জামালপুরে বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধূকে ‘নাকফুল’ পরিয়ে ধর্ষণ

🕧Published on:

: জামালপুর সদর উপজেলার রশিদপুর ইউনিয়নে বিয়ের প্রলোভনে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে আকাশ ওরফে লালন (২৩) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ভুক্তভোগী। অভিযুক্ত আকাশ একই ইউনিয়নের রশিদপুর চৌরাস্তা গ্রামের জহিরুল হকের ছেলে।

জামালপুরে বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধূকে ‘নাকফুল’ পরিয়ে ধর্ষণ



 মামলা সূত্রে জানা গেছে, ওই গ্রামের জনৈক এক ব্যক্তির সঙ্গে ৮ বছর আগে বিয়ে হয় গৃহবধূর। তাদের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। আকাশ তাদের প্রতিবেশী হওয়ার সুবাদে তার সঙ্গে ওই গৃহবধূর আলাপচারিতা হতো। গৃহবধূর স্বামী কর্মের তাগিদে ঢাকায় বসবাস করায় ৩ মাস আগে আকাশ তাকে প্রেমের প্রস্তাবসহ বিয়ের প্রলোভন দেখান। একপর্যায়ে তাদের ফোনে ও ফেসবুক মেসেঞ্জারে কথাবার্তা হতো।


এ অবস্থায় গত ১৩ ডিসেম্বর দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকায় ওই গৃহবধূকে ডেকে নিয়ে যান আকাশ। নাকফুল পরিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করতে চাইলে অস্বীকার করেন গৃহবধূ। পরে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন আকাশ। পরে আকাশকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে রেজিস্ট্রিমূলে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে গৃহবধূকে বের করে দেন।


এ অবস্থায় গৃহবধূর স্বামী ফেসবুক মেসেঞ্জারের তথ্য অনুসন্ধান করে নিশ্চিত হওয়ার পর গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিলে কোনো উপায় না পেয়ে আকাশের বাড়িতে গিয়ে উঠেন। সেখান থেকেও আকাশের বাবা-মা ওই গৃহবধূকে মারধর করে তাদের বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। এদিকে স্বামী ও আকাশের বাড়িতে তার ঠাঁই না হওয়ায় তিনি দিশেহারা হয়ে পড়েন। উপায়ন্তর না দেখে ২৪ ডিসেম্বর জামালপুর থানায় মামলা করেন।


জামালপুর থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ ইমন জানান, ওই গৃহবধূ থানায় এসে ঘটনা জানানোর পর মামলা নথিভুক্ত করা হয়। ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে ডাক্তারি পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়। পরে ওই গৃহবধূর শ্বশুর-শাশুড়ি তাকে নিতে এলে তাদের সঙ্গে তিনি স্বামীর বাড়ি চলে যান। অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই তাকে গ্রেফতার করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।