সুইজারল্যান্ড থেকে ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা অনুদান পাবে বাংলাদেশ

সুইজারল্যান্ড থেকে ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা অনুদান পাবে বাংলাদেশ



সেবা ডেস্ক: আগামী বছরে বাংলাদেশকে ১১ বিলিয়ন টাকা বা প্রায় হাজা’র ১০০ কোটি টাকা অনুদান দেবে সুইজা’রল্যান্ড। সুইস এজেন্সি ফ’র ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কোঅপারেশনে’র (এসডিসি) মাধ্যমে এই অর্থ সহায়তা দেবে দেশটি। 

বাংলাদে’র জন্যউন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচিপ্রকাশ অনুষ্ঠানে তথ্য জানানো হয়। ২০২২-২৫ সালে’র মধ্যে কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

রাজধানী’র একটি হোটেলে বুধবা’র প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে’র (ইআ’রডি) অতিরিক্ত সচিব উত্তম কুমা’র কর্মকা’র। সময় বাংলাদেশ সফ’র’রত এসডিসি’র মহাপরিচালক প্যাট্রিসিয়া ড্যানজি সহযোগিতা কর্মসূচি উপস্থাপন করেন। বক্তব্য দেন- সুইজা’রল্যান্ডে’র রাষ্ট্রদূত নাথিল চুয়ার্ড, ডেপুটি হেড অব মিশন সুজানি মুইলা’র প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে কর্মসূচি উপস্থাপনে’র সময় বলা হয়, সুইজা’রল্যান্ডে’র বৈদেশিক অগ্রাধিকা’র এবং আন্তর্জাতিক সহযোগিতা কৌশলে’র আঙ্গিকে নতুন এই সহযোগিতা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। 

একইসঙ্গে বৈশ্বিক এজেন্ডা এসডিজি-২০৩০, অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনাসহ বাংলাদেশে’র বিভিন্ন উন্নয়ন অগ্রাধিকারে’র সঙ্গে এটি সামঞ্জস্যপূর্ণ। 

এই কর্মসূচিতে প্রধান তিনটি লক্ষ্য সামনে রাখা হয়েছে। এগুলো হলো- বাংলাদেশে’র স্থিতিশীল এলডিসি উত্ত’রণে সহায়তা করা। এছাড়া সমৃদ্ধ, ন্যয়সঙ্গত সহনশীল একটি সমাজ গঠনে উৎসাহিত করা এবং শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানে ভূমিকা রাখা।

প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সুইজা’রল্যান্ডে’র বন্ধুত্বে’র ৫০ বছরে’র বন্ধন আ’রও শক্ত হয়েছে। 

দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আ’রও শক্তিশালী হচ্ছে। স্বাধীনতা’র প’র বাংলাদেশে’র শুরু থেকেই সুইজা’রল্যান্ড আমাদে’র অন্যতম সহযোগী। 

বাংলাদেশ স’রকা’র দেশে’র জনগণে’র জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে করে যাচ্ছে। দরিদ্রদে’র সীমারেখা থেকে টেনে তুলতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে স’রকা’র। তবে দেশে’র বৈষম্য যে নেই সেটি বলা যাবে না। কিন্তু সেটি দূ’র ক’রতে কাজ হচ্ছে।

তিনি বলেন, স’রকা’র গ্রামীণ উন্নয়নে ব্যাপক বিনিয়োগ ক’রছে। কেননা গ্রামেই বেশি’রভাগ গরিব মানুষে’র বাস। সারা দেশে বিশুদ্ধ পানি, স্যানিটেশন দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত ক’রতে কমিউনিটি ক্লিনিক কাজ ক’রছে। সেখান থেকে বিভিন্ন ওষুধ বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে। 

প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছেন গ্রামে’র মানুষ। বর্তমানে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, দারিদ্র্যনি’রসন, নারী শিশু উন্নয়ন সংক্রান্ত প্রকল্পগুলোকে বিশেষ অগ্রাধিকা’র দেওয়া হচ্ছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী আ’রও বলেন, দুর্নীতি যে নেই তা বলব না। কিন্তু দুর্নীতি নি’রসনে’র প্রচেষ্টা আছে। নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জনগণকে সচেতন করা হচ্ছে। আশা ক’রছি পরিবর্তন আসবে।

উত্তম কুমা’র কর্র্মকা’র বলেন, বাংলাদেশে’র কারিগরি শিক্ষায় ব্যাপক সহযোগিতা প্রয়োজন। বাংলাদেশে’র এলডিসি থেকে উত্ত’রণ ঘটছে। এমন অবস্থায় সুইজা’রল্যান্ডে’র সহায়তা ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। কর্মসূচিতে রোহিঙ্গা কক্সবাজারে’র স্থায়ীয় জনগণে’র জন্য সহায়তা দেওয়া হবে। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

প্যাট্রিসিয়া ড্যানজি বলেন, বাংলাদেশ কোভিড-১৯ মহামারি’র চ্যালেঞ্জিং সময় পা’র ক’রছে। কক্সবাজারে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গাদে’র জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। 

সেখানে স্থানীয় জনগণও সুবিধা পাচ্ছেন। বাংলাদেশে’র টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, শোভন কর্মসংস্থান, জলবায়ু পরিবর্তনে’র প্রভাব মোকাবিলা, বৈষম্য কমানো-সুশাসন এবং জেন্ডা’র সমতাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কাজ ক’রছে সুইজা’রল্যান্ড। এসব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।