জেলা পরিষদে নিয়োগ হবে প্রশাসক ।। মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

জেলা পরিষদে নিয়োগ হবে প্রশাসক ।। মন্ত্রিসভায় অনুমোদন



সেবা ডেস্ক: পৌরসভা’র মতো জেলা পরিষদে’র চেয়া’রম্যানে’র মেয়াদ শেষে প’রবর্তী নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত প্রশাসক নিয়োগে’র বিধান রাখা হয়েছে। 

পাশাপাশি জেলা পরিষদে’র সদস্য কারা হবেন সেটিতেও কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন আইনে উপজেলা পরিষদ চেয়া’রম্যান পৌ’রসভা’র মেয়’র বা তা’র প্রতিনিধি এ’র সদস্য হবেন। আ’র ইউএনওরা থাকবেন অবজার্ভা’র, তাদে’র কোনো ভোটাধিকা’র থাকবে না। শুধু জনপ্রতিনিধিরাই ভোট দেবেন।

এমন বিধান রেখে জেলা পরিষদ (সংশোধন) আইনে’র খসড়া’র নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র সভাপতিত্বে সোমবা’র সকালে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভা’র বৈঠক। এতে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

সভা শেষে বিস্তারিত তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকা’র আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘দুই কেবিনেট মিটিং আগে স্থানীয় স’রকা’র থেকে একটি আইন সংশোধনে’র জন্য নিয়ে আসা হয়েছিল, সেটি ছিল পৌ’রসভা আইন। এটাতে বিধান ছিল পৌ’রসভা চেয়া’রম্যানে’র একটি মেয়াদ ছিল বছ’র বা বছরে’র জন্য থাকবেন। কিন্তু প’রবর্তীতে নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত তিনি কন্টিনিউ ক’রবেন।

এতে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন পৌ’রসভায় মামলা’র কা’রণে ১৪-১৫ বছ’রও একজন চেয়া’রম্যান থাকতেন। জেলা পরিষদেও এটাই ছিল বিধান। মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও তিনি চেয়া’রম্যান থাকছিলেন। স্থানীয় স’রকা’র মন্ত্রণালয় এটাতে সংশোধন নিয়ে এসেছে। এটাও সেই পৌ’রসভা আইনে’র মতো মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া’র প’র যত দিন পরিষদ পুনর্গঠন করা না হবে তত দিন স’রকা’র প্রশাসক দিয়ে রাখতে পা’রবে।

তিনি বলেন, সদস্যদে’র ক্ষেত্রে একটু পরিবর্তন আনা হয়েছে। উপজেলা পরিষদে’র চেয়া’রম্যানরা এটি’র সদস্য হবেন, পৌ’রসভা’র মেয়’ররা সদস্য হবেন এবং তাদে’র সিটি ক’রপোরেশনে’র মেয়রে’র প্রতিনিধিরা সদস্য হবেন। আ’র ইউএনওদে’র রিকমান্ড করা হয়েছে তারা অবজা’রভা’র হিসেবে থাকবে। বোর্ডটা রিভাইজ করা’র রিকমেন্ডেশন করা হয়েছে।

ইউএনওরা ননভোটিং অবজার্ভিং মেম্বা’র থাকবেন। শুধু পাবলিক রিপ্রেজেনটেটিভরা ভোট দিতে পা’রবেন। তবে মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া’র প’র সাথে সাথে যদি কেউ ইলেক্টেড বা নমিনেটেড হয়ে যায় তা হলে তা’র কাছে ক্ষমতা চলে যাবে।

সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন কর্মকাণ্ড কোভিড-১৯ পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদে’র নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী’র নির্দেশনা উল্লেখ করে খন্দকা’র আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, যেহেতু কোভিড সংক্রমণে’র দুই বছ’র হয়ে গেছে। সে জন্য আমাদে’র একটা প্রটোকলও ডেভেলপ হয়ে গেছে। সুতরাং, সবাইকে আরেকটু জোরেশোরে কাজ করে আমাদে’র ব্যাকলক যদি থাকে সেটা ডেভেলপমেন্ট ফেইজটা আগে’র মতো নিয়ে যাওয়া’র নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনাভাইরাসে’র সংক্রমণে’র সময় দেয়া বিধিনিষেধ এখনও কিছু কিছু ‘রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বঙ্গভবনে এবা’র ১৬ ডিসেম্বরে’র অনুষ্ঠান হচ্ছে না। প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রোগ্রাম হবে, কা’রণ সেখানে অবাধ মেলামেশা হবে না। অবাধ মেলামেশা টাইপে’র বিষয়গুলোকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, সনদ না নিয়ে চলচ্চিত্র প্রদর্শন ক’রলে সর্বোচ্চ বছরে’র জেল বা লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডে’র বিধান রেখেবাংলাদেশ চলচ্চিত্র সার্টিফিকেশন আইন, ২০২১এ’র খসড়া’র নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এত দিন আমাদে’র সিনেমাগুলো অনুমোদন করা হতো ১৯৬৩ সালে’র সেন্স’রশিপ অব ফিল্ম অ্যাক্ট-১৯৬৩ এবং ১৯৭২ সালে’র একটি অ্যামেন্ডমেন্ট অনুযায়ী। প’রবর্তীতে ২০০৬ সালে আইনটিকে সংশোধন করা হয়েছিল।

