আসছে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী নিয়োগের কোন বিধান নেই

আসছে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী নিয়োগের কোন বিধান নেই

ডাঃ জি এম ক্যাপ্টেন, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা বাহিনী নিয়োগের কোন বিধান নেই। বলা আছে আইন শৃংখলা বাহিনী সেখানে থাকবে। আইন শৃংখলা বাহিনী বলতে বুঝায় পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি। সেনা বাহিনী প্রতিরক্ষা বাহিনী। সুতরাং নির্বাচনে সেনা বাহিনী নিয়োগের কোন সম্ভাবনা আমি দেখছি না।

তিনি আরো বলেন, আগামী নির্বাচন হবে একদিক মুক্তিযুদ্ধের শক্তি অন্যদিকে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তি। আমি বিশ্বাস করি মুক্তিযুদ্ধের চেতনার শক্তিকেই জনগণ বিজয়ী করবে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে তিনি আরো বলেন, ২০দলীয় জোট যদি নির্বাচনে আসে তাহলে নির্বাচন এক ধরনের হবে। আর ২০ দলীয় জোট যদি নির্বাচনে না আসে সেক্ষেত্রে হয়তো ভিন্ন ভিন্ন নির্বাচন হবে, যে যার মতো অংশ গ্রহন করতে পারে। সেটা তাদের দলীয় সিদ্ধান্তে হবে।

৯ জুন শনিবার দুপুরে কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় সোনাহাট স্থল বন্দরের পুর্ণাঙ্গ কার্যক্রমের উদ্বোধন কালে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। এসময় তিনি বলেন, অবিলম্বে নদী খনন ও চিলমারী বন্দর চালু করা হবে।

সোনাহাট স্থল বন্দরে ১০টি ভারতীয় পন্য আমদানীর পাশাপাশি ভারতের সাথে আলোচনার মাধ্যমে ইমিগ্রেশন চালু করা হবে বলেও জানান তিনি।

৪০ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত সোনাহাট স্থল বন্দরের অবকাঠামো উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী সেখানেই স্থানীয় সুধি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। এসময় বাংলাদেশ স্থল বন্দর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার চক্রবর্তী, বিআইডব্লিউটি এর চেয়ারম্যান কমডোর মোজাম্মেল হক, কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: জাফর আলী, জেলা প্রশাসক মোছা: সুলতানা পারভীন, পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম, শিল্পপতি দেশবন্ধু গ্রুপের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফাসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী পরে চিলমারী নৌ বন্দর পরিদর্শন করেন। উল্লেখ্য ২০১২ সালের ১৭ নভেম্বর সোনাহাট স্থল বন্দরের ভিত্তি প্রস্থ স্থাপন করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। পরে ২০১৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর বন্দরের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ১৪ দশমিক ৬৮ একর জমির উপর ৬০ মেট্রিক টন ধারন ক্ষমতার একটি ওয়ার হাউজ, ৯৬ হাজার বর্গফুট আয়োতনের পার্কিং ইয়ার্ড, ৮৫ হাজার বর্গফুল আয়তনের ওপেন স্ট্যাক ইয়ার্ড, শ্রমিকদের জন দুইটি বিশ্রামাগার, একটি প্রশাসনিক ভবন, সিকিউরিটি ব্যারাক, ডরমেটরি ভবনসহ অন্যান্য অব কাঠামো নির্মাণে মোট ৩৯ কোটি ৪৩ লাখ ২৬ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।

সোনাহাট স্থল বন্দরের সঙ্গে ভারতের এলসি স্টেশন গোলকগঞ্জ, ধুবরী, আসাম থেকে ১০টি পন্য চুক্তির ভিত্তিতে আমদানী হয়ে আসছে।




,
themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে