গবেষণা বলছে, বহুমূত্র নিয়ন্ত্রণে রাখবে রসুন

গবেষণা বলছে, বহুমূত্র নিয়ন্ত্রণে রাখবে রসুন



সেবা ডেস্ক: আমাদের রোজগার খাবারের স্বাদ বাড়াতে রসুনের তুলনা হয়না। তবে কেবল খাবারের স্বাদ বাড়াতেই নয়, রসুন মানব শরীরের স্বাস্থ্যের পক্ষেও অনেক উপকারী। 

রসুনে আছে অনেক পুষ্টিগুণ। তাইতো অনেক কঠিন রোগ থেকে মুক্তি দিতে এই ভেষজ উপাদানের বিকল্প নেই।

জানলে অবাক হবেন যে, দৈনিক এক কোয়া রসুন খেলেই ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি মেলে! কারণ এতে আছে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য। 

আরো আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, আয়রন, কপার, খনিজ, পটাসিয়াম এবং ফসফরাস। 

এসব পুষ্টি উপাদান শরীরকে ভেতর থেকে পুষ্টি জোগায়। 

আয়রন রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, ক্যালসিয়াম হাড়কে শক্তিশালী করে। 

একই সঙ্গে কপার এবং পটাসিয়াম স্বাস্থ্য ভালো রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।


রসুন যেভাবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আনে

ডায়াবেটিস রোগীর প্রধান সমস্যা হলো, রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যাওয়া বা খুব কমে যাওয়া। রসুন এ সমস্যা সমাধানে কাজ করতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে রসুন।

এছাড়াও রসুনে ক্যালোরি অনেক কম থাকে। তাছাড়া কার্বোহাইড্রেট বা শর্করার পরিমাণও কম। ফলে ডায়াবেটিস রোগীরা রসুন নিশ্চিন্তে খেতে পারেন। এতে ডায়াবেটিসও থাকবে নিয়ন্ত্রণে; আবার শরীরেও মিলবে অনেক পুষ্টি উপাদান।


গবেষণা যা বলছে

২০০৬ সালের এক গবেষণায় দেখা গেছে, কাঁচা রসুন রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। পাশাপাশি এথেরোস্ক্লেরোসিসের ঝুঁকিও কমাতে পারে।

২০১৪ সালের আরেক গবেষণা অনুসারে, নিয়মিত রসুন খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা কমে। রসুনে ভিটামিন বি ৬ এবং ভিটামিন সি এর ভালো উৎস।

ভিটামিন বি ৬ কার্বোহাইড্রেট বিপাকের সঙ্গে জড়িত। অন্যদিকে ভিটামিন সি রক্তে শর্করার মাত্রা বজায় রাখতে ভূমিকা রাখে।

মরিশাস জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা যায়, উচ্চ রক্তচাপের রোগীরা ১২ সপ্তাহ রসুন খাওয়ার পর; তাদের রক্তচাপ গড়ে ১০ পয়েন্ট কমে আসে।

ডায়াবেটিস রোগীরা যেভাবে রসুন খাবেন

কাঁচা রসুন খেলে শরীরে বেশি পুষ্টি মেলে। সালাদের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে পারেন রসুন কুচি। এছাড়া তরকারিতে রসুন দিয়ে রান্না করেও খেতে পারেন। আবার কয়েকটি রসুনের কোয়া থেঁতলে বা কুচি করে পানিতে ফুটিয়ে চায়ের মতো পান করতে পারেন।


রসুনের আরো কিছু উপকারিতা

  1.  রসুন খেলে টিউমারের প্রভাব এড়ানো যায়।
  2.  এটি ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি রোধেও সহায়ক।
  3.  রসুন কোলেস্টেরল, ট্রাইগ্লিসারাইড এবং রক্তের লিপিডের মাত্রা কমিয়ে হৃদয়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে।
  4. রসুনের অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য ভাইরাল বিভিন্ন ধরনের রোগের ঝুঁকি কমায়।
  5. রক্তচাপ কমাতেও রসুন সহায়ক। এজন্য বিশেষজ্ঞরা উচ্চ কোলেস্টেরল এবং উচ্চ রক্তচাপ কমাতে রসুন খাওয়ার পরামর্শ দেন।
  6. রসুনে থাকা নানা ধরনের জৈব সক্রিয় যৌগ শরীরকে নানা রোগ থেকে রক্ষা করে। যেমন- হৃদরোগ ও চর্মরোগের ঝুঁকি কমায় রসুন। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।