‘ইসমে আজম’ আমল কী? কেন এই আমল ও কোথায় আছে?

‘ইসমে আজম’ আমল কী কেন এই আমল ও কোথায় আছে



: মানুষ প্রায়ই এমন কিছু সময়ের মুখোমুখি হয়, যখন কোনো উপায় খুঁজে পাওয়া যায় না। তখন মানুষের পিঠ দেয়ালে ঠেকে যায়। সে সময়টিতে নিজেদের কার্যসিদ্ধির উদ্দেশ্যে মনের প্রত্যাশা পূরণে আল্লাহর স্মরণাপন্ন হওয়া ছাড়া বিকল্প কোনো উপায় থাকে না। এমনই একটি আমলের কথা তুলে ধরেছেন আমাদের প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। তাহলো ‘ইসমে আজম’ এর আমল। 


“ইসমে আজম” আমল কী? 

'ইসম' শব্দের অর্থ নাম আর 'আজম' শব্দের অর্থ মহান বা শ্রেষ্ঠ। আল্লাহ তাআলার অনেক নাম রয়েছে। এসব নামের মধ্যে যে নামগুলো দিয়ে আল্লাহ সুবহানাহু তাআলার বড়ত্ব ও শ্রেষ্ঠত্ব সবচেয়ে বেশি প্রকাশিত হয়, সেই নামগুলোকে 'ইসমে আজম' বলা হয়। অর্থাৎ ইসমে আজম অর্থ আল্লাহর নামসমূহের মধ্যে শ্রেষ্ঠ নামগুলো।


“ইসমে আজম” এর ফজিলত

বিভিন্ন হাদিসে আল্লাহ তাআলার কিছু গুণবাচক নামকে ‘ইসমে আজম’ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে ইসমে আজমের ফজিলতও বর্ণনা করা হয়েছে। হজরত আনাস (রা.) সূত্রে বর্ণিত : একবার রাসুল (সা.) মসজিদে প্রবেশ করেছেন। এমতাবস্থায় এক লোক নামাজ শেষে এ দোয়া করছিলেন, ‘আল্লাহুম্মা লা-ইলাহা ইল্লা আংতার মান্নাম, বাদিয়ুস সামাওয়াতি ওয়াল আরদি ইয়া জাল জালালি ওয়াল ইকরাম।’ তখন রাসুল (সা.) তাকে বললেন, ‘তুমি জানো, তুমি কি দিয়ে দোয়া করেছ? তুমি দোয়া করেছ ইসমে আজম দিয়ে, যা দ্বারা দোয়া করলে আল্লাহ কবুল করেন এবং তা দ্বারা কিছু চাইলে আল্লাহ তা প্রদান করেন।’ (সুনানে তিরমিজি : ৩৫৪৪)


“ইসমে আজম” নামসমূহ

আসলে আল্লাহর সব নামগুলোর মধ্যে কোন নামগুলো ইসমে আজম তা কোথাও উল্লেখ নেই। তাই সুস্পষ্টভাবে বলা মুশকিল ইসমে আজম কোনগুলো। তবে আলেমদের মধ্যে ইসমে আজম নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত রয়েছে। 


হযরত  আবদুল কাদের জিলানি (রহ.) বলেন, ‘‘ইসমুল আজম’ হলো ‘আল্লাহ’ শব্দ। তবে শর্ত হলো তা পূর্ণ একাগ্রতা ও এখলাসের সঙ্গে বলতে হবে’’। (মিরকাতুল মাফাতিহ, ১/৬)


আসমা বিনতে ইয়াজিদ সূত্রে বর্ণিত আছে, রাসূল (স) ইরশাদ করেন, ইসমে আজম সুরা বাকারার ১৬৩ নম্বর আয়াত ও সুরা আল ইমরানের ১-৩ নম্বর আয়াত মধ্যে নিহিত। (সুনানে আবু দাউদ : ১৪৯৬)


“ইসমে আজম” দোয়া

اللَّهُمَّ إِنِّي أَسْأَلُكَ بِأَنِّي أَشْهَدُ أَنَّكَ أَنْتَ اللَّهُ لَا إِلَهَ إِلَّا أَنْتَ الْأَحَدُ الصَّمَدُ الَّذِي لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ وَلَمْ يَكُنْ لَهُ كُفُوًا أَحَدٌ

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নী আস আলুকা, বিআন্নী আশহাদু আন্নাকা আংতাল্লাহ, লা-ইলাহা ইল্লা আংতাল আ'হাদুস সামাদ, আল্লাজী লাম ইয়ালিদ ওয়া লাম ইউলাদ ওয়ালাম ইয়া কুল্লাহূ কুফুওয়ান আ'হাদ।


অর্থাৎ, হে আল্লাহ! নিশ্চয় আমি আপনার নিকট প্রার্থনা করছি। নিশ্চয় আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, আপনিই আল্লাহ। আপনি ছাড়া কোনো উপাস্য নেই, যিনি একক, অমুখাপেক্ষী যিনি কাউকে জন্ম দেন নি, তার থেকে কেউ জন্ম নেন নি এবং তাঁর সমকক্ষ কেউ নেই।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।