ধুনটে নবীন ভোটাররা চান মাদকমুক্ত পরিবেশ

ধুনটে নবীন ভোটাররা চান মাদকমুক্ত পরিবেশ


রফিকুল আলম,ধুনট: তৃতীয় ধাপে বগুড়ার ধুনট পৌরসভা নির্বাচন আগামী ৩০ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে  ৯টি ওয়ার্ডে ৪ জন মেয়র, ১০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। শহর জুড়ে বইছে ভোটের হাওয়া। প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে ভোটযুদ্ধে নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। মূল সড়ক ও অলিগলিতে প্রার্থীদের প্রচারণাও তুঙ্গে। চায়ের আড্ডা থেকে রাজনৈতিক অঙ্গন-সর্বত্র আলোচনায় পৌর নির্বাচন।

আর এই নির্বাচকে ঘিরে নবীন ও তরুণ ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে। তারা  চাচ্ছেন সৎ ও যোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হোক। অন্য ভোটারদের পাশাপাশি প্রার্থীদের বিশেষ নজর তরুণদের দিকে। তরুণ ভোটাররাও প্রার্থীদের কাছে জানাচ্ছেন তাদের চাওয়া-পাওয়া।

নির্বাচিত হয়ে জনগণ ও এলাকার উন্নয়নমুলক কাজের অগ্রগতির আরও প্রসারিত করুক। এবারের নির্বাচনে তাই নতুন ভোটরদের নতুন প্রত্যাশা। নতুন ভোটাররা নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে নিজের প্রথম ভোটের বাস্তবরূপ দিতে চান। তবে জনগণের মূল্যবান ভোটে প্রার্থীরা বিজয়ের পরে এলাকার কতটা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে সেটা নিয়ও হচ্ছে আলোচনা-সমালোচনা।

তরুণ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাদের মূল দাবি মাদকমুক্ত ধুনট পৌরসভা গড়ে তোলা। এ ছাড়া তারা চান শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন ও এলাকার অবকাঠামোগত উন্নয়ন। মাদকের পৃষ্ঠপোষকদের আমরা না বলছি। কারণ তারাই দেশের যুবসমাজকে ধ্বংস করছে। নির্বাচন নিয়ে নতুন ভোটারদের উচ্ছ্বাস যেমন আছে, তেমনি আছে শঙ্কাও। ভোটের দিনের পরিবেশ নিয়ে চিন্তায় আছেন অনেকে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে হালনাগাদ ভোটার সংখ্যা ১১ হাজার ৭১৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ৫হাজার ৬৩৭ জন এবং নারী ৬ হাজার ৭৬ জন। ২০১৫ সালে পৌর নির্বাচনে ভোটার ছিল ৯ হাজার ৯১৬জন। এরমধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৯০৬ জন এবং নারী ৫ হাজার ১০ জন। এই হিসেবে গত ৫ বছরে পৌর এলাকায় ভোটার বেড়েছে ১ হাজার ৭৯৭জন। এরমধ্যে ৯৮ শতাংশ ভোটার কলেজ ও বিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও তরুণ। নির্বাচনে জিততে প্রার্থীদের তরুণ ভোটারের আস্থা অর্জন করতে হবে।

পৌর এলাকার অফিসার পাড়ার নবীন ভোটার মোস্তারি তাবাসসুম শিথিলা বলেন, সংঘাত নয়, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জীবনের প্রথম ভোটটি এলাকার উন্নয়নে যোগ্য একজন প্রার্থীকে দিতে চান। কিন্তু কিছু প্রার্থীর আচরণ দেখে হতাশায় আছি। জীবনের প্রথম ভোটটি এমন কাউকে দিতে চাই না যিনি ক্ষমতায় গিয়ে মাদকের পৃষ্ঠপোষকতা করবেন।

সরকার পাড়ার নতুন ভোটার সবুজ কর, প্রান্ত সরকার মিঠুন দাস ও মৌমিতা রানী সরকার বলেন, নাগরিকদের নিরাপদ ও উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে পারবেন এমন নেতৃত্ব দেখতে চান। এলাকার উন্নয়ন, নারী শিক্ষার জাগরণ ও সম্প্রীতি বজায় রাখবেন এমন প্রার্থীর জয় চান। যিনি পৌরসভায় আধিপত্য বিস্তার না করে জনসেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিবেন।

এছাড়াও একাধিক শিক্ষার্থী নির্বাচন নিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে না চাইলেও তাদের অভিমত সবাই যা চায়, সেটাই চাই। উন্নয়ন চাই, শান্তি থাকুক, নির্বাচিত হতে যাওয়া প্রার্থীদের কাছে এমনই প্রত্যাশা তাদের। এমন একজন পৌর পিতাকে চান যিনি আসলে সৎ, ন্যায় পরায়ন, নীতিবান, আদর্শবান এবং কর্তব্য পরায়ন হবেন।


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Dara Computer Laptops