স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নয়, ব্যস্ত থাকেন নিজের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে

স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নয়, ব্যস্ত থাকেন নিজের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে



স্টাফ রিপোর্টার:  নিজের কর্মস্থলে না গিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গিয়ে রোগী দেখেন এক উপসহকারি কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার। নাম আব্দুর রাজ্জাক। 

বর্তমান কর্মস্থল সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার  নিশ্চিন্তপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের চরদোরতা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণকেন্দ্রে।  

সরকারি বিধি মোতাবেক ওই কেন্দ্রে তার সপ্তাহে ছয়দিন দায়িত্ব পালন করার কথা। কিন্তু কালেভদ্্ের তিনি তার কর্মস্থলে যান। 

আর পুরোটা সময় তিনি নিজের প্রতিষ্ঠিত কুড়ালিয়া সিমান্ত বাজারে অবস্থিত আমেনা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী দেখেন। এর ফলে দীর্ঘদিন চরগিরিশ ইউনিয়নের  জনগণ চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। 

সরেজমিনে গত সোমবার ও মঙ্গলবার   চরগিরিশ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে গিয়ে ওই  উপসহকারি মেডিকেল অফিসার আব্দুর রাজ্জাককে পাওয়া যায়নি। সেখানে একজন পিয়নকে বসে থাকতে দেখা গেছে। এসময় সেখানে উপস্থিত নজরুল নামের একজন  জানান, ‘মেলাদিন ধইরা ডাক্তার সাব এহানে আছেন। কিন্তু সাতদিনে একদিনের বেশি উনি আসেন না। এহন তাও দেহিনা।’ 

এমনি করে দীর্ঘ ছয় বছর যাবৎ ঐ কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করছেন উপসহকারী মেডিক্যাল  অফিসার আব্দুর রাজ্জাক।  

চরগিরিশ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান  জালাল উদ্দিন মাস্টার ওই  ডাক্তারের অনিয়মিত উপস্থিতির কথা স্বীকার করে বলেন, বহুবার বলেও কোন কাজ হয় নাই।  

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত সোমবার এবং মঙ্গলবার দুইদিনই তিনি তার ডায়ানস্টিক সেন্টারে রোগী দেখেছেন।  

গত দুইদিন কোথায় ছিলেন এমন প্রশ্নের জবাবে মুঠোফোনে আব্দুর রাজ্জাক কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।  তিনি জানান,  সব কিছু নিয়ম মেনে চলা কঠিন। আপনি অফিসে আসেন দেখা করেন। এ বিষয়ে কথা বলবো। এই বলে ফোন কেটে দেন।

কাজিপুর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার চিত্রারাণী জানান, ‘কেউ আমাকে আগে বিষয়টি জানায়নি। আজ জানলাম। আমি অফিসে গিয়ে খোঁজ নেবো।’ কাজিপুর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা পলাশ ভৌমিক জানান, ‘বিষয়টির তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে ।’  



শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।