বকশীগঞ্জে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী, শিক্ষকের বিচার চেয়ে স্মারকলিপি

বকশীগঞ্জে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী, শিক্ষকের বিচার চেয়ে স্মারকলিপি
বকশীগঞ্জ প্রতিনিধি : জামালপুরের বকশীগঞ্জে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্মারকলিপি প্রদান করেছে এলাকাবাসী।

৪ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকাল ৪ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলামের নিকট ওই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

চন্দ্রাবাজ গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক মুন্সী বীর প্রতীক (বার) এর নেতৃত্বে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ স্বারকলিপি প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন।  তারা এ সময় অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিচার দাবি করেন।

জানা গেছে, বকশীগঞ্জ উপজেলার বাট্টাজোর ইউনিয়নের চন্দ্রাবাজ গ্রামের বাসিন্দা ও শেফালী মফিজ মহিলা আলিম মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে গত ১৫ জুলাই নিজ ঘরে শ্লীলতাহানী করে একই মাদ্রসার জুনিয়র শিক্ষক মো. রুকুনুজ্জামান।

এ সময় ওই ঘরে কেউ ছিলেন না। শ্লীলতাহানীর ঘটনায় ওই ছাত্রী পরদিন ১৬ জুলাই মাদ্রাসার অধ্যক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়েই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবদুর রশিদ তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

তদন্ত কমিটির সদস্যরা ঘটনার সত্যতা পেলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করেছে। এরই প্রেক্ষিতে শিক্ষক রুকুনুজ্জামানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ৪ সেপ্টেম্বর বুধবার ইউএনও বরাবর অভিযোগ দিয়েছে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবদুর রশিদ।

এঘটনা ঘটিয়েই লম্পট ওই শিক্ষক মাদ্রাসায় আসা যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এমনকি মাদ্রাসার ক্লাসের পাঠদানও বন্ধ রেখেছেন।

অভিযুক্ত শিক্ষক রুকুনুজ্জামানের সাথে মোবাইলে বার বার যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান , আমি কয়েক দিন যাবৎ অসুস্থ্য, এজন্য মাদ্রাসায় যেতে পারছি না।


 -সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,

0 comments

Comments Please