টাঙ্গাইলে বিএনপির স্বপনসহ ১৪ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

টাঙ্গাইলে বিএনপির স্বপনসহ ১৪ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

আরিফ উর রহমান টগর, টাঙ্গাইল: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের ৮ সংসদীয় আসনের ১৪টি মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়েছে। 

ঋণখেলাপির অভিযোগে ঐক্যফ্রন্টের শরিক কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম এর টাঙ্গাইল ৪ (কালিহাত) ও টাঙ্গাইল-৮(সখীপুর-বাসাইল) আসনের প্রার্থীতায় দাখিল করা মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। 

তিনি ঋণখেলাপি থাকায় প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয়নি। এছাড়াও ঋণখেলাপির অভিযোগে টাঙ্গাইল-১ (ধনবাড়ী-মধুপুর) আসনের ঐক্যফ্রন্টের শরিক বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ফকির মাহাবুব আনাম স্বপন ও টাঙ্গাইল ৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনের বিএপির প্রার্থী নুর মোহাম্মদ খানের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে। 

রোববার দুপুরে মনোনয়ন বাচাই ও শুনানী শেষে কাদের সিদ্দিকীসহ ১৪ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন জেলা রিটানিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মোঃ শহিদুল ইসলাম। 

এছাড়া ঋণ খেলাপীর অভিযোগে যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে, টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এনপিপি’র প্রার্থী মোঃ চাঁন মিয়া ও বিএনএফ আতাউর রহমান খান, টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ বাকির আলী ও আবুল কাশেম, টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার)আসনের বিএনএফ প্রার্থী মোঃ সুলতান মাহমুদ ও এনপিপি প্রার্থী মামুনুর রহমান, টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের খেলাফত মজলিস প্রার্থী মজিবর রহমান, টাঙ্গাইল-৮(সখীপুর-বাসাইল) আসনের জাতীয় পাটি প্রার্থী কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, খেলাফত মজলিস প্রার্থী আব্দুল লতিফ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী শহীদুল ইসলাম। তবে এই আদেশের বিরুদ্ধে কাদের সিদ্দিকীর নির্বাচন কমিশনে আপিল করার সুযোগ রয়েছে। সেখানেও যদি তিনি স্বপক্ষে আদেশ না পেলে উচ্চ আদালতেও যেতে পারবেন বলেও জানা গেছে।

তবে এ মনোনয়নপত্র বাতিলের প্রতিবাদে ঐক্যফ্রন্টের শরিক কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম জানান, যতক্ষণ পর্যন্ত আমার বোন এর সরকার থাকবে আমার মনে হয় সেই পর্যন্ত আমাকে তারা নির্বাচন করতে দেবেন না। 

তবে আমি চাই নির্বাচনটা ভালো হোক। আমার সংগ্রাম হলো ভোটার যেন ভোট দিতে পারে। এখন যে কুশাসন চলছে এ শাসন ভালো না। নির্বাচনে বর্তমান সরকার ২০টা সিট পাবে। যদি আমার দেশপ্রেম সত্য হয়। 

উল্লেখ্য,২০১৪ সালে টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল) আসনের সংসদ সদস্য শওকত মোমেন শাহজাহানের মৃত্যুর পর শূণ্য ওই আসনের উপ-নির্বাচনেও ঋণ খেলাপীর কারণে তার প্রার্থীতা বাতিল হয়। পরবর্তীতে উচ্চ আদালতেও তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছিল। 

একই অভিযোগে ২০১৫ সালের ১৩ অক্টোবর টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের উপ-নির্বাচনেও কাদের সিদ্দিকী ও তাঁর স্ত্রী নাসরিন কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছিল। তৎকালীন সময়ে ওই মনোনয়ন বাতিল প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশন জানায়, সোনার বাংলা প্রকৌশলী সংস্থার নামে অগ্রণী ব্যাংকে ১০ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে। কাদের সিদ্দিকী ওই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান আর তার স্ত্রী নাসরিন কাদের সিদ্দিকী পরিচালক।
⇘সংবাদদাতা: আরিফ উর রহমান টগর

, , , , ,

0 comments

Comments Please

themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে