করোনাজয়ী কাজিপুরের এসি ল্যান্ডের আবেঘন স্ট্যাটাস

করোনাজয়ী কাজিপুরের এসি ল্যান্ডের আবেঘন স্ট্যাটাস



কাজিপুর প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার(ভূমি) এবিএম আরিফুল ইসলাম করোনার ভ্যাকসিন নেবার পরেও করোনা পজেটিভ হয়েছিলেন। 

ধীর্ঘ ১৪ দিন তিনি করোনার সাথে যুদ্ধ করে সেরে উঠেছেন। কয়েকদিন যাবৎ তিনি আবারো মাঠে নেমেছেন জনগণকে সচেতন করতে। তার দেখা তিনটি ঘটনা সম্পর্কে তার নিজের ফেসবুক পেজে এক বাস্তবানুগ ও আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন। শুক্রবার( ৩০ জুলাই) সকালে তিনি তার পেজে তিনটি ঘটনার উল্লেখ করে জনগণকে সতর্ক হবার পরামর্শ দিয়েছেন।

 তিনি উল্লেখ করেছেন ‘বাবা কাঠমিস্ত্রি।  ইন্টারমিডিয়েট পড়ুয়া ছেলেকে কিনে দিয়েছেন পালসার মোটরসাইকেল। সেটা নিয়ে ছেলে হেলমেট বা ড্রাইভিং লাইসেন্সতো দূরের কথা এই লকডাউনে বিনা মাস্কে, বিনা প্রয়োজনে বিশেষ ভাব ভঙ্গি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে, কি মজা!!! দোষটা আসলে কার ছেলের না বাবার?

#লকডাউনের মাঝে একশ্রেণীর সাধু সরকারি জায়গা দখল করে করছে ঘর। কি আর করবে লকডাউনে কাজ কর্ম নেই তাই সরকারি জায়গা দখল করে। কি আর করার এমন মহান, কর্মঠ ব্যক্তিকে একটু কুর্ণিশ করতে গেলাম সেখানে।

#ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি দেখলে দোকানপাট, মোটরসাইকেল সব ফেলে রেখে দৌঁড়ে পালানো। কখনো কখনো লজ্জাবনত হয়ে বা অন্যদিকে তাকিয়ে যেনো সে কিছুই জানেনা, বোঝেনা হাত বা কাপড় দিয়ে নাক ঢাকা বা পকেট থেকে মাস্ক বের করে বা থুতনি থেকে মাস্ক টেনে নাক মুখ ঢাকা। আরো কতো জনের কতো কি!

 আপনি কাকে ফাঁকি দেবার চেষ্টা করছেন। একটু ভেবে দেখনুতো নিজেকে নয়তো! কি আর করার গত ২ দিনেও ১০ মামলায় ১০ জনকে বিভিন্ন পরিমাণে অর্থদন্ড করা হয়েছে।

 এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এসিল্যান্ড এবিএম আরিফুল ইসলাম জানান, নিজে করোনার টিকা নেবার পরেও জনগণের কাজ করতে গিয়ে পজেটিভ হয়েছিলাম। কিন্তু হতাশ হইনি। দুই সপ্তাহ করোনার সাথে লড়ে আবারো মানুষের সেবা করতে ফিরে এসেছি। কিন্তু সাধারণ জনগণ যা করছে তা সত্যিই কষ্ট দেয়। প্রত্যেকেরই উচিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।