বানী অর্চনায় উপলতা সর্বানন্দ যুব সংঘ

বানী অর্চনায় উপলতা সর্বানন্দ যুব সংঘ

রকি চন্দ্র সাহা,  চাঁদপুর প্রতিনিধি: হিন্দু ধর্ম মতে সরস্বতী বিদ্যার দেবী । বাংলা ২৬ শে মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শুভ্র রাজহংস করে দেবী আসেন জগতে। চতুর্থ তিথির মধ্যরাতে প্রতিমা স্থাপন করে পূজার আনুষ্ঠানিকতা সূচিত হয়। এই আনুষ্ঠানিকতা রবিবার রাতে সম্পূর্ণ হয়।

সনাতন ধর্মীয় রীতিতে দেবীকে দুধ, মধু, দই, ঘি, কর্পূর, চন্দন দিয়ে স্নান করানো হয় । এরপর চরণামৃত নেবেন ভক্তরা।রবিবার সকাল ১০টায় দিকে হয়েছে বাণী অর্চনা। পুরোহিত প্রদীপ চক্রবর্তী ‘সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমল লোচনে, বিশ্বরূপে বিশালাক্ষী বিদ্যংদেহী নমোহস্তুতে’ এ মন্ত্রে বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা করে, পূজার আচার পালন করেন। এরপর ভক্তরা পুষ্পাঞ্জলি দিয়েছেন।

চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলায় উপলতা সর্বানন্দ যুব সংঘ ১০তম বছর উদযাপন উপলক্ষে মেহার হাই স্কুল প্রাঙ্গনে বাণী অর্চনায় দুপুর বেলায় ১২০০ ভক্তদদের মাঝে ভুনা খিচুড়ির প্রসাদ বিতরণ করেছেন। পূজা ছাড়াও অন্য অনুষ্ঠানমালায় আছে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান, প্রসাদ বিতরণ, ধর্মীয় আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যা আরতি, আলোকসজ্জা প্রভৃতি।

হিন্দুদের বিশ্বাস, সরস্বতী খুশি হলে বিদ্যা ও বুদ্ধি অর্জিত হবে। প্রাচীন কালে তান্ত্রিক সাধকেরা সরস্বতী-সদৃশ দেবী বাগেশ্বরীর পূজা করতেন। ঊনবিংশ শতাব্দীতে পাঠশালায় প্রতি মাসের শুক্লা পঞ্চমী তিথিতে ধোয়া চৌকির উপর তালপাতার তাড়ি ও দোয়াতকলম রেখে পূজা করার প্রথা ছিল। শ্রীপঞ্চমী তিথিতে ছাত্ররা বাড়িতে বাংলা বা সংস্কৃত গ্রন্থ, শ্লেট, দোয়াত ও কলমে সরস্বতী পূজা করত। সরস্বতী পূজা উপলক্ষে হিন্দু সমপ্রদায় বিশেষ করে শিক্ষার্থীরা বাণী অর্চনাসহ নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। 
 
সরস্বতী পূজা পরিদর্শন করেন শাহরাস্তি উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও শাহরাস্তি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মিন্টু ।

তিনি বলেন “ধর্ম যার যার রাষ্ট সবার” জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কণ্যা দেশ নেত্রী শেখ হাসিনা ও চাঁদপুর ০৫ আসনের এমপি মেজর অব: রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমকে কৃতজ্ঞতা জানাই। বর্তমান সরকারের সময়ে সকল সনাতনী ধমাবলম্বী শান্তি শৃঙ্খলা ভাবে পূজা করতে পারছে। শাহরাস্তি উপজেলায় পুলিশ সার্বক্ষণিক সহযোগীতা করে যাচ্ছে সকল পূজা মন্ডবে।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সুশিল সমাজ , স্কুল কলেজের শিক্ষক , স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী, সাংবাদিক সহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ।

উপলতা সর্বানন্দ যুব সংঘের যে সকল ভক্তদের অক্লান্ত পরিশ্রমে উক্ত পূজা অনুষ্ঠান সর্ম্পূণ হয় তারা হলেন মিঠুন বণিক , সুভাষ দে, অনিন্দ ভট্রাচার্য্য, গোপাল সাহা, অনিত চক্রবর্তী, বাদল শীল , কুশন আইস , প্রান্ত সাহা, কফিল সাহা, রোমন দে, সুজন সাহা, নিখিল দেবনাথ, সঞ্জিব বণিক, সুমন বণিক, অভি ভট্রাচার্য্য, দিপন চক্রবর্তী, দিপ্ত বণিক , উজ্বল বণিক, মাণিক সাহা, আকাশ বণিক,প্রশান্ত সাহা,সাগর শীল, নিলয় সাহা, তন্ময় চক্রবর্তী, জয় বণিক, নান্টু চক্রবর্তী, সৌরভ সাহা, নদী সাহা, নিলয় বলিকসহ অন্যান্য ভক্ত বৃন্দ।


⇘সংবাদদাতা: রকি চন্দ্র সাহা

,

0 মন্তব্য(গুলি)

Comments Please