স্বাবলম্বীর চাবী হাতে নিমাইমারী গ্রামের কোহিনুর ও মরিয়ম

স্বাবলম্বীর চাবী হাতে নিমাইমারী গ্রামের কোহিনুর ও মরিয়ম


মোঃ ফরিদুল ইসলাম ফরিদ, দেওয়ানগঞ্জ প্রতিনিধি: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ১নং ক্লাস্টার সানন্দবাড়ীর আওতাধীন ডাংধরা ইউনিয়নের নিমাইমারী গ্রাম সমিতির সদস্য মরিয়ম বেগম এখন স্বাবলম্বী। তার গরুর খামারে বর্তমানে ৭টি গরু রয়েছে,। অপর দিকে একই গ্রাম সমিতির সদস্য কোহিনুর বেগমের খামারে রয়েছে ৫ টি গরু।  বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি নিমাইমারী গ্রাম সমিতির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করতে এসে খামার দুটি পরিদর্শন করেন এসডিএফ এর জামালপুর জেলা কো-অর্ডিনেটর কৃষ্ণ চন্দ্র ভৌমিক, জেলা কর্মকর্তা (লাইভলীহুড স্পেশালিষ্ট) কৃষিবিদ ইয়াকুব আলী, ক্লাস্টার ফ্যাসিলিটেটর মোঃ গাজিউর রহমান,  স্থানীয় সেবা দান কারী (এলএসপি) পল্লী পশু চিকিৎসক মোঃ ফরিদুল ইসলাম সহ এনজেসিসিএস এর সভাপতি সাজেদা বেগম। এসময় মরিয়ম ও কোহিনুর বেগমের খামারে গরু গুলো ও নেপিয়ার ঘাসের প্লট গুলো দেখা হয়।  
 
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ)। সামাজিক বিনিয়োগ, নারী ক্ষমতায়ন, দারিদ্র বিমোচন, জীবন মান উন্নয়ন ও উৎপাদনকারী দল নিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এসডিএফ)। কোহিনুর বেগম বলেন- আমি একজন গরীব ঘরের মানুষ, ২০০৭ সালে নতুন জীবন দলের সদস্য অন্তর্ভুক্ত হই। গ্রাম সমিতি হতে ৫ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে একটা ছাগল ক্রয় করি, শুরু হয় আমার জীবন পথচলা। কষ্ট করে ছাগল পালন করতে থাকি আর স্বামীর রোজগারের একাংশ দিয়ে ঋণের কিস্তি পরিশোধ করি। ঋণ পরিশোধ হলে ১০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করি, ছাগল বৃদ্ধি করলাম, পর্যায়ক্রমে ছাগল বৃদ্ধি হতে লাগলো। আমরা উৎপাদনকারী দল গঠন করি।  ধাপে ধাপে ঋণ গ্রহণ ও পরিশ্রমের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে গরুর খামার করি। আমাদের এলএসপি ফরিদ ভাই এবং ইউএলও স্যারের কয়েকটি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি। আজ আমার খামারে ৫টি গরু। প্রশিক্ষণ পেয়ে আমি নেপিয়ার ঘাস চাষ করেছি, পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘাস হয়েছে। আমরা যৌথ ভাবে গরুর খাদ্য সহ উপকরণ ক্রয় করি। আমার এখন খুব ভালো লাগতেছে। প্রায় একই রকম কাহিনী শোনালেন মরিয়ম বেগম। জেলা কো-অর্ডিনেটর কৃষ্ণ চন্দ্র ভৌমিক বলেন- এসডিএফ এর লক্ষ ও উদ্দেশ্য হলো, মুলধন দিয়ে বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অবহেলিত এলাকার মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন করা। নিমাইমারী গ্রাম সমিতির কোহিনুর বেগম ও মরিয়ম বেগম এর দৃশ্যমান। নিমাইমারী গ্রাম সমিতির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে আমাদের খুব ভালো লাগলো, আমি নিমাইমারী গ্রাম সমিতির সর্বাঙ্গীণ উন্নতি কামনা করি।

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Dara Computer Laptops