ফুলবাড়ী সীমান্তে প্রবেশ করে বাংলাদেশীকে আটকের চেষ্টা বিএসএফে’র

ফুলবাড়ী সীমান্তে প্রবেশ করে বাংলাদেশীকে আটকের চেষ্টা বিএসএফে’র

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী সীমান্তে ভারতীয় ৪ জন বিএসএফ আন্তর্জাতিক সীমানা আইন অমান্য করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে এক বাংলাদেশী কে মারধর করার শেষে ধরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টার সময় হস্তাধস্তি এবং ধাওয়া ও পালটা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ওই সীমান্তে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
সীমান্তবাসী ও বিজিবি’র কাছে জানা গেছে, শনিবার বিকেলে ফুলবাড়ী উপজেলার বালাতাড়ি সীমান্তে আন্তর্জাতিক সীমানা পিলার নং-৯৩২ এর কাছে ভারতীয় করলা ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা দুই দেশের চোরাকারবারীদের লক্ষ্য করে ধাওয়া করলে ভুলবশত বাংলাদেশের ভুখন্ডে প্রবেশ করে বিএসএফ। এ সময় চোরাকারবারী দলের সকল সদস্য পালিয়ে যায়। চোরাকারবারীদের ধরতে না পেরে ওই সীমান্তের নিদোর্ষ এক বাংলাদেশীকে বেধরক মারপিট করে টেনে-হেচড়ে ভারতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ওই বাংলাদেশীর চিৎকারে সীমান্তের শতাধিক নারী-পুরুষ ভারতীয় ৪ জন বিএসএফস সদস্যদেরকে ধাওয়া করে। পরে বাংলাদেশীদের ধাওয়া খেয়ে বিএসএফ সদস্যরা পালিয়ে যায়।
খবর পেয়ে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) বালারহাট ক্যাম্পের সদস্যরা সীমান্তে চারিদিকে টহল জোড়দার করে ভারতীয় করলা ক্যাম্পের বিএসএফের কাছে তীব্র প্রতিবাদ জানায়। বিজিবির তীব্র প্রতিবাদে সন্ধার আগে ওই সীমান্তে আর্ন্তজাতিক মেইন পিলার ৯৩২ এর সাব পিলার ১ এস ও ২ এসের মাঝে দুই দেশের কোম্পানী পর্যায়ে বিজিবি ও বিএসএফ পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় বাংলাদেশের পক্ষে নের্তৃত্ব দেন লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি অধীন শিমুলবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার নুর-ই-আলম ও ভারতের পক্ষে নের্তৃত্ব দেন কোচবিহার জেলার দিনহাটা থানার অধীনে ৩৮ বিএসএফ করলা ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার ইন্সপেক্টর বিনোদ কুমার বর্মন।

, , , , ,