পুলিশ একাডেমিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পুরস্কৃত করা হয় পুলিশ সুপারদের
পুলিশ একাডেমিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পুরস্কৃত করা হয় পুলিশ সুপারদের

পুলিশ একাডেমিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পুরস্কৃত করা হয় পুলিশ সুপারদের

সেবা ডেস্ক: বাংলাদেশ পুলিশ দেশের শান্তি, নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার প্রতীক। অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা প্রদান, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও মানবাধিকার রক্ষায় পুলিশের প্রতিটি সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৬ মে সরকারি সফরে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি সারদা রাজশাহীতে গিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি বিশেষ হেলিকপ্টারে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার সারদায় পৌঁছান। অনুষ্ঠান শেষে বিকালে রাজশাহী থেকে ঢাকায় ফিরেন তিনি।

সারদায় প্রধানমন্ত্রী সহকারী পুলিশ সুপারদের (এএসপি) শিক্ষা সমপানী কুচকাওয়াজ পরিদর্শন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেছেন। তিনি ৩৫ তম বিসিএসের নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে অনুপ্রেরণামূলক ও দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক। আমাদের পুলিশ স্বাধীন দেশের পুলিশ বাহিনী। কাজেই তাদের প্রতিটি ক্ষেত্রে দায়িত্ববান হতে হবে’। পুলিশবাহিনীকে নতুন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, প্রযুক্তির উন্নয়নের পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী অপরাধের ধরন দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে। বিশেষ করে সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে দক্ষ হতে হবে।



পরে বাংলাদেশের স্বার্বভৌমত্ব, সংবিধান ও দেশের জন্য জীবন উৎসর্গ করা, সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের অঙ্গীকার করে শপথ নেয় পুলিশের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করা পুলিশ সদস্যরা। তারা স্ব স্ব ধর্মগ্রন্থ ছুঁয়েও শপথ নেয়। এ সময় প্রশিক্ষণে বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের জন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে পদকও তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।



এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ নেতারাসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এসময় প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর অপরিসীম অবদানের কথা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। দেশে জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের বীরত্ব এবং সাফল্য সারা বিশ্বের কাছে প্রশংসিত বিষয়। হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁ, শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান, কল্যাণপুর, নারায়ণগঞ্জ, পল্লবী, আজিমপুর ও গাজীপুরে জঙ্গি দমনে পুলিশের বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বাংলাদেশ পুলিশ। পারিবারিক ও সামাজিক গণ্ডি পেরিয়ে ‘বাংলাদেশ নারী পুলিশ’ জাতিসংঘ মিশনে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। শুধু আইন পালন আর অপরাধ প্রতিরোধ বা দমনই নয়, দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে বাংলাদেশ পুলিশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।



আন্তর্জাতিক মিশনে কাজ করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে বাংলাদেশ পুলিশ। আমরা আশা করছি বাংলাদেশ পুলিশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে এবং অবদান রাখবে দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে।