গাইবান্ধায় দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার

গাইবান্ধায় দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটী ইউনিয়নের চকমামরোজপুর গ্রামে প্রতিবেশী নুরুন্নবী (৬০) নামে এক ব্যক্তির দ্বারা রবিদাস সম্প্রদায়ের দুই শিশু (বেবী ও জয়া) যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ওই দুই শিশু সম্পর্কে ফুপু ও ভাতিজি। এই ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এই ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার (২৫ অক্টোবর) ভোরে গাইবান্ধা সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
শিশু দুইটি খোলাহাটী ইউনিয়নের বড়ঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী।

শিশু দুইটির পরিবার ও স্থানীয়দের অভিযোগ, খোলাহাটী ইউনিয়নের চকমামরোজপুর গ্রামে নুরুন্নবীর একটি ঘরের অর্ধেক অংশে মনুহরী দোকান করেন। বাকি অংশে তিনি বসবাস করেন। বুধবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে শিশু দুইটি (জম্বু রবিদাসের মেয়ে জয়া ও বাচ্চু রবিদাসের মেয়ে বেবী) নুরুন্নবীর দোকানের সামনে খেলছিল।

এসময় নুরুন্নবী তার ঘর ঝারু দেওয়ার কথা বলে শিশু দুইটিকে ঘরে ডেকে নেয়। পরে দোকান বন্ধ করে শিশু দুইটির প্যান্ট খুলে মেঝেতে পাটি পেরে তাদের উপর যৌন নির্যাতন চালায়। শিশু দুইটি চিৎকার করার চেষ্টা করলে তাদের মুখ চেপে ধরে ও ভয়ভীতি দেখায় নুরুন্নবী।

শিশু দুইটির বাবা (জম্বু ও বাচ্চু রবিদাস) বলেন, আমরা শহরে কাজে ছিলাম। খবর পেয়ে বাড়িতে এসে দেখি আমাদের মেয়েরা অসুস্থ্য। প্রতিবেশী নুরুন্নবীর বাড়িতে গিয়ে দেখি তার দোকানে তালা এবং বাড়িতে তিনি নাই। পরে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের বিষয়টি জানাই। তারা ইউপি সদস্যকে ঘটনাটি জানায়।

খোলাহাটী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য আশরাফুল ইসলাম লুজু বলেন, আমি ঘটনা শুনে তাৎক্ষনিক শিশু দুইটিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠাই। নুরুন্নবীর ছেলে জহিরসহ দুই শিশুকে রাত ৮টার দিকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু নুরুন্নবীর ছেলে জহির মিয়া ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য কৌশলে শিশু দুইটিকে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতাল থেকে বের করে এসকেএস হাসপাতালে নিয়ে যায়।

জহির ঘটনা মিমাংসার কথা বলে সেখান থেকে তাদের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় শিশু দুইটির বাবা স্থানীয় জনগণ ও সংবাদ কর্মীদের সহযোগিতায় আবারও শিশু দুইটিকে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়।

গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. শাহীন আলম বলেন, যৌন নির্যাতনের শিকার শিশু দুইটিকে হাতপাতালে নিবির চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তারা অনেকটা সুস্থ্য।

সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুজন প্রসাদ বলেন, এ ঘটনা শুনে আমরা হাসপাতালে শিশু দুইটিকে দেখতে যাই। তিনি বলেন, আমরা এই ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি করি।

গাইবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) খান মোঃ শাহরিয়ার বলেন, এই ঘটনায় থানায় দিলীপ রবিদাস (বাচ্চু রবিদাসের ভাই) বাদি হয়ে নুরুন্নবীসহ দুইজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছে। তিনি আরও বলেন, রাত থেকে আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। আজ বৃহস্পতিবার ভুক্তভোগিদের (ভিকটিম) ডাক্তারী পরীক্ষা করা হবে।


⇘সংবাদদাতা: গাইবান্ধা প্রতিনিধি

, , , , ,

0 comments

Comments Please

themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে