নন্দীগ্রামে উপজেলা চেয়ারম্যান জিন্নাহ’কে আ’লীগের শোকজ

উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ
উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ



 : বগুড়ার নন্দীগ্রামে জয় বাংলা ¯েøাগানের বিরোধীতা করার অভিযোগ এনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রেজাউল আশরাফ জিন্নাহকে শোকজ করেছে আওয়ামী লীগ। 


শনিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শোকজ পত্রপ্রাপ্তির ৭ দিনের মধ্যে লিখিতভাবে জবাব দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের যৌথ বর্ধিত সভায় রেজাউল আশরাফ জিন্নাহর বিরুদ্ধে সর্বসম্মতিক্রমে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তার বিরুদ্ধে কেন সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না- এই মর্মে গত ৮ জুন কারণ দর্শানোর নোটিস প্রেরণ করা হয়েছে। 

জানা গেছে, গত ১ জুন নন্দীগ্রাম উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় জয়বাংলা ¯েøাগান না দেওয়ায় জনপ্রতিনিধি ও আওয়ামী লীগ নেতাদের হট্রগোল হয়। সেসময় ঘটনাটি হাতাহাতির পর্যায়ে গেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানার ওসির হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। নন্দীগ্রাম উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন ঘোষণার লক্ষ্যে উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভায় এ ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, সভায় ভাটগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বক্তৃতা শেষে জাতীয় ¯েøাগান ‘জয় বাংলা’ না বলায় তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন রানা। জয় বাংলা ¯েøাগান না বললে কি জেল-জরিমানা হবে? এমন মন্তব্য করেন সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম কামাল। এসময় তাদের মন্তব্যকে সমর্থন করে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ বলতে থাকেন, জয় বাংলা বলতেই হবে এমন কোন প্রজ্ঞাপন কি জারি হয়েছে? কথপোকথনের একপর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদের দুই চেয়ারম্যানের সমর্থনে রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির সাথে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন এবং অশোভন আচরণ করেন। 

শোকজ পত্র পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ বলেন, আপনারা যা ইচ্ছে লিখেন। কিছু বলতে চাই না। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক নোংরা, ক্রিমিনাল। তারা যা করার করুক। আমি শোকজের উত্তর দিবনা। 

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন রানা এলএলবি বলেন, দুই ইউপি চেয়ারম্যান বক্তব্য শেষে জয়বাংলা ¯েøাগান না দেওয়ায় প্রতিবাদ করেছি। উপজেলা চেয়ারম্যান জিন্নাহ ‘জয়বাংলা’ ¯েøাগানের বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ায় উপস্থিত দলীয় নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ করেছে।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।