রৌমারীতে বর্ষার আগেই ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গন শুরু

রৌমারীতে বর্ষার আগেই ব্রহ্মপুত্র  নদের ভাঙ্গন শুরু
শফিকুল ইসলাম,রৌমারী প্রতিনিধি: বর্ষার আগেই গত তিনদিনে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গনে বিলিন হচ্ছে রৌমারী উপজেলার বন্দবের. চরশৌলমারী ও যাদুরচর ইউনিয়নে।

গত সোমবার হতে ৭মে বুধবার পর্যন্ত ব্রম্মপুত্র নদের পানি বৃদ্ধি হওয়ায় ক্ষর¯্রােতে ভাঙ্গনের তান্ডব লক্ষ্য করা যায় ওই এলাকায়। এ সময় নদী গর্ভে বিলিন হচ্ছে ভিটেমাটি, সহায়সম্বল, গাছপালা, পাট, আখ ও ভবিষ্যতস্বপ্ন। নদের তান্ডব ভাঙ্গন লীলায় এলাকাবাসী আতংকোগ্রস্থ হয়ে পড়েছে।

বুধবার (০৭মে) দুপুরে সরেজমিনে উপজেলার বন্দবের ইউনিয়নের বলদমারা, খেদাইমারী গ্রামে গেলে দেখা যায়, ভাঙন কবলিত এলাকাগুলোতে মানুষের আহাজারি। ভাঙন এলাকা বলদমারা, দক্ষিন খেদাইমারী গ্রামের ফুলমালা, জুলহাস আলী, আব্দুল কাদের, জাবের আলী, আশরাফ আলী, আব্দুল আলিম, আমির হামজাসহ অনেকে জানান, গত সোমবার ভোররাত থেকে আচমকা ব্রহ্মপুত্রে ভাঙন দেখা দেয়। অনেকেই ফসলটুকু কেটে নেওয়ারোও সময়টুকুও পাইতেছিনা। এরমধ্যেও ভাঙ্গনে ভেসে গেছে ধান, পাট, কাউন, চিনা, তিল ও তিশি।’

অপরদিকে রৌমারী ৬ টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩ টি ইউনিয়ন চরশৌলমারী, বন্দবেড়, ও ইউনিয়ন যাদুরচর ব্রম্মপুত্র ভাঙ্গনের কবলে। এতে ঘুঘুমারী, ফুলকারচর, খেওয়ারচর, সাহেবের আলগা, খেরুয়ারচর, বাইটকামারী, বাইশপাড়া, বলদমারা, ফলুয়ারচর, পালেরচর, কান্দাপাড়া, দিগলাপাড়া, ধনারচর চরের গ্রাম, চরপাখিউড়াতে তীব্র ভাঙ্গন শুরু হয়েছে।

এদিকে রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্যাহ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার দ্বীপঙ্কর রায়, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদের, সাংবাদিক মতিয়ার রহমান চিশতীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের উপস্থিতিতে গত ৭মে সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে পরিদর্শন কালে ব্রম্মপুত্র নদের ভাঙ্গনে সচিত্র তুলে ধরে পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন দপ্তরে মুঠো ফনে জানান।

এছাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড কুড়িগ্রাম আগামীকাল ৮মে সরেজমিনে পরিদর্শন করবেন এবং তিনি ভাঙ্গন প্রতিরোধে পরিকল্পনারও আশ্বাস দেন। পরিদর্শন কালিন অত্র এলাকার নদী ভাঙ্গনে হুমকির শিকারে নারী পুরুষ তড়িৎ গতিতে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ কল্পে আমাগো বাচান বলে পদক্ষেপ নেয়ার দাবী তুলে ধরেন।


⇘সংবাদদাতা: শফিকুল ইসলাম

,

0 মন্তব্য(গুলি)

Comments Please