অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করতে চান চেয়ারম্যান আবু সালেক

অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করতে চান আ’লীগের চেয়ারম্যান আবু সালেক



রাজু আহমেদ সাহান-উল্লাপাড়া প্রতিনিধি: করোনা মহামারির কারণে সরকার সাময়িক ভাবে দেশব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিলেও আগামী ঈদুল আযহা কে সামনে রেখে বিভিন্ন পদের প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে চলছে নিরব নির্বাচন। 

পাড়ায়-পাড়ায়, মহল্লায়-মহল্লায় ও হাট-বাজারের চা আড্ডা আলাপনে ভোটার ও জনগণের মধ্যে সর্বত্রই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে নিয়ে আলোচনার ঝড় বইছে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কোন পরিষদে, কোন দলের, কে পাচ্ছেন মনোনয়ন। 

অবসরে, খোস-গল্পে ও চা পানের বিরতিতে হিসাব কষছেন ভোটাররা। বিভিন্ন প্রার্থীর ব্যক্তিগত জীবনী ও পারিবারিক ইতিহাস এবং রাজনৈতিকভাবে জনপ্রিয়তাকে ঘিরেও মিলাচ্ছে ভোটের হিসাব। সরকারের ঘোষিত তৃতীয় ধাপে উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়নের আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, দলের দুঃসময়ের কান্ডারী, যুব সমাজের আইডল, রাজপথের পরীক্ষিত সৈনিক, উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান সুযোগ্য চেয়ারম্যান মোঃ আবু সালেক।

সৎ, বিনয়ী এবং সদালাপী এই নেতা চেয়ারম্যান মোঃ আবু সালেক মনে করেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা ও স্থানীয় সংসদ সদস্য জননেতা তানভীর ইমাম তার সারা জীবনের রাজনৈতিক কর্মকান্ডের সুবিবেচনায় সৎ, যোগ্য, মেধাবী এবং দলের দুঃসময়ের ত্যাগী কর্মী হিসেবে তাকেই মনোনয়ন দিবেন। তিনি জনগনের ভালোবাসা এবং সমর্থন নিয়ে স্বাধীনতার প্রতীক নৌকাকে বিজয়ী করে আবারও চেয়ারম্যান পদটি দলকে উপহার দিতে পারবেন বলে তার দৃঢ় প্রত্যাশা। তিনি আরো আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামীতে পুনরায় নির্বাচিত হলে উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়নের অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করে এলাকাকে শিক্ষা, শিল্প, সাহিত্য স্বাস্থ্য ও সংস্কৃতি, অবকাঠামো উন্নয়ন, বাল্য বিবাহ মুক্ত, তথ্য-প্রযুক্তি সমৃদ্ধ ও মাদকমুক্ত মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে সমর্থ হবেন।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত চেয়ারম্যান মোঃ আবু সালেক ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগের কর্মী ও সমর্থক হিসেবে ছাত্রলীগের দলীয় কাজ শুরু করেন। ১৯৯৪ সালে কলেজ ছাত্রলীগের প্রাথমিক সদস্য পদ লাভ করে দলের সক্রীয় কর্মী হিসেবে মিটিং মিছিলের মধ্য দিয়ে বিএনপি’র ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রয়ারীর প্রহসনের নির্বাচনকে প্রতিহত করে ১২ জুন সর্বদলীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আ’লীগ দলীয় প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে অগ্রণী ভুমিকা পালন করেন এই পরীক্ষিত তরুণ নেতা। বিরোধী দল কতৃক নির্যাতিত এই নেতা উল্লাপাড়া উপজেলা আ’লীগের নেতৃত্বে লগি বৈঠার আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখেন। ১/১১ আন্দোলন থেকে শুরু করে ২০১৪ সালে জামায়াত-বিএনপি’র অগ্নি সন্ত্রাস মোকাবিলায় তিনি ছিলেন রাজপথের অতন্দ্র প্রহরী। দলের প্রতিটি আন্দোলন ও সংগ্রামে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে তিনি সর্বত্র রাজপথে অটল ছিলেন।
বিপ্লবী, সময় উপযোগী ও সাহসী এই তরুণ নেতা মোঃ আবু সালেক উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়নে ২০১৬ সালে চেয়ারম্যান পদে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে এলাকার উন্নয়ন ও সেবামুলক কার্যক্রমে ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। প্রতিটি গ্রাম ও মহল্লার রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো উন্নয়নসহ এলাকার নানাবিধ উন্নয়ন করেছেন তিনি। এলাকার পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে উল্লাপাড়া উপজেলা প্রশাসন কতৃক পরিচালিত সানফ্লাওয়ার স্কুল নামীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদে যুক্ত থেকে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক হিসেবে ইউনিয়নের প্রতিটি মহল্লায় মসজিদ, মন্দির, কবরস্থান, মাদ্রাসা ও এতিমখানার উন্নয়নে তার রয়েছে ব্যাপক অবদান। তিনি আশা করেন আগামী নির্বাচনে তার যোগ্যতা, সততা ও নিষ্ঠার সাথে দলীয় কার্যক্রমে দায়িত্ব পালন করার পাশাপাশি অবহেলিত জনপদের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ করার জন্য চেয়ারম্যান পদে দল আবারও তাকেই মনোনয়ন দেবেন। চেয়ারম্যান আবু সালেক তার দল আওয়ামী লীগের সকল স্তরের নেতা-কর্মী এবং ইউনিয়ন বাসির দোয়া, সাহায্য, সহযোগিতা এবং সমর্থন প্রত্যাশা করে বলেন, তিনি আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবারও দলীয় মনোনয়ন পেয়ে পুণরায় নির্বাচিত হলে সবাইকে সাথে নিয়ে উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়নকে জেলার অন্যতম মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবেন।
 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।