জামালপুর-২ আসনে সুবিধাজনক আওয়ামীলীগ বেকায়দায় বিএনপি লবিংয়ে জাপা

জামালপুর-২ আসনে সুবিধাজনক আওয়ামীলীগ বেকায়দায় বিএনপি লবিংয়ে জাপা
লিয়াকত হোসাইন লায়ন,জামালপুর প্রতিনিধি ॥ জামালপুর-২ ইসলামপুর আসনে বরাবরের মত আওয়ামীলীগ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। দুই দুই বারের এমপি আলহাজ্ব ফরিদূল হক খান দুলাল এবারো দলীয় মনোনয়ন পেয়ে মাঠে মাঠে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। অন্যদিকে বিএনপি ৩জন প্রার্থী থাকায় বেকায়দায় রয়েছেন। এছাড়াও জাতীয় পার্টি (এরশাদ) এর মনোনীত প্রার্থী শেষ মূহুর্তে এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হতে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন।

নির্বাচন অফিসসূত্রে জানাযায়, ২রা ডিসেম্বর মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাইয়ে জামাপুর-২ আসনের ৭ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়।

প্রার্থীরা হলেন- সংসদ সদস্য মো. ফরিদুল হক খান দুলাল (আ.লীগ), সাবেক সংসদ সদস্য এ. ই. সুলতান মাহমুদ বাবু (বিএনপি), সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব এ এস এম আব্দুল হালিম (বিএনপি), মো. মনোয়ার হোসেন (বিএনপি) মোস্তফা আল মাহমুদ (জাপা-এরশাদ), মনজুরুল আহসান খান (সিপিবি) এবং হাফেজ মো. মিনহাজ উদ্দিন (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)। এসব প্রার্থীদের মধ্যে এ আসনে ভোট যোদ্ধ হবে নৌকা এবং ধানের।

জানা গেছে,আওয়ামীলীগের ঘাটি বলে খ্যাত এ আসনের আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনীত একক প্রার্থী দুইবারের সংসদ সদস্য ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ফরিদুল হক খান দুলাল ব্যপক উন্নয়ন মূলক কাজ করায় তৃণমূলে আবারো তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছে সাধারন মানুষ। স্বাধীনতার পর ৮বার এই আসন থেকে আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হয়ে বিগত দিনে এই আসনে বাংলাদেশ সরকার মন্ত্রীও দিয়েছিল। উন্নয়নের দিক থেকে আওয়ামী লীগ সুবিধাজনক অবস্থা রয়েছেন।

আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী থাকায় দলে সম সাময়িকের জন্য বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছিল। শত জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নৌকা যার আমরা তার নীতিতে ইসলামপুরের আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চুড়ান্ত হওয়ার পর গত (১ ডিসেম্বর) শনিবার উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় প্রার্থী শাজাহান আলী মন্ডল,জিয়াউল হক জিয়া.মঞ্জরুল মোর্শদ হ্যাপী,সহ ১১জন সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী ও সমর্থকরা শেখ হাসিনার দলীয় মনোনীত প্রার্থী তথা নৌকার পক্ষে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

ফলে আওয়ামীলীগের ঘাটি বলে খ্যাত ইসলামপুরের আসনটি উন্নয়ন কর্মকান্ডের কর্মবীর আলহাজ্ব ফরিদুল হক খান দুলাল তৃতীয় বারে মতো এমপি হয়ে আসনটি জন নেত্রী শেখ হাসিনা কে উপহার দিতে দিন রাত নির্বাচনী মাঠ প্রস্তুতের কাজ করে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে বিএনপি’র বৈধ মনোনয়ন পত্রে তিন প্রার্থী নিয়ে বেকায়দায় রয়েছেন। স্থানীয় বিএনপির নেতা কর্মীরা বৈধ মনোনিত প্রার্থীদের মধ্যে কে হচ্ছেন বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী এ প্রশ্ন সাধারণ ভোটারের মধ্যে।

বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক এমপি সুলতান মাহমুদ বাবু দলীয় মনোনয়ন চুড়ান্ত হলে এ আসনের মহাজোট তথা আওয়ামীলীগের হেভিওয়েট প্রার্থীর সাথে নির্বাচনী হাড্ডাহাড্ডি হবে বলে অনেকে মনে করছেন।

এছাড়াও মহাজোটের মনোনয়ন না পেলেও জাতীয় পার্টি (এরশাদ) এর মনোনীত প্রার্থী মহাজোটের আসনটি কব্জা করতে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক মোস্তাফা আল মাহমুদ।
⇘সংবাদদাতা: লিয়াকত হোসাইন লায়ন

, , ,

0 comments

Comments Please

themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে