সরিষাবাড়ীতে গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

 : জামালপুরের সরিষাবাড়িতে ফাতেমা আক্তার সোনিয়া (২৫) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেঁচিয়া বাধা গ্রাম থেকে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সরিষাবাড়ীতে পিতা কর্তৃক কন্যা ধর্ষিতার আত্মহত্যা



  সোনিয়া একই এলাকার ভাই ভাই হোটেলের মালিক সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিকের মেয়ে এবং রামচন্দ্রখালি গ্রামের অন্তর মিয়ার স্ত্রী। সোনিয়ার এক বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চার বছর আগে সোনিয়ার সাথে পোগলদিঘা ইউনিয়নের রামচন্দ্রখালি গ্রামের সরোয়ার খাঁর ছেলে অন্তর মিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের একটি ছেলে সন্তানের জন্ম নেয়। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তাদের মাঝে দাম্পত্য কলহ শুরু হলে বেশিরভাগ সময় সোনিয়া তার বাবার বাড়িতে অবস্থান করতো। শুক্রবার দিবাগত রাতে চেচিয়ে বাঁধা গ্রামে বসতবাড়ির টিনের ঘরের ধর্নার সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে সোনিয়া। পরে সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসে। জানা গেছে, সোনিয়ার বাবার সাথে তার শ্বশুরবাড়ি রামচন্দ্রখালি এলাকার এক মহিলার অবৈধ সম্পর্ক ছিলো। পরে ওই মহিলা অন্ত:সত্ত¡া হলে এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। পরে ওই মহিলা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে জামালপুর আদালতে মামলা করেন। এ অপবাদ সইতে না পেরে মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে।

গৃহবধূর স্বামী অন্তর মিয়া জানান, চার বছর আগে সোনিয়ার সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর সোনিয়া তার বাবার বাড়িতেই বেশি থাকতো। কিন্তু কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে তা তিনি জানেন না। 

সরিষাবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মহব্বত কবির বলেন, শনিবার সকালে ঝুলন্ত অবস্থায় মেয়েটির লাশ উদ্ধার করে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে আনা হয়। পরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের হয়েছে। 



শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।