জো বাইডেনের ‘হ্যালো’র জবাবে ব্যালিস্টিক মিসাইল ছুড়লেন কিম!

জো বাইডেনের ‘হ্যালো’র জবাবে ব্যালিস্টিক মিসাইল ছুড়লেন কিম!



: দক্ষিণ কোরিয়া সফরে গিয়ে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনকে ‘হ্যালো’ বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এবার ব্যালিস্টিক মিসাইল ছুঁড়েই যেনো ওই ‘হ্যালো’র জবাব দিলেন কিম জং।


বুধবার (২৫ মে) স্থানীয় সময় সকালে উত্তর কোরিয়া ওই তিনটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনী। পিয়ংইয়ংয়ের সুনান এলাকা থেকে এক ঘণ্টারও কম সময়ে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ছুড়েছে দেশটি।

 

জাপান সরকারও বলেছে, কমপক্ষে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া। সামনে আরও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানো হতে পারে বলে আভাস দিয়েছে দেশটি।


জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুয়ো কিশি বলেন, প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রায় ৩০০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে পড়েছে। এটি প্রায় সাড়ে ৫০০ কিলোমিটার উঁচু দিয়ে উড়ে যায়। আর দ্বিতীয় ক্ষেপণাস্ত্রটি ৫০ কিলোমিটার উঁচুতে উঠে ৭৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেছে।


ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার সমালোচনা করেছেন কিশি। একে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। কিশি আরও বলেন, ‘এ ধরনের কর্মকাণ্ডের কারণে জাপান ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের শান্তি, স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা হুমকিতে পড়তে পারে।’


ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার পর এক বৈঠকে এ পরীক্ষাকে বিশাল উসকানি বলে উল্লেখ করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ।


দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানে পাঁচ দিনের সফর শেষে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আর এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া।


যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা আগেই আভাস দিয়েছিলেন বাইডেনের সফরের সময়ে উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে।


সিউল সফরে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়ুন সুক ইওলের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বাইডেন। দুই দেশের মধ্যে বড় আকারে সামরিক মহড়া পরিচালনা এবং উত্তর কোরিয়ার অস্ত্র পরীক্ষা ঠেকাতে প্রয়োজনে আরো বেশি করে সামরিক সরঞ্জাম মোতায়েনের ব্যাপারেও সম্মত হন দুই নেতা।


চলতি বছর এ পর্যন্ত ১৬ বার ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া। এর আগে বাইডেনের পূর্বসুরি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ২০১৭ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে কিমের সঙ্গে তিনবার সরাসরি আলোচনায় বসেন। ওইসব আলোচনায় উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র ধ্বংসের ব্যাপারে কিম আন্তরিকতা দেখালেও শেষ পর্যন্ত ওই সংলাপ ব্যর্থ হয়। তখন থেকে উত্তর কোরিয়া তার ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি জোরদার করেছে এবং যুক্তরাষ্ট্রও দফায় দফায় দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা জোরদার করেছে।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।