[৭৩৫] দূর্ভোগের অপর নাম আমডাঙ্গা-সড়াতৈল সড়ক

S M Ashraful Azom
0

 : আমডাঙ্গা-সড়াতৈল কাঁচা সড়কটি একটু বৃষ্টি হলেই বন্ধ হয়ে যায় যাতায়াত।এটিকে এলাকাবাসী নামকরণ করেছে দুর্ভোগের পথ। বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন সমস্যা মাথায় নিয়ে যাতায়াত করে আসছে ভুক্তভুগিরা। শত চেষ্টা করে এখনো রাস্তাটি পাঁকাকরণ করা সম্ভব হয়নি। কোন রকম নজর নেই উপজেলা প্রশাসনের।

দূর্ভোগের অপর নাম আমডাঙ্গা-সড়াতৈল সড়ক



সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বড়হর ইউনিয়নের আমডাঙ্গা-সড়াতৈল রাস্তার ২ কিলোমিটারে বৃষ্টি হলেই কাঁদায় ভরপুর হয়ে যায়। রাস্তাটিতে মানুষের যতায়াতে কষ্টের শেষ থাকে না। খরা মৌসুমে লোকজন এ রাস্তায় কোনভাবে চলাচল করতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে এর অবস্থা হয়ে পড়ে শোচনীয়। রাস্তার মাঝে মাঝে সৃষ্টি হয় বড় বড় গর্ত। পুরো সড়ক জুড়ে তৈরি হয় আধ হাঁটু কাদা। পানি জমে যায় নিচু স্থানে। ফলে এসময় এই পথে যানবাহন চলাচল দূরের কথা পায়ে হেঁটে যাতায়াতও দুস্কর। তার পরেও দৈনন্দিন প্রয়োজনে এলাকাবাসীকে কষ্ট সয়ে এই পথেই চলতে হয়। 


সড়াতৈল মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান তালুকদার, স্থানীয় বাসিন্দা আল মাহমুদ, আব্দুল আলীম ও বাবুল আক্তার অভিযোগ করে বলেন, বড়হর ইউনিয়নের আমডাঙ্গা-সড়াতৈল কাঁচা সড়কটি খুবই গুরুত্বপূূর্ণ। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন পাশ্ববর্তী আমড়াঙ্গা, অলিপুর, বাদুল্লাপুর, পাঁচিলা, খাসচর, জামালপুরসহ অন্ততঃ ১০ গ্রামের মানুষ বাদুল্লাহপুর বিএনএস টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ, সড়াতৈল মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়, অলিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, সড়াতৈল মাদ্রাসা, সড়াতৈল বাজার, কমিউনিটি ক্লিনিক ও পাঁচিলা বাজারে যাতায়াত করে থাকেন। বিশেষ করে এসব গ্রামের কমপক্ষে দেড় হাজার শিক্ষার্থী উল্লিখিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে যাতায়াত করে থাকে। বর্ষার দিনে শিক্ষার্থীরা এক হাঁটু কাঁদা মারিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে প্রায়শই পড়ে গিয়ে পোষাক ও বই খাতা নষ্ট করে ফেলে। বৃদ্ধ লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই পথে হাঁটেন। এসব কারণে স্থানীয় লোকজন দুর্ভোগের আরেক নাম হিসেবে আমডাঙ্গা-সড়াতৈল রাস্তাটিকে আখ্যায়িত করেছেন। অভিযোগকারীরা আরও জানান, উক্ত রাস্তাটি পাঁকা করার জন্য অনেকবার বড়হর ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে আবেদন জানালেও তাতে কোন কাজে আসেনি। শেষ হয়নি এলাকাবাসীর চলাচলের দুর্ভোগ। এরা অবিলম্বে রাস্তাটি পাকা করার দাবি জানিয়েছেন।


এ ব্যাপারে বড়হর ইউপি চেয়ারম্যান জহুরুল হাসান নান্নুর সঙ্গে কথা বললে তিনি উক্ত সড়কের দুরবস্থার কথা স্বীকার করে বলেন, তার পরিষদে প্রয়োজনীয় অর্থ না থাকায় রাস্তাটির উন্নয়ন সম্ভব  হয়নি। তবে এ বছর এটি পাকা করণের একটি প্রকল্প তৈরি করে উল্লাপাড়া স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অফিসে জমা দিয়েছেন। এ ব্যাপারে তার পক্ষ থেকে তদবিরও অব্যাহত রেখেছেন তিনি। 


এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের উল্লাপাড়া উপজেলা প্রকৌশলী আবু সায়েদ জানান, বড়হর ইউনিয়ন পরিষদের দেওয়া প্রকল্প যাচাই বাছাই করে তাদের অগ্রাধিকার তালিকায় অনুমোদনের জন্য ইতোমধ্যেই সংশ্লিষ্ট প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে দ্রুত এই রাস্তা পাকাকরণ কাজ শুরু করা হবে। 


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

ট্যাগস

Post a Comment

0Comments

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Post a Comment (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Know about Cookies
Ok, Go it!
To Top