ঢাকার হাসপাতালে মারা গেছেন গাইবান্ধার যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা

ঢাকার হাসপাতালে মারা গেছেন গাইবান্ধার যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা


আশরাফুল ইসলাম গাইবান্ধা : ঢাকায় গিয়ে অসুস্থ হয়ে গাইবান্ধার সদর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. নাজমুল হাসান গ্রীন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহির রাজিউন) গতকাল ৬ মার্চ শনিবার রাত ১০টার দিকে ঢাকার ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

গত দুই দিন ধরে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে নাজমুল হাসান ডায়াবেটিস ও হার্টের সমস্যাসহ শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন।

তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে অফিস স্টাফ জিয়ন সরকার মুঠফোনে জানান, স্যার মঙ্গলবার অফিস শেষ করে ঢাকায় চলে যান। পরদিন শারীরিকভাবে অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা। কিন্তু সেখানে দু'দিন চিকিৎসার পরেও তার অবস্থার অবনতি হয়। শনিবার লাইফ সাপোর্টে নেওয়ার পর রাতে তার মৃত্যু হয়। ডায়াবেটিস ও হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। এরআগে অস্ত্র পাচারের মাধ্যমে তার হার্টের রিং পড়ানো হয়েছিলো। তারপর থেকে স্যার ঢাকায় নিয়মিত চিকিৎসাও করে আসছিলেন। 

নাজমুল হাসান গাইবান্ধা সদর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। পাশাপাশি সাদুল­াপুর উপজেলায় অতিরিক্ত দায়িত্বে ছিলেন। এরআগে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ, ফুলছড়ি ও রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবেও কমরত ছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫২ বছর  নাজমুল হাসানের গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধার সদর উপজেলার বাদিয়াখালিতে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী মাজেদা আক্তার ও সায়মী নাজ সায়ন ও তাসনীম লামিয়া নামে দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন৷ নাজমুল হাসানের মৃত্যুর খবরে জেলার কমরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
 



শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।