পলাশবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের দূর্নীতির অভিযোগ

পলাশবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের দূর্নীতির অভিযোগ



আশরাফুল ইসলাম গাইবান্ধা : গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার ১ নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়নে অবৈধভাবে দায়িত্বে থাকা ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের করা ১৩২ টি প্রকল্পের নানা অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে গাইবান্ধায় বিজ্ঞ সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের মামলা নং- ১ -২০২১ এর আদেশ দূদক কর্তৃক তদন্ত কার্যক্রমের নির্দেশ প্রদানের পর তড়ি ঘড়ি করে এলজিএসপি -৩ প্রকল্পের আওতায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের প্রকল্পের পৃথক ভাবে ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দে নি¤œমানের মালামাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। 

এ অভিযোগের সূত্র ধরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অত্র ইউনিয়নের পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় ও সুলতানপুর দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে পৃথক ভাবে ৪০ জোড়া করে বেঞ্চ প্রদান করা হয়েছে। নি¤œ মানের কাট দিয়ে দায়সারা ভাবে ব্রেঞ্চ গুলো তৈরী করে দেওয়া হয়। ই্উপি চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদানকৃত ব্রেঞ্চ গুলো অনিয়মের বিগত সময়ে করে আসা অনিয়মের প্রমাণ বলে মনে করেন স্থানীয় সচেতন মহল। তারা আরো দাবী করেন দূর্নীতি অভিযোগে মামলা দায়ের পর হতে অভিযুক্ত প্রকল্পের কাজ পূর্নরায় করার চেষ্টা করছেন।

এবিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টুর মন্তব্য নিতে অত্র ইউনিয়ন পরিষদ ও তাহার বসতবাড়ীতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি এবং তাহার ব্যবহৃত নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এবিষয়ে পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ জাহিদুল ইসলাম জানান, ব্রেঞ্চ প্রদান করেছেন কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু। তবে এসব বেঞ্চ কোন প্রকল্প হতে কত টাকা বরাদ্দের বিনিময়ে তা আমাদের জানা নেই।

সুলতানপুর দ্বি মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাধন সরকার জানান,ইউনিয়ন পরিষদ হতে ৪০ জোড়া ব্রেঞ্চ প্রদান করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু । বেঞ্চ এর মানসম্মত কিনা তা দেখে নেওয়া হয়নি এবং এসব ব্রেঞ্চ কিভাবে আমাদের বিদ্যালয়ে বরাদ্দ হলো বা কত টাকায় করা তা আমরা জানি না।
 

শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।