রাজধানীর সড়কে ভোগান্তি কমাতে আইটিএস

রাজধানীর সড়কে ভোগান্তি কমাতে আইটিএস
সেবা ডেস্ক: রাজধানী ঢাকার যানজট নিরসন ও সড়ক ব্যবস্থার আধুনিকায়নের জন্যে বর্তমান সরকারের উদ্যোগে রাজধানী শহর ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থা আধুনিকায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ জন্য ঢাকার বিভিন্ন সড়কের সিগন্যালে অচিরেই পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হচ্ছে ইন্টেলিজেন্ট ট্রাফিক সিস্টেম (আইটিএস)। রাজধানী ঢাকার প্রধান ও ব্যস্ত সড়কসমূহে সংকেত ব্যবস্থায় নতুন এ পদ্ধতি চালু করতে কাজ করছে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) । এতে বদলে যাবে ঢাকার প্রধান ও ব্যস্ত সড়কগুলোর ট্রাফিক ব্যবস্থা।

ডিটিসিএর একটি সূত্র জানায়, ইন্টেলিজেন্ট ট্রাফিক সিস্টেমে সিসি ক্যামেরা বা রাস্তায় বসানো গাড়ি শনাক্তকরণ যন্ত্রের মাধ্যমে গাড়ির সংখ্যা হিসাব করা যাবে। যে লেনে চাপ বেশি থাকে সেদিকের গাড়িগুলোর জন্য জ্বলে উঠবে সবুজ বাতি। কোনো গাড়ি ট্রাফিক আইন অমান্য করলে সহজেই সেটি শনাক্ত করা যাবে। ঢাকার প্রধান প্রধান সড়কগুলোর যানজট নিরসনেও গুরুত্ববহ ভুমিকা পালন করবে এ ব্যবস্থা। এ ব্যবস্থায় রাজধানীর সড়কগুলোতে সড়ক দুর্ঘটনার পরিমাণ উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পাবে। এ ছাড়া পথচারীদের সংখ্যা হিসাব করে সে অনুযায়ী পথচারী পারাপারের সঙ্কেত দেবে আইটিএস। আর এর সবকিছু নিয়ন্ত্রিত হবে ট্রাফিক কন্ট্রোল রুম থেকে। আইটিএস পদ্ধতির সিসি ক্যামেরাগুলো ৩০০ মিটার এলাকার যানবাহনের হিসাব রাখতে সক্ষম হবে। এ প্রকল্প সফল হলে রাজধানীর সব গুরুত্বপূর্ণ সিগন্যালে এ ব্যবস্থা চালু করা হবে।

প্রথমিকভাবে রাজধানীর চারটি গুরুত্বপূর্ণ সিগন্যালে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হচ্ছে ইন্টেলিজেন্ট ট্রাফিক সিস্টেম (আইটিএস) । মহাখালী, গুলশান-১, ফুলবাড়িয়া ও পল্টন মোড়ে এটি স্থাপন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ফুলবাড়িয়া, পল্টন, মহাখালী ও গুলশান-১ মোড়ে আইটিএস স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে। সড়কগুলোতে আলাদা লেন নির্মাণ করা হয়েছে। তৈরি করা হয়েছে সড়ক বিভাজকও।

এদিকে ডিজিটাল ট্রাফিক ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে। ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলক হিসেবে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে রামপুরা ট্রাফিক জোন। গত বছর এপ্রিলে প্রাথমিকভাবে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে ডিজিটাল ট্রাফিক ব্যবস্থা চালু হয়।

এ ব্যাপারে ডিএমপির এক কর্মকর্তা বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে, সড়কে নিরাপদ চলাচলে মনিটরিং ও নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে সিসি ক্যামারার এ ডিজিটাল ব্যবস্থাপনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। পর্যায়ক্রমে ঢাকার প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ঢাকাবাসীদের আমরা একটি নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা উপহার দেয়ার স্বার্থে সরকারের উদ্যোগ বাস্তবায়নের জন্যে আমরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

পরিবহন সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, ঢাকার রাস্তায় ইন্টেলিজেন্ট ট্রাফিক সিস্টেম চালু করা হলে ঢাকার সড়কে জনদুর্ভোগ কমে আসবে। যানজট নিয়ন্ত্রণে আসবে এবং সড়ক দুর্ঘটনা ও চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর প্রবণতা কমে আসবে।
⇘সংবাদদাতা: সেবা ডেস্ক

,

0 comments

Comments Please