বকশীগঞ্জে গণধর্ষণের শিকার রৌমারীর এক কিশোরী, গ্রেপ্তার-৫

বকশীগঞ্জে গণধর্ষণের শিকার রৌমারীর এক কিশোরী, গ্রেপ্তার-৫



সেবা ডেস্ক: অটোচালকের প্রেমের ফাঁদে পড়ে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার লাউচাপড়া পিকনিক স্পটে বেড়াতে এসে প্রেমিক ও তার সহযোগীদের দ্বারা গণধর্ষণের শিকার হয়েছে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার এক কিশোরী (১৭)। তার বাড়ি রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গী উত্তরপাড়ায়। সে স্থানীয় একটি স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। ২৯ জুলাই বিকেলে ওই পিকনিক স্পটের কাছেই গারো পাহাড়ের নির্জন চূড়ায় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ২৯ জুলাই রাতেই ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বাদী হয়ে রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গী উত্তরপাড়া এলাকার মো. শফিকুল ইসলামের ছেলে প্রতারক প্রেমিক অটোচালক হোসাইন শান্ত ও তার চার সহযোগীসহ নয়জনকে আসামি করে তাকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের অভিযোগে বকশীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার বাকি আসামিরা হলেন- রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গী উত্তরপাড়া এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে হোসাইন শান্ত (২১), আজিজুল বেপারীর ছেলে আমিরুল ইসলাম আমরুল (২১), তজিমলের ছেলে আঙ্গুর আলম (২৩) ও বকশীগঞ্জের পলাশতলা এলাকার মো. হানবির ছেলে হিটলার (৪৮) ও চর কাউনিয়া সীমারপাড় এলাকার মৃত রেজাউল করিমের ছেলে আজাদ (৫০)। আসামিদের মধ্যে প্রতারক শান্তর বন্ধু শফি আলম (২৩) ও রুহুল আমিনসহ (২১) বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

শান্তসহ গ্রেপ্তার পাঁচ আসামিকে ৩০ জুলাই সকালে জামালপুর আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। একই দিনে ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে জামালপুর সদর হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। ৩১ জুলাই সকালে তার আইনসহায়ক ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হবে বলে জানিয়েছেন জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক চিকিৎসক মো. হারুন অর রশিদ।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রৌমারী উপজেলার কোমরভাঙ্গী উত্তরপাড়ার অটোচালক হোসাইন শান্ত (২১) মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে ওই কিশোরীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। শান্ত কয়েকদিন আগে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নের ভারত সীমান্তবর্তী গারো পাহাড়ের লাউচাপড়া পিকনিক স্পটে ঘুরতে যাওয়ার প্রস্তাব দেয় ওই কিশোরীকে। সে রাজি হলে শান্ত তার নিজের অটোতে করে ওই কিশোরী ও একই এলাকার আরও চার বন্ধুকে নিয়ে ২৯ জুলাই দুপুরের পর তারা ওই পিকনিট স্পটে যান। করোনা পরিস্থিতিতে পিকনিক স্পটের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় তারা ওই কিশোরীকে নিয়ে পিকনিক স্পটের কাছেই গারো পাহাড়ের চূড়ায় নিয়ে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করেন।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম সম্রাট বলেন, দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের অভিযোগে ভুক্তভোগী ওই কিশোরী নিজেই বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। প্রধান আসামি অটোচালক শান্তসহ আটক পাঁচজনকে ৩০ জুলাই সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে জামালপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মামলাটির অন্য আসামিদেরকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।  

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।