উল্লাপাড়ায় শিক্ষার্থীর অশ্লীল ভিডিও প্রচারের ভয় দেখিয়ে গণধর্ষণ

উল্লাপাড়ায় স্কুল শিক্ষার্থীর অশ্লীল ভিডিও ফুটেজ প্রচারের ভয় দেখিয়ে গণধর্ষণ থানায় মামলা
স্কুল শিক্ষার্থীকে গণধর্ষনের ঘটনাস্থল, পাশের বাড়ির বাঁশ বাগান



উল্লাপাড়া প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় স্কুল শিক্ষার্থীর অশ্লীল ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের ভয় দেখিয়ে গণধর্ষণ করায় ধর্ষিতার পিতা মনির আকন্দ বাদী হয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ৪ জনকে আসামী করে উল্লাপাড়া মডেল থানায় পর্ণোগ্রাফি ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। 

উল্লাপাড়া মডেল থানার মামলা সুত্রে জানা যায়, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলপ ইউনিয়নের কাশিনাথপুর গ্রামের মনির আকন্দের মেয়ে ১০ম শ্রেণির  শিক্ষার্থীর অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার বা ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে প্রথমে ৪০ হাজার পরে ৩০ হাজার টাকা ওই শিক্ষার্থীর কাছ থেকে চাঁদা নেয় ৪ ধর্ষক। 

আবারও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করলে মেয়েটি দিতে অস্বীকার করলে তাকে কুপ্রস্তাব দেয় মামলার আসামি সিরাজগঞ্জ সদর থানার একঢালা গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে ইমন সেখ। 

গত ২৭ আগষ্ট রাতে ওই শিক্ষার্থীকে পাশের বাড়ীর বাঁশ বাগানে ডেকে নিয়ে একই গ্রামের হরমুজ প্রামাণিকের ছেলে রাকিব (২৮), বদিউজ্জামান মেজরের ছেলে মাসুদ রানা (২১) পর পর দুই দিন ধর্ষণ করে। 

এ সময় ওই ধর্ষণের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে আসামি মাসুদের ভাই আব্দুল মাজেদ (২৫)। 

পরে ওই ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ দেখিয়ে আবার তাকে বাঁশ বাগানে নিয়ে ধর্ষণের কথা বললে মেয়েটি চিৎকার করে পালিয়ে যায়। 

ফলে আসামীদের কাছে থাকা তার ধারণকৃত ভিডিও চিত্র বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। 

এলাকাবাসি জানাজানি হলে শিক্ষার্থীর অভিভাবক বিচার চেয়ে না পেয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা দাযের করেছে সংশ্লিষ্ট থানায়।

উল্লাপাড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মাহফুজ হোসেন জানান, ভুক্তভোগি শিক্ষার্থীর পিতার অভিযোগটি মামলা হিসেবে গণ্য করে তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। 

ইতিমধ্যে শিক্ষার্থীর ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি রের্কড করা হয়েছে। 

আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।