পরীমনি ও রাজ চারদিনের রিমান্ডে

পরীমনি ও রাজ চারদিনের রিমান্ডে
আলোচিত চিত্রনায়ীকা পরীমনি ও পরিচালক নজরুল ইসলাম রাজ


সেবা ডেস্ক: রাজধানী ঢাকার বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় ঢালিউডের আলোচিত অভিনেত্রী পরীমনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপু এবং রাজধানীর বনানী থানায় মাদক আইনের মামলায় রাজ মাল্টিমিডিয়া প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার নজরুল ইসলাম রাজ ও সহযোগী সবুজ মিয়ার চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় ঢাকা মহানগর হাকিম মামুনুর রশিদের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।  

সংশ্লিষ্ট আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন রাত ৮ টা ২৪ মিনিটে আসামিদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের সাতদিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী আসামিদের রিমান্ড বাতিল চেয়ে আবেদন করেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ রিমান্ডের পক্ষে শুনানি করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত তাদের চারদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বুধবার পরীমনিকে বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। অভিযানের সময় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিত ছিলেন। রাত ৮টা ১০ মিনিটে পরীমনিকে তার বাসা থেকে একটি সাদা মাইক্রোবাসে র‌্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। ৮টা ৪৫ মিনিটে গাড়ি কুর্মিটোলায় র‌্যাব সদর দফতরে পৌঁছায়। সেখানে রাত ১২টা পর্যন্ত পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে র‌্যাব। পরীমনির বাসায় অভিযানে নতুন মাদক এলএসডি, মদ ও আইস উদ্ধার করা হয়েছে। তার ড্রয়িংরুমের কাভার্ড, শোকেস, ডাইনিংরুম, বেডরুমের সাইড টেবিল ও টয়লেট থেকে বিপুল পরিমাণ মদের বোতল উদ্ধার করা হয়। আজ (বৃহস্পতিবার) বিকেল ৫টা ১২ মিনিটে র‌্যাব সদর দফতর থেকে পরীমনি, রাজ ও তাদের দুই সহযোগীকে কালো একটি মাইক্রোবাসে করে নিয়ে বনানী থানায় রওনা দেয় র‌্যাবের একটি টিম।

এরপর র‍্যাব বাদী হয়ে রাজধানীর বনানী থানায় পরীমনি ও তার সহযোগী বিপুর বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলায় দায়ের করেন৷ 

মামলার সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মাদক সেবন করতেন। এমনকি ভয়ঙ্কর মাদক এলএসডি ও আইসও সেবন করতেন তিনি। এজন্য বাসায় একটি মিনি বার তৈরি করেন। তিনি বাসায় নিয়মিত মদের পার্টির আয়োজন করতেন। আর চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরো অনেকে তার বাসায় অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকের সরবরাহ করতো এবং পার্টিতে অংশ নিতো। পরীমনি ২০১৪ সালে সিনেমা জগতে আসেন। এপর্যন্ত ৩০টি সিনেমা ও ৫ বা ৭টি টিভিসিতে অভিনয় করেছেন। প্রযোজক রাজ তাকে পিরোজপুর থেকে ঢাকায় সিনেমা জগতে নিয়ে আসেন। 

এরপর বুধবার রাজের বনানীর বাসায় র‌্যাব অভিযান চালায়। অভিযান চলে রাত ১০টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত। অভিযানে রাজের বাসা থেকে মাদক ও সিসা সেবনের সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। রাত ১০টার দিকে গণমাধ্যমকর্মীদের সামনে উদ্ধার করা মালপত্র নিয়ে আসা হয়। 

পরে রাজ ও তার সহযোগীকে আটক করে র‌্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা ১২ মিনিটে র‌্যাব সদর দফতর থেকে পরীমনি, রাজ ও তাদের দুই সহযোগীকে কালো একটি মাইক্রোবাসে করে নিয়ে বনানী থানায় রওনা দেয় র‌্যাবের একটি টিম। এরপর তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে র‍্যাব। 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।