ্রত্যাশীরা নির্ধারিত ফ’রম পূ’রণ করে ৫০০ টাকা সংশ্লিষ্ট থানা’র ওসি’র কাছে জমা দিতেন। তদন্ত শেষে থানা’র ওসি সেটি সংশ্লিষ্ট উপকমিশনা’র বা জেলা সুপারে’র কাছে পাঠিয়ে দিতেন। ওই কর্মকর্তা’র স্বাক্ষরে’র প’র আবেদনকারী সেটি নিয়ে প’ররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দিতেন। প’ররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে’র অনুমোদনে’র প’র আবেদনকারী সনদ তুলতে পা’রতেন। পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, বিষয়টি ভোগান্তি’র সময়সাপেক্ষ ছিল।

 

পুলিশ সদ’র দপ্তরে’র সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-গণমাধ্যম) মো. কামরুজ্জামান বলেন, অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ চালু’র ফলে সেবাপ্রত্যাশী জনগণে’র অর্থ সময় সাশ্রয় হচ্ছে। এতে হয়রানিও নেই। পুলিশে’র কাজে স্বচ্ছতা জবাবদিহিও এসেছে।

 

এক সপ্তাহে’র মধ্যে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ পাওয়া’র কথা জানালেন মি’রপুরে’র কাজীপুরে’র বাসিন্দা জিল্লু’র ‘রহমান। তিনি বলেন, তাঁ’র ছেলে শাওন ‘রহমান অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন। সে দেশে নাগরিকত্ব পাওয়া’র জন্য আবেদনপত্রে’র সঙ্গে তাঁ’র বাংলাদেশে’র পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ যুক্ত করে দেওয়া’র প্রয়োজন ছিল। সম্প্রতি শাওন অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদে’র জন্য আবেদন করেন। ১০ দিনে’র মধ্যেই কুরিয়া’র সার্ভিসে’র মাধ্যমে শাওনে’র সনদ মি’রপুরে’র বাসায় পৌঁছে যায়।

 

ঢাকা মহানগ’র পুলিশ (ডিএমপি) সদ’র দপ্ত’র সূত্র জানায়, গত পাঁচ বছরে (২০১৭ থেকে ২০২১ সাল) ডিএমপি অনলাইনে লাখ ৪৯ হাজা’র ৫০টি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ দিয়েছে। এ’র মধ্যে ২০২০ সালে দেওয়া হয়েছে ২৯ হাজা’র ৫৩৪টি। ২০২১ সালে দেওয়া হয়েছে ৪১ হাজা’র ৬৪০টি। অর্থাৎ ২০২০ সালে’র তুলনায় গত বছরে ১২ হাজা’র ১০৬টি বেশি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ নিয়েছেন নগ’রবাসী।

 

অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ নিয়ে ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনা’র (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) কৃষ্ণ পদ রায় বলেন, বিদেশে চাকরি পড়াশোনা করা শিক্ষার্থীদে’র যাতে ভোগান্তি না হয়, সেই বিষয়টি অগ্রাধিকা’র দিয়ে এবং তাদে’র হাতে দ্রুত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ তুলে দিতে অনলাইন পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। এখন ঘরে বসেই সবাই কুরিয়া’র সার্ভিসে’র মাধ্যমে সনদ পাচ্ছেন। এতে তাঁদে’র অর্থ, সময় সাশ্রয় হচ্ছে, কমছে ভোগান্তিও। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।