বকশীগঞ্জে ১৬ মাদক ব্যবসায়ী ফিরছেন স্বাভাবিক জীবনে


সেবা ডেস্ক: 
জামালপুরের বকশীগঞ্জ থানা পুলিশের আহ্বানে সাড়া দিয়ে দীর্ঘ দিনের পেশা মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে শপথ বাক্য পাঠ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরছেন ১৬ মাদক ব্যবসায়ী ।

ইতোমধ্যে বকশীগঞ্জ থানায় আত্মসমর্পন করে এই প্রক্রিয়া শুরু করেছেন তারা। বকশীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আবদুল হান্নান সহ থানার কয়েকজন কর্র্মকর্তা তাদের আত্মসমর্পনের ব্যাপারে অগ্রনী ভূমিকা রেখেছেন।

রোববার সকাল ১০ টায় বকশীগঞ্জ থানায় হাজির হয়ে মাদক ব্যবসা না করার শর্তে অঙ্গীকার করে মাদক বিরোধী শপথ বাক্য পাঠ করেন ১৬ জন মাদক ব্যবসায়ী। সে সময় বকশীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. রুবেল মিয়া তাদের ওই শপথ বাক্য পাঠ করান।

যেসব মাদক ব্যবসায়ী স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পন করেন তারা হলেন , সীমান্তবর্তী বগারচর ইউনিয়নের রামরামপুর গ্রামের লিয়াকত আলী (৬০), জৈনুদ্দিন মিয়া (৪৫),

গোলাম মোস্তফা (৬০), আসলাম হোসেন বাজারু(৪০), মনোয়ার হোসেন (৫০), সাইফুল ইসলাম (৬০), আবদুর রশিদ (৪৫) রফিকুল ইসলাম (৩০), তুফানু মিয়া (৩৫), নুর মোহাম্মদ (৩৬)।

 একই ইউনিয়নের সারমারা গ্রামের মো. স্বাধীন মিয়া (৪৫), উত্তর সারমারা গ্রামের মানিক মিয়া (৪৮) , ধানুয়া

কামালপুর ইউনিয়নের ধানুয়া গ্রামের ছাবেদ আলী (৫৫), আবু কাশেম (৫৫),  পৌর এলাকার ঋষি পাড়া গ্রামের গোপাল ঋষির স্ত্রী বেলে ঋষি (৪৫) ও একই গ্রামের বানেশ্বর ঋষির স্ত্রী মেন্দি ঋষি (৪০)।

আত্মসমর্পনের পর বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ এসব মাদক ব্যবসায়ীদের মিষ্টি খাইয়ে তাদের স্বাগত জানান।

এসময় প্রত্যেককেই ভবিষ্যতে মাদক ব্যবসা ও মাদক সেবন না করার জন্য অঙ্গীকার নামায় সই করেন।

আত্মসমর্পনের পর বগারচর ইউনিয়নের আবদুল মজিদের ছেলে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী লিয়াকত আলী বলেন, আমি প্রায় ২০ বছর যাবত অবৈধভাবে মাদক পাচার করে আসছি।

 এতে করে আমি সামাজিক ও রাষ্ট্রীয়ভাবে চরম মূল্যহীন অবস্থায় জীবনযাপন করছি। তাই পুলিশের আহ্বানে সাড়া দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার অঙ্গীকার করেছি।

আরেক মাদক ব্যবসায়ী ছাবেদ আলী বলেন, নিজে আর মাদক বেচব না (বিক্রি করা) আর কাউকে মাদক বিক্রি করতেও দেব না।

মাদকের জন্য বিখ্যাত রামরামপুর গ্রামের জৈনুদ্দিন মিয়া বলেন, আমাদের গ্রামকে মাদক মুক্ত করতে পুলিশকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করব।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো. রুবেল মিয়া জানান, আমরা র্দীঘদিন ধরে এসব মাদক ব্যবসায়ীকে
স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে আসছি । অবশেষে আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে আত্মসমর্পন করেন তারা ।
 

, , , , ,