যার জাদুতেই ২ মিনিট ‘গায়েব’ ছিল তাজমহল, তার আদি বাড়ি টাঙ্গাইলেই

যার জাদুতেই ২ মিনিট ‘গায়েব’ ছিল তাজমহল, তার আদি বাড়ি টাঙ্গাইলেই



সেবা ডেস্ক: করোনার মহমারিকালে লকডাউনে বসে আরেকটি জন্মদিন! এখন তিনি পরিবারের সঙ্গে বাড়িতে। এরই মধ্যে ‘আবিষ্কার’ করেছেন নতুন কিছু ম্যাজিক। ক্যানভাসে ফুটিয়েছেন ছবি, লিখেছেন কবিতা কিংবা নতুন কোনো গল্প। জাদুকর পি সি সরকার জুনিয়রের দিনকাল এমনই কাটছে।

১৯৪৬ সালের ৩১ জুলাই জন্ম হয়েছিল পি সি সরকার জুনিয়রের। কিন্তু তিনি যখন বছর পঁচিশের, তখনই প্রয়াত হন, তার বাবা পি সি সরকার। জুনিয়র পি সি সরকারও চেয়েছিলেন, তার বাবার মতোই বিখ্যাত ম্যাজিশিয়ান হতে। আজ ৭৪ বছর বয়সে এসে পি সি সরকার জুনিয়র সম্ভবত, তার বাবার মতো ম্যাজিশিয়ানই হননি; বরং কখনও কখনও কিছু কিছু ম্যাজিকের ক্ষেত্রে ছাপিয়েও গেছেন!

তার বাবা জাদু সম্রাট পি সি সরকারের নাম জানে না এমন মানুষ খুব কমই আছে। সারাবিশ্বে শুধু জাদুর খেলা দেখিয়েই তিনি গোটা বাঙালি জাতির জন্য কুড়িয়ে এনেছেন অনেক সুনাম আর গৌরব। জাদুকরের জন্ম বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের আশেকপুর নামে ছোট্ট একটা গ্রামের কুঁড়ে ঘরে। পড়াশোনাও করেন টাঙ্গাইলের স্থানীয় শিবনাথ হাইস্কুলে। এখন তাদের সবকিছুই কলকাতাকেন্দ্রিক।

লকডাউনে ‘ঘরবন্দি’ থেকেও দারুণ উচ্ছ্বসিত জুনিয়র এই জাদুকর। যদিও ‘বন্দি’ শব্দে তীব্র আপত্তি তার। তিনি বলেন, বন্দি থাকা তো দুঃখের। আমরা রয়েছি আনন্দে! কত বছর বাদে, সুন্দর পারিবারিক বন্ধন ফিরে পেয়েছি। মনের নানা জানলা খুঁজে পেয়েছি। কল্পনার জগতে যাদের বিচরণ, তাদের কে করবে বন্দি!

নানা ধরনের জিনিসকে ‘উধাও’ করে দেওয়ার জন্য জুনিয়র পি সি সরকার বেশি বিখ্যাত। শুধু ছোট ছোট জিনিসই নয়, তিনি জনসমক্ষে ভ্যানিস করে দিয়েছেন পুরো একটা ট্রেনকেও! শুধু তাই নয়, তাজমহলও দুই মিনিটের জন্য তিনি গায়েব করে দিয়েছিলেন।

পি.সি.সরকাররের দল ইন্দ্রজাল বেশ কিছু উপকরণ ব্যবহার করে থাকে। এগুলো হলো- ৪৮ টন সরঞ্জাম, ৭৫ জন শিল্পী, ডজন ডজন সেটিংস, ১২ জন জাদু কন্যা, স্বপ্নময় লেজারের আলো ব্যবস্থা, ৪০০টি জরির পোশাক, নিজস্ব অর্কেস্ট্রা দ্বারা মূল গান এবং ৫০ টিরও বেশি বিভ্রমের কৌশল ব্যবহার করে।

নিজের দুর্দান্ত জাদু প্রতিভা ছাড়াও পি সি সরকার জুনিয়র তার অসাধারণ বাচনভঙ্গী দিয়েও লাখো মানুষের হৃদয় জয় করে নিয়েছেন। ১৯৮৯ সালের ‘গিলি গিলি গে’ নামের একটি শিশুতোষ চলচ্চিত্রে পি সি সরকার জুনিয়র দ্বৈত ভূমিকায় অভিনয় করেন। তিনি গল্প লেগেন, কলমের খোঁচায় সৃষ্টি করেন কবিতা।

পি সি সরকার জুনিয়র পরবর্তীকালে এসেছেন রাজনীতিতেও। ২০১৪ সালে ভারতের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাসাত আসন থেকে তাকে মনোনয়ন দেয় বিজেপি। তবে রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে আর তিনি গেরুয়া বসনে ম্যাজিক দেখিয়ে উঠতে পারেননি। 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।