বকশীগঞ্জের মেরুরচরের পালিয়ে থাকা জনগনকে ঘরে ফেরাতে আলোচনা সভা

বকশীগঞ্জের মেরুরচরের পালিয়ে থাকা জনগনকে ঘরে ফেরাতে আলোচনা সভা



নূরুজ্জামান খান: জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচনে মেরুরচর ইউপিতে ভোট গ্রহণের দিন সহিংসতার ঘটনায় মামলার ভয়ে ঘর ছাড়া চার গ্রামের মানুষকে ঘরে ফেরাতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

জানা যায়, আজ শুক্রবার সকাল ১১ টায় উপজেলার মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে ইউপি নির্বাচনের দিন পুলিশের ওপর হামলা ও ভোটকেন্দ্রে অগ্নিসংযোগ, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর ও পুলিশের গাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলার ভয়ে পালিয়ে থাকা ৪ গ্রামের জনগনকে ঘরে ফিরাতে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

উক্ত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, বকশীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ তালুকদার, বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার মুন মুন জাহান লিজা, দেওয়ানগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাকিবুল হাসান রাসেল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তা ডা. প্রতাপ নন্দি, আব্দুল হামিদ, উপজেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জিএম ফাতিউল হাফিস বাবুসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীগন ও এলাকার জনপ্রতিধিগন উপস্থিত ছিলেন। 

আলোচনা সভার সভাপতি উপজেলা নির্বাহি অফিসার মুন ‍মুন জাহান লিজা কোন প্রকার আতঙ্কিত না সবাইকে ঘরে ফেরার আহ্বান জানান ও  মেরুরচরের ঘটনায় কেউ যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে কাজ নির্দেশনা দেন। 

আলোচনা সভায় বক্তারা স্থানীয় মানুষকে আশ্বস্ত করে বলেন, কাউকে বিনা দোষে হয়রানি করা হবে না। যারা পুলিশের গাড়ি পুড়িয়েছে তাদের ভিডিও ফুটেজ দেখে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

অযথা কেউ আতঙ্কিত হবেন না। তাই আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আপনাদের ঘরে ফেরার আহ্বান জানাচ্ছি। আপনারা ঘরে ফিরুন, কাজে লেগে পড়ুন।

আলোচনা সভার প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুর রউফ তালুকদারসহ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ রাকিবুল ইসলাম রাসেল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুন মুন জাহান লিজা স্থানীয় জনগণকে অভয় দেন । তাদেরকে আগের মত ব্যবসা বাণিজ্য, কৃষি কাজ, ফসল তোলা ও দোকান খোলার জন্য আহ্বান জানান।

এছাড়াও আলোচনা সভা শেষে মেরুরচর বাজারের বন্ধ থাকা দোকানপাটের তালা খুলে দেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের পূর্বের ন্যয় ব্যবসা বাণিজ্য স্বাভাবিক ভাবে চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারির পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে পুলিশের উপর হামলা ও পুলিশের গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন হককে প্রধান আসামী করে নামীয় ৯২ জনসহ অজ্ঞাতনামা ১৬শ জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে গত ৬ জানুয়ারি বকশীগঞ্জ থানার এসআই আবু শরিফ মামলা করেন।

উক্ত মামলায় ইতোমধ্যে ১১ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। বাকি অপরাধীরা গা ঢাকা দিয়েছে। সেই সাথে মেরুরচর, ফকিরপাড়া,কলকিহারা ও বাগাডুবা এলাকার নিরপরাধ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে ঘর বাড়ি ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছে। অভিভাবকদের সাথে শিশু ও বয়োবৃদ্ধরাও পালিয়ে বেড়াচ্ছে। বাড়ির সকল দরজায় ঝুলছে তালা।  

আতঙ্কিত মানুষ ঘর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় সরিষা, পেঁয়াজ , কাঁচা মরিচ ও অন্যান্য ফসল ঘরে তুলতে পারছেন না। এনিয়ে এসব এলাকার মানুষের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে নিরপরাধ ব্যক্তিদের নির্বিঘ্নে ঘরে ফেরার আহ্বান জানান থানা পুলিশ। কিন্তু মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করায় কেউ ঘরে ফেরেন নি।

অবশেষে আজ শুক্রবার উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে স্থানীয় এলাকাবাসীকে হয়রানি না করতে ও তাদের আশ্বস্ত করতে ফের উদ্যোগে নেওয়া হয়। এনিয়ে এলাকাবাসীর সাথে আলোচনা সভা ও মতবিনিময় করা হয়।


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।