আঁখির বাবাকে শাসানোর পর দুই পুলিশ সদস্য ক্লোজড

 : সারা দেশ যখন নারীদের এই অভাবনীয় জয় উদযাপন করছে ঠিক তখনই নারী ফুটবলার দলের ডিফেন্সের খেলোয়ার আঁখি খাতুনের বাবাকে নোটিশ দিতে গিয়ে শাসানোর অভিযোগে সমালোচনার মুখে পড়েন শাহজাদপুর থানার দুই পুলিশ সদস্য। 

আঁখির বাবাকে শাসানোর পর দুই পুলিশ সদস্য ক্লোজড



 বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বৃহস্পতিবার শাহজাদপুর থানার সহকারী উপ-পরিদশক (এএসআই) মামুনুর রশিদ ও কনস্টেবল আবু মুসাকে ক্লাজড করে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।


বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) শাহজাদপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল মজিদ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ফুটবলার আঁখির বাবাকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে ওই দুই পুলিশ সদস্য- এএসআই মামুনুর রশিদ ও কনস্টবল আবু মুসাকে ক্লোজড করে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।


জানা যায়, বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের পাড়কোলা গ্রামের আঁখির বাড়িতে এএসআই মামুনুর রশিদ ও কনস্টেবল আবু মুসা সিভিল পোশাকে নোটিশ নিয়ে উপস্থিত হন। এ সময় শাহজাদপুর থানার এএসআই মামুনুর রশিদ আখিঁর বাবা আক্তার হোসেনকে জানান, দ্বাবারিয়া গ্রামের মৃত মেছের প্রাং এর ছেলে মোঃ মকরম প্রাং বাদী হয়ে সম্প্রতি সিরাজগঞ্জের বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দ্বাবারিয়া মৌজায় জোরপূর্বক জমি দখলের পায়তারার অভিযোগে একটি মামলা করেন।

ফলে খুন জখম হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় বিজ্ঞ আদালত উভয়পক্ষকে ওই নালিশি সম্পত্তিতে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখতে বলা হয়েছে। এতে ফুটবলার আঁখিসহ ৫ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।


এই সংক্রান্ত আদালতের একটি নোটিশ স্বাক্ষর করে গ্রহণের জন্য এএসআই মামুনুর রশিদ আঁখির বাবা আক্তার হোসেনকে অনুরোধ করলে তিনি তাৎক্ষনিক তা গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করলে এএসআই মামুনুর রশিদ তার উপর ক্ষুব্ধ হয়ে তার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন।


আঁখির বাবা আক্তার হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার মেয়ে আঁখিকে ওই জমি দিয়েছেন। ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে একটি কুচক্রমহল জাল দলিলের মাধ্যমে ওই জমি দখলের পায়তারা করছে।’


তিনি এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। সেইসাথে শাহজাদপুর থানার ক্লোজড হওয়া দুই পুলিশ সদস্যের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।


উল্লেখ্য, ফুটবলার আঁখির পরিবার অত্যন্ত হরিদ্র হওয়ায় সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক ড.ফারুক আহম্মদ শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের দ্বাবারিয়া মৌজার ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত ওই সম্পত্তির ৮ শতক জমি আঁখির নামে দলিল মূলে স্বত্ব প্রদান করেন। গত কয়েকদিন আগে আনুষ্ঠানিক ভাবে আঁখির বাবা মায়ের হাতে ওই জমির দলিল হস্তান্তর করেন। ফলে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া আঁখির একটি মাথা গোজার ঠাই হয়েছিল। ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে একটি কুচক্রমহল জাল দলিলের মাধ্যমে আদালতকে ভুল  বুঝিয়ে ওই জমি দখলের পায়তারা করছেন বলে আঁখির বাবা আক্তার হোসেন দাবী করেছেন।


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।