নগরবাড়ি-সুজানগরে দৃশ্যমান উন্নয়ন

নগরবাড়ি-সুজানগরে দৃশ্যমান উন্নয়ন


সিনিয়র রিপোর্টার: পাবনার বেড়া উপজেলার ঐতিহাসিক নগরবাড়িসহ সুজানগর উপজেলার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। 

নৌপথে পণ্য পরিবহনের অন্যতম প্রবেশদ্বার নগরবাড়ি-ঘাট এলাকায় বিশাল কর্মযজ্ঞে সদ্য স্থাপিত মেরিন একাডেমি, নগরবাড়ি নদীবন্দর এবং নির্মাণাধীন বাফার গোডাউন, বেড়া ও সুজানগরের যোগাযোগ ব্যবস্থার দৃশ্যমান উন্নয়নগুলো চোখে পড়ারমতো। 

ব্যাপক উন্নয়নের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন স্থানীয়রা। দৃশ্যমান উন্নয়নে প্রশংসা কুড়িয়েছেন পাবনা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু। 

জনগণের দীর্ঘদিনের দাবির গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নগুলো বাস্তবায়ন করায় তৃণমূল পর্যায়ে বেড়েছে আওয়ামী লীগের কর্মী ও সমর্থক। 

প্রাপ্ততথ্যে জানা গেছে, দেশের সবচেয়ে আধুনিক নগরবাড়ি নদীবন্দর নির্মাণে ২০১৮ সালে যমুনা নদীর পাড়ে বিশাল কর্মযজ্ঞ শুরু করে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-নজরে এবং তৎকালীন সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজুর প্রচেষ্টায় আন্তর্জাতিক মানের বন্দরের কাজ শুরু হয়। অবকাঠামো নির্মাণের পর বন্দরে জাহাজ থেকে পণ্য উঠানামা সহজ হবে। নির্মাণ কাজ শেষ হলে এই পথে আমদানি-রপ্তানি আরও কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সার, সিমেন্ট, বালি, কয়লাসহ বিভিন্ন পণ্য নগরবাড়ি নৌবন্দরে আসে। সেখান থেকে সড়ক পথে উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে পরিবহন করা হয়। একইভাবে উত্তরাঞ্চলের মালামাল এ বন্দর দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে পরিবহন করা হয়। 

সার সংরক্ষণ ও বিতরণ সুবিধার জন্য নগরবাড়ি এলাকায় একটি বাফার গোডাউন নির্মাণের দাবি ছিল দীর্ঘদিনের। গোডাউন না থাকায় ইতিপূর্বে খোলা আকাশের নিচে সারের স্তুপ দেখা যেতো। অবশেষে সার সংরক্ষণে দীর্ঘদিনের দাবির বাফার গোডাউন নির্মাণ বাস্তবায়নের মুখ দেখেছে। খন্দকার আরজু সংসদ সদস্য থাকাকালে বাফার গোডাউন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নির্মাণকাজ চলমান থাকলেও প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। বাফার গোডাউনের কাজ চলতি বছরের মধ্যেই শেষ হবে বলেও জানান তিনি। 

এদিকে নগরবাড়িতে আন্তর্জাতিক মানের মেরিন একাডেমির নিমাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। নাটিয়াবাড়ি মৌজায় ১০ একর জমির ওপর গড়ে তোলা হয়েছে মেরিন একাডেমি। সাবেক সাংসদ খন্দকার আরজুর প্রচেষ্টায় নির্মিত হয়েছে মেরিন একাডেমি। বহুতলবিশিষ্ট ১০টি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। একাডেমিতে জিমনেসিয়াম, মসজিদ ও সুইমিং পুল নির্মাণকাজও শেষ হয়েছে। এই একাডেমির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা দেশ-বিদেশে কর্মসংস্থানের উপযোগী করে নিজেদের গড়ে তোলার সুযোগ পাবে। 

অন্যদিকে সাবেক সাংসদ খন্দকার আজিজুল হক আরজুর প্রচেষ্টায় সুজানগর পৌরসভায় শেখ রাসেল শিশুপাক নির্মিত হয়েছে। উপজেলা পর্যায়ে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার পর এটিই প্রথম ছিল। এছাড়া সুজানগর উপজেলার চরগোবিন্দপুর, হেমরাজপুর, নাজিরগঞ্জ সহ দুই উপজেলার সবগুলো বিদ্যালয়-কলেজের নতুন ভবন নির্মাণ ও নাজিরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের নতুন কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণসহ শিক্ষা, কৃষি, বিদ্যুতায়ন, শতভাগ যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ অবকাঠামোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। 

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা আলতাফ হোসেন, আব্দুর রহমান, নজিবর হক ও বেলাল হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করে পাবনার মানুষ। প্রশংসা কুড়িয়েছেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু। তিনি এলাকার শতভাগ উন্নয়ন বাস্তবায়ন করেছেন। ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান, ২০১৪ সালে বাংলাদেশ আওযামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। নগরবাড়িতে গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নের পাশাপাশি অনেক বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানও হয়েছে। 

সাবেক সংসদ সদস্য খন্দকার আজিজুল হক আরজু বলেন, শতভাগ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করেছি। ২০১৭ এর মধ্যে বিদ্যুতায়নের শতভাগ উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়া আগামী ১০ বছরে নতুন কোনো স্কুল ভবনের প্রয়োজন হবেনা। জননেত্রী শেখ হাসিনার সু-নজর ছিল বলেই উন্নয়নগুলো বাস্তবায়ন হয়েছে। 
  



শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Dara Computer Laptops