ইসলামপুরে শরীর কেটে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ

ইসলামপুরে শরীর কেটে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ
নিজের শরীর কেটে শ্লোগানসহ বিভিন্ন কথা লিখে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেছে খেটে খাওয়া এক দিনমজুর যুবক


লিয়াকত হোসাইন লায়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের ইসলামপুরে নিজের শরীর কেটে শ্লোগানসহ বিভিন্ন কথা লিখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেছে খেটে খাওয়া এক দিনমজুর যুবক। 

গোপনে এসব কথা লিখলেও একসময় অসুস্থ হয়ে পরায় বিষয়টি জানতে পরিবার। দলীয় কোন কর্মসূচীতে সক্রিয় না হয়েও বা দলীয় কোন পদে না থেকেও নিজেকে ক্ষত-বিক্ষত করে এমন বিরল ভালোবাসা প্রকাশ করায় বিষ্মিত স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। 

জানাগেছে,জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার চরপুটিমারি ইউনিয়নের বেনুয়ারচর গ্রামের মৃত আঃ মমিনের ছেলে দিন মজুর ময়েছেন আলী (২৯)। 

দলীয় পদ বা দলীয় কোন সভা-সমাবেশে সক্রিয় না থাকলেও বাপ-দাদার আওয়ামী লীগের প্রতি ভক্তি দেখে তিনিও আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন অন্তর থেকে। 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেন নিজের শরীরে। 

পরিবারের সদস্যদের আড়ালে বেশ গোপনে নিজের শরীর কেটে কেটে লিখেন “জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান”, “যারা মুজিবের ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলে তারা আলবদর রাজাকার”, “শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার”, “যত দিন রবে দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ”, “ফরিদুল হক খান দুলাল এমপিকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করায় শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ”। 
যারা মুজিবের ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলে তারা আলবদর রাজাকার”
এই কথা ও শ্লোগানগুলো ময়েছেন আলী লিখেছেন একেবারে নিরেট ভালোবাসা থেকে
এই কথা ও শ্লোগানগুলো ময়েছেন আলী লিখেছেন একেবারে নিরেট ভালোবাসা থেকে। নিজের শরীর কেটে তাতে এসিড ঢেলে ক্ষত করে তা শুকিয়ে নিজের গায়ে লিখে রেখেছেন একজন মুজিব পাগল, আওয়ামী প্রেমিক, শেখ হাসিনার ভক্ত, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলালের গুণগ্রাহী। 

ময়েছেন জানান, আওয়ামী লীগকে ভালোবাসি, শেখ হাসিনাকে ভালোবাসি। এই ভালোবাসা থেকেই পদ্মা সেতুর ৩৭তম স্প্যান বসানোর স্মৃতিকে ধরে রাখতেই প্রথম বাম হাতে লিখেন “জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান”, “শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার”, “যত দিন রবে দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ”। এরপর বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্যের বিরোধীতাকারীদের উদ্দেশ্যে বুকে ও পেটের উপর লিখেন, “যারা মুজিবের ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলে তারা আলবদর রাজাকার”। 

পরবর্তীতে ইসলামপুর থেকে নির্বাচিত তিনবারের সংসদ সদস্য ফরিদুল হক খান দুলালকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করায় প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি লিখেন, “ফরিদুল হক খান দুলাল এমপিকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করায় শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ”। তিনি আরও জানান, শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললে তিনি তার প্রতিবাদ করেন। শেখ হাসিনাকে তিনি এতটাই ভালোবাসেন তাঁর জন্য যে কোন সময় শরীরের যে কোন স্থানে এমনটি যে কোন অঙ্গ তিনি কেটে ফেলতে পারবেন। 
ফরিদুল হক খান দুলাল এমপিকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করায় শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা
তবে এই কাজটি তিনি কাউকে দেখানোর জন্য বা কোন কিছু চাওয়া পাওয়া জন্য করেননি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসা ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির অনুসারী হিসেবে তিনি এটা করেছেন। স্টীলের প্লেইনসীট দিয়ে প্রথমে শরীরে ক্ষত করা হয়, তারপর ক্ষতটিকে দীর্ঘস্থায়ী করতে তাতে এসিড ঢালেন। এই পুরো কাজটি ময়েছেন করেন সবার অগোচরে, এমনকি তার পরিবারের কেউ বিষয়টি টের পায়নি। কিন্ত একদিন হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরলে সারা শরীর ক্ষত-বিক্ষত দেখতে পান তার স্ত্রী রিনা বেগম।  

ময়েছেনের স্ত্রী এক সন্তানের জননী রিনা বেগম জানান, তার স্বামী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরে, এক সপ্তাহ ধরে সে অসুস্থ থাকে। শরীরে এসব কখন লিখেছে তা তিনি জানেন না। লেখাগুলো দেখে বকাঝকা করলেও পরে বুঝতে পারেন শেখ হাসিনাকে ভালোবেসেই এমনটি করেছে তার স্বামী। 

চরপুটিমারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইদ্রিস আলী বলেন, ময়েছেনের বাপ-দাদা আওয়ামী লীগের অনুসারী ছিলো। ময়েছেন খেটে খাওয়া সাধারণ এক দিনমজুর। সে আওয়ামী লীগের কোন নেতা না, সে কোন সভা সমাবেশে যায়না, তার শরীরে বঙ্গবন্ধু, সেই তো প্রকৃত দেশপ্রেমিক। 

চরপুটিমারি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সামছুজ্জামান সুরুজ মাষ্টার জানান, দরিদ্র ময়েছেন বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল কে ভালবাসা মূখে প্রকাশ করতে না পেয়ে শরির কেটে প্রকাশ করেছেন। তাকে প্রয়োজনীয় সহাযোগীতা করার জন্য সরকারের কাছে আশাবাদ ব্যাক্ত করছি।     

ইসলামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট এস.এম. জামাল আব্দুন নাছের বলেন, ব্যাক্তিগত ভালোবাসা থেকেই ময়েছেন আলী নিজের শরীর কেটে ¯েøাগান লিখেছে। এমন মানুষ আছে বলেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বল্পন্নোত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। এদের জন্যই বাংলাদেশ একদিন জাতির জনকের স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত হবে। 

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি বলেন- ময়েছেন আলী নিজের শরীর কেটে শ্লোগান লিখেছেন- আজকে তার কৃর্তকর্ম দেখে আমি গর্ভবোধ করি। আমার মনে হয় বাংলাদেশের সপক্ষের শক্তির পক্ষে যত আছে তার চেয়েও বেশী আমার কাছে তাকে বিবেচিত হয়। আমি ভাবতে পারিনি মুজিব পাগল এমন মানুষও বাংলাদেশে আছে। ময়েছেন আলীর বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রীর প্রতি ভালবাসার বহিঃ প্রকাশে আমি কৃতজ্ঞতা জানাই।
   



শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Dara Computer Laptops