টঙ্গির অরাজনৈতিক বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে জামায়াতে ইসলামীর নোংরা রাজনীতি

টঙ্গির অরাজনৈতিক বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে জামায়াতে ইসলামীর নোংরা রাজনীতি

সেবা ডেস্ক: ধর্ম নিয়ে রাজনীতি এটা নতুন কোনো বিষয় না, বহু বছরের পুরোনো এবং এর একটি ঐতিহাসিক গুরুত্বও রয়েছে। কিন্তু ধর্মকে ব্যবহার করে রাজনীতির ইতিহাস খুব একটা আগের নয়। আর যুগে যুগে এটারই পূর্ণ প্রয়োগ করেছে প্রায় নিঃশেষ হয়ে যাওয়া নিষিদ্ধ সংগঠন জামায়াতে ইসলামী। প্রয়োগ করেছে খুব নোংরা এবং অসৎ ভাবে।

রাজধানীর ঢাকার ২২ কিলোমিটার উত্তরে তুরাগ নদীর তীরে প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। বৈশ্বিক এ সমাবেশটি সর্ব-সাধারণের তো বটেই, বিশেষ করে তাবলিগ জামায়াতের বার্ষিক বৈশ্বিক সমাবেশ। 

২০১৯ এর বিশ্ব ইজতেমা শুরুর বাকি আরো মাস দুই-এক। আর ইতিমধ্যেই প্রায় পঞ্চাশ বছরের পুরনো এই অরাজনৈতিক সমাবেশকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের নিষিদ্ধ সংগঠন জামায়াতে ইসলামী নোংরা রাজনীতি শুরু করে দিয়েছে। যা একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে বানচাল করার পায়তারা ছাড়া আর কিছুই নয় । খড়-কুটোর মতো যা পাচ্ছে তাতেই বারুদ ঢালতে চাচ্ছে তারা। প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে ধর্ম প্রাণ মুসুল্লিদের সাথে জঘন্য খেলায় মেতে উঠেছে জামায়াত ইসলামী কর্মীরা । যার ফলে শান্তিপ্রিয় জনগণ উত্তেজিত হয়ে কিছু সময়ের জন্য ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক বন্ধ করে দিয়েছিলো। কে জানতো শনিবারের সুন্দর, সতেজ, ফুরফুরে সকালটা এভাবে নষ্ট হয়ে যাবে। তবে জনগণ মনে করেন, যা কিছু হোক না কেন , নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ ভাবেই অনুষ্ঠিত হবে।

ব্যবসা এবং বাণিজ্যের ভেতর যেমন পার্থক্য আছে, তেমনি ধর্মের রাজনীতি আর ধর্মকে পুঁজি করে রাজনীতিতেও রয়েছে ভিন্নতা । ধর্মই মানুষকে করেছে সুসংহত, মানবতাবাদী। জামায়াতে ইসলামীর মতো এর বাজে প্রয়োগ রক্তগঙ্গা বইয়ে দিতে পারে। যা এই গণতান্ত্রিক দেশের স্বাধীন জনগণ কিছুতেই মেনে নিবে না।
⇘সংবাদদাতা: সেবা ডেস্ক

, , ,

0 comments

Comments Please

themeforestthemeforest

ছবি কথা বলে