তথ্য সম্প্রচা’র মন্ত্রণালয় থেকে এটাকে মোডিফিকেশন করা হয়েছে যে, আইনটি একচুয়ালি সেন্স’রশিপ আইন থাকা ঠিক হবে না, এটা সার্টিফিকেশন আইন হওয়া উচিত। তা’র একটা পার্ট থাকবে সেন্স’র। শুধু সেন্স’র থাকলে এখানে অন্য’রকম অসুবিধা হয়।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, পৃথিবী’র অন্যান্য দেশে এখন সার্টিফিকেশন আইন করা হয়েছে। সার্টিফিকেশন আইনে গেলে সেখানে সেন্স’র একটা পার্ট থাকবে। সে জন্য তারা একটা অ্যামেন্ডমেন্ট নিয়ে এসেছিল, এখানে খুব বেশি বা ম্যাসিভ কোনো চেঞ্জ হয়নি। সেন্স’রশিপ যে আইনটি ছিল, তা’র সাথে কিছু কিছু যোগ করে আইনটা নিয়ে আসা হয়েছে। বোর্ডে আগে’র মতোই একজন চেয়া’রম্যান থাকবেন। ১৪ জন সদস্যসহ ১৫ জনে’র একটি বোর্ড থাকবে, যারা সার্টিফিকেট দেবেন। চলচ্চিত্রে’র সার্টিফিকেশনে’র ক্ষেত্রে শ্রেণিবিন্যাস মূল্যায়ন পদ্ধতি করা হবে। সেটি বিধি নিয়ে নির্ধা’রণ করা হবে। সদস্যে’র একটি আপিল বোর্ড থাকবে। সেখানে আগে’র মতোই ক্যাবিনেট সেক্রেটারি সভাপতি থাকবেন।

আইনে’র খসড়ায় শাস্তি’র প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যদি কোনো ব্যক্তি সার্টিফিকেশনবিহীন কোনো চলচ্চিত্র প্রদর্শন করেন তা হলে সে অপরাধে তিনি অনধিক বছরে’র কারাদণ্ড বা লাখ টাকা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। আ’র কোনো ব্যক্তি যদি কোনো চলচ্চিত্রে’র সার্টিফিকেশন পাওয়া’র প’র কোনো টেম্পারিং করেন। অনেক সময় যে সিনগুলো সার্টিফিকেটপ্রাপ্ত না বা সেন্স’র না, সেগুলো যোগ করেন, তাহলে বছরে’র কারাদণ্ড অথবা লাখ টাকা জরিমানা হবে।

মন্ত্রণালয় বিভাগগুলো’র ২০২০-২১ অর্থবছরে’র কার্যাবলি সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদনে’র তথ্য অনুযায়ী তিনি বলেন, পদ্মা সেতু’র ৮৭ ভাগ অগ্রগতি হয়েছে। আশা ক’রছি ৩০ জুন বা তা’র আশপাশে’র সময়ে যান চলাচলে’র জন্য ওপেন করে দেয়া হবে। জনগণে’র মাথাপিছু আয় হাজা’র ৫৫৪ মার্কিন ডলা’র উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০২০-২১ অর্থবছরে ‘রফতানি আয় হয়েছে ৩৮ দশমিক ৭৬ বিলিয়ন ডলা’র। ‘রফতানি আয় বৃদ্ধি আগে’র অর্থবছরে’র তুলনায় ১৫ দশমিক ১৩ ভাগ বেশি।

তিনি বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী’র উপহা’র হিসেবে ৫৩ হাজা’র ৩৪০টি ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারে’র বসবাসে’র জন্য গৃহ নির্মাণ করা হয়েছে। মন্ত্রিসভা’র বৈঠকে একাদশ জাতীয় সংসদে’র পঞ্চদশ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি’র ভাষণে’র খসড়া অনুমোদন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এটা একটা স্পেশাল ভাষণ। স্বাধীনতা’র ৫০ বছ’রপূর্তি উপলক্ষে তিনি ভাষণ দেবেন। সেটা সোমবা’র মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করে দেয়া হয়েছে। আগামী ২৪ তারিখে ভাষণ প্রচা’র করা হবে। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।