রৌমারীতে নদের ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাবে শতশত পরিবার

রৌমারীতে নদের ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাবে শতশত পরিবার



 : কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর ভাঙ্গনরোধে ৪৭৯ কোটি ২৩ লাখ টাকা ব্যয় প্লেসিং এর কাজ চলমান রয়েছে। 

বামতীর রক্ষাবাঁধ নির্মাণ করা হলে রৌমারী ও রাজিবপুর ব্রহ্মপুত্র নদের তীরবর্তী বসবাসরত শতশত পরিবার ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পাবে। 

এতে স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলছেন নদের ভাঙ্গনের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো। রক্ষা পাবে হাজার হাজার একর ফসলি জমি।

গ্রাম হবে শহর এমন ঘোষনা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের ছুয়া লেগেছে এ অঞ্চলে। ভয়ঙ্কর ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গন থেকে উপজেলা রৌমারী ও রাজিবপুরের মানচিত্র রক্ষা করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনাব জাকির হোসেন এমপি।

প্রাপ্ত তথ্য সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ ও ২০২০ অর্থ বছরে রৌমারী উপজেলার ঘুঘুমারী থেকে রাজিবপুর উপজেলার মোহনগঞ্জ পর্যন্ত ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর সংরক্ষণ কাজ বাস্তবায়নকারি সংস্থা কুড়িগ্রাম পাওর বিভাগ বাপাউবো কুড়িগ্রামের আওতায় ৭.৩ কিলোমিটারের বিপরীতে ৪৭৯ কোটি ২৩ লাখ টাকা প্রাক্কলিত মুল্য ব্যয়ে ১৫ টি প্যাকেজের মধ্যে আরএফএল কোম্পানীর ৪টি, স্ট্যান্ডাড কোম্পানীর ৪টি, তাজমঞ্জিল ১টি, জেডিএমএম বিল্ডার্স ১টি, মেসার্স ডোন কর্পোরেশন এন্ড সানফ্লয়ার ১টিসহ ১৫টি ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজগুলো ব্স্তাবায়ন করা হচ্ছে। 

আরএফএল কোম্পানীর দায়িত্বরত ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম (এমসি) সুত্রে জানা গেছে ১,৬,৭ ও ৯ নং ১১’শ মিটার এর মধ্যে প্রায় ১ কিলোমিটার কাজের বরাদ্দ প্রায় ১০৫ কোটি টাকা। বোল্ডারিং ড্যাম্পিং বালু ভর্তি ও কাস্টিং কাজ শেষের দিকে এবং এ বছরেই প্লেসিং কাজ শেষ করে ড্যাম্পিংয়ের কাজও শেষ করবে বলে তারা আশাবাদি।

এবিষয়ে তীর সংরক্ষণ কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান স্টান্ডার্স কনস্টাশন লিমিটেডের দায়িত্বরত এমসি ইঞ্জিনিয়ার আকতারুজ্জামান, জেবি এমএম বিল্ডারস এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডের  দায়িত্বে পিএম পিয়াস, মেসার্স ডোন করপোরেশন এন্ড সানফ্লয়ার কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের তদারকিতে থাকা দায়িত্বরত সাইট ইঞ্জিনিয়ার বায়েজিদ বলেন, আমাদের কাজে কোন গাফলতি নেই এবং কাজের গুণগতমান ভালো। প্রেসিং এর কাজ চলছে বন্যার আগেই যাতে ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাওয়া যায় সেদিকে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

কুড়িগ্রাম জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামন বলেন, আমি গত ফেব্রæয়ারী মাসে ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর রক্ষার কাজ পরিদর্শনে গিয়ে ছিলাম কাজ চলমান রয়েছে। তবে দ্রæত কাজ শেষ করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে চাপ দেওয়া হয়েছে। যাতে বন্যার আগেই মোটামুটি কাজ শেষ করে নদী ভাঙ্গনরোধ করা যায়।

উপজেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান রবিন বলেন, বর্তমান সরকারের নির্দেশনায় এ অঞ্চলে ব্রীজ, কালভার্ড, ¯øুইজ গেট ও রাস্তাসহ ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। স্থানীয় এমপি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনাব জাকির হোসেন প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এলাকার উন্নয়নের জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।  

নদী ভাঙ্গনরোধ বাস্তবায়ন কমিটির সাধারন সম্পাদক আবু হানিফ জানান, বাঁমতীর রক্ষাবাঁধটি নির্মাণ হলে এলাকাবাসির তাদের সহায় সম্বল হারাতে হবে না। উন্নয়নের দিকেও একধাপ এগিয়ে যাবে রৌমারী ও রাজিবপুর উপজেলা দুটি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।  

বন্দবেড় ইউপি চেয়ারম্যান ও যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. আব্দুল কাদের বলেন, ব্রহ্মপুত্র নদের বামতীর রক্ষাবাঁধের কাজ শেষ হলে বহু পরিবার নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাবে এবং রৌমারী উপজেলাটিও রক্ষা পাবে।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।