আজ কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনের ৩৫ বছর

আজ কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনের ৩৫ বছর
প্রথম বাংলা সফটওয়্যারের উদ্ভাবক ছিলেন ড. সাইফ উদ দোহা শহীদ

সেবা ডেস্ক: বাংলা ভাষা এখন আর শুধু কাগজে-কলমে সীমাবদ্ধ নেই। প্রযুক্তির উৎকর্ষে ইন্টারনেট দুনিয়াতেও ছড়িয়ে পড়ছে আমাদের মাতৃভাষা বাংলার প্রতিটি শব্দ।

কম্পিউটার ছাড়াও মুঠোফোনে আমরা বাংলায় লিখছি, পড়ছি। কম্পিউটারে বাংলা ভাষা প্রচলনেরও একটি ইতিহাস আছে।
 
১৯৮৫ সালের ২৫ জানুয়ারি আমেরিকা প্রবাসী প্রকৌশলী সাইফুদ্দাহার শহীদ তার মায়ের উদ্দেশে একটি চিঠি লিখেন। ২৭ বছর আগের সেই চিঠি হাতে লেখা নয়। কম্পিউটারে টাইপ করে মায়ের কাছে প্রথম চিঠি লিখেছেন সাইফুদ্দাহার। তা-ও আবার বাংলায়।

জানা যায়, ১৯৮৫ সালের এই দিনে, ২৫ জানুয়ারি ‘শহীদ লিপি’র মাধ্যমে ম্যাকিনটস কম্পিউটারে প্রথম বাংলা টাইপ করে একটি চিঠি লেখার মধ্য দিয়েই কম্পিউটারে বাংলা ভাষা লেখার প্রচলন শুরু হয়। আর তাই এই দিনটিকে কম্পিউটারে বাংলা প্রচলন দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

প্রথম বাংলা সফটওয়্যারের উদ্ভাবক ছিলেন ড. সাইফ উদ দোহা শহীদ। পেশায় যন্ত্রকৌশলী হলেও বেক্সিমকোতে চাকরিরত অবস্থায় ১৯৮৩ সালের দিকে তাদের কম্পিউটার সিস্টেমের দায়িত্বে ছিলেন। তখন থেকেই তিনি বাংলা কম্পিউটিংয়ের উপর কাজকর্ম শুরু করেন। তবে বেশি দূর এগোতে পারেননি ‘শহীদ লিপি’ নামে বাংলা সফটওয়্যার।

১৯৮৪ সালে সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে এবং খানিকটা ম্যাকিনটস করপোরেশনের প্রযুক্তিগত সহায়তায় ম্যাক কম্পিউটারের জন্য বাংলা ফন্ট ‘যশোর’, কিবোর্ড লেআউট ‘শহীদ লিপি’ এবং বাংলা ইন্টারফেইসে ম্যাক সিস্টেম ডেভেলপ করেন। ১৯৮৫ সালে তিনি এই সিস্টেম ব্যবহার করে কম্পিউটারে প্রথম বাংলা চিঠি লেখেন তার মা’কে। এরপর ইউএনডিপিসহ প্রায় একশতটির মতো প্রতিষ্ঠান তার এই সিস্টেম কেনে এবং ব্যবহার শুরু করে।

শহীদলিপি নামকরণ নিয়ে প্রকৌশলী সাইফুদ্দাহার শহীদ একটি ব্লগে লেখেন, ‘১৯৬৫ থেকে ১৯৬৯ – এ চার বছর যখন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র – তখন প্রতিটি শহীদ দিবসে শহীদ মিনারে যেতাম প্রভাত ফেরীতে যোগ দিয়ে। শেষের বছরগুলোতে ছাত্র রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার কারণে আরও ব্যস্ততায় কাটতো ওই দিনটি। ফলে ১৯৮৫ সালে যখন লন্ডন থেকে কম্পিউটারে প্রথম বাংলায় চিঠি লিখে পাঠালাম ঢাকাতে আমার মা’কে, তখন একটা নামই শুধু মনে এসেছিল – শহীদলিপি।

বর্তমানে শহীদ লিপির প্রচলন না থাকলেও কম্পিউটারে বাংলা ভাষা ব্যবহারে শহীদ লিপির ভূমিকা অনস্বীকার্য। শহীদ লিপির মাধ্যমেই কম্পিউটারে বাংলা ভাষার বিস্তার ঘটে। সেই চেষ্টার ফসল হিসেবে একপর্যায়ে আবির্ভূত হয় ওয়েবভিত্তিক বাংলা অ্যাপ্লিকেশন এবং সফটওয়্যার।

বর্তমানে ইন্টারনেট ও কম্পিউটারে বাংলার ব্যবহার অনেক বেড়েছে। গুগলে বাংলায় অনুসন্ধানে তথ্যের পাশাপাশি এখন ছবিও নিমিষেই হাজির হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে বড় মাধ্যম ফেসবুকে এখন অনেকের অ্যাকাউন্ট সম্পূর্ণ বাংলায়। আসছে নতুন নতুন বাংলা ব্লগ। বাড়ছে বাংলা অনলাইন দৈনিকের পাঠকও। ইউনিকোডভিত্তিক বাংলা সংবাদপত্রগুলো চালু হওয়ার পর ওয়েবে বাংলা আগের তুলনায় বেশি পাওয়া যাচ্ছে।

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Dara Computer Laptops