২ নভেম্বর মেলান্দহের হাজরাবাড়ি-আদ্রা-ফুলকোচা ভোটগ্রহণ

 : ২ নভেম্বর জামালপুরের মেলান্দহের নবগঠিত হাজরাবাড়ি পৌরসভা, আদ্রা এবং ফুলকোচা ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

২ নভেম্বর মেলান্দহের হাজরাবাড়ি-আদ্রা-ফুলকোচা ভোটগ্রহণ



 হাজরাবাড়ি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদে পৌর আ’লীগের সভাপতি আলহাজ শামসুজ্জামান সুরুজ মেম্বার (নৌকা মার্কা), মঞ্জুরুল ইসলাম বিদ্রোহী (জগ মার্কা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মাকসুদুল হাসান সুমন হাজারী (নারকেল গাছ), ইসলামী আন্দোলন মনোনীত মাও. সাইফুল ইসলাম (হাতপাখা) প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। 


২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর হাজরাবাড়ি পৌরসভা গঠিত হয়। ১৪ হাজার  ৮৮৪ জন ভোটার প্রথমবারের মতো ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।


বিএনপি’র ৪ দলীয় জোটের আমলে মির্জা আজম ও হাজী দিদার পাশার মধ্যে রাজনৈতিক দ্বন্ধ চলে। এ সময় হাজী দিদার পাশার হাত ধরে ছাত্র লীগ নেতা মঞ্জু বিএনপিতে যোগদান করে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। পরে হাজী দিদার পাশার হাত ধরেই তিনিও আওয়ামী লীগে ফিরে আসেন। 


স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার এবং মেলান্দহ উপজেলা পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান একেএম হাছান হাজারী ময়েনের ছেলে প্রভাষক মাকসুদুল হাসান সুমন হাজারী মূলত: বিএনপি’র রাজনীতিতে সম্পৃক্ত। হাজী দিদার পাশা আ’লীগ থেকে বিএনপিতে যোগদানের পর মেলান্দহ বিএনপির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুলের বিপক্ষে অবস্থান নেন। সুমন হাজারী হাজী দিদার পাশা গ্রæপে সক্রিয় হন। হাজী দিদার পাশা পূণ: আওয়ামী লীগে ফিরলে; সুমন হাজারী রাজনীতি থেকে ইস্তফা নেন। সচেতন মহলের ধারণা পূর্বাঞ্চলের প্রার্থী মঞ্জুর এলাকায় সুমন হাজারীও প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। অপরদিকে পশ্চিমাঞ্চলের আ’লীগের সুরুজ মেম্বার ক্লিন ইমেজের একমাত্র প্রার্থী। ভোটাররাও চিন্তাভাবনা করেই সিদ্ধান্ত নেবেন। হাজরাবাড়ি পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বনাম বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে লড়াই হবার সম্ভাবনা লক্ষ্য করা যায়। হাজরাবাড়ি পৌরসভার প্রথম মেয়র নির্বাচিত হবার স্বপ্নে প্রার্থীদের ঘুম নেই।

অপরদিকে আদ্রা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে  আওয়ামী লীগ মনোনীত (নৌকা) রফিকুল ইসলাম খোকা প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। তিনি আদ্রা ইউনিয়ন আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক আ: সালাম গদাই চেয়ারম্যানের ছেলে। শিল্পপতি-সমাজসেবক হিসেবে তাঁর পরিচিতি আছে। রকিবুল ইসলাম চাঁন বিদ্রোহী প্রার্থী (মোটরসাইকেল), ইসলামী আন্দোলন মনোনীত নূরুল ইসলাম (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী বেলাল হোসেন (ঘোড়া) মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। আদ্রা ইউনিয়নে লড়াই হবে আ’লীগ বনাম বিদ্রোহীর মধ্যে। আদ্রা ইউনিয়নে ১৭ হাজার ৪শ’ ২৬ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

একইসাথে ফুলকোচা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মামুনুর রশিদ (নৌকা), সাহিদা আক্তার (ঘোড়া) বিদ্রোহী এবং কামাল উদ্দিন কামাল মেম্বার (আনারস) স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ফুলকোচা ইউনিয়নে ৯ হাজার ৯শ’ ৭৮ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ভোটারদের ধারণা সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ’লীগ প্রার্থী মামুন বনাম স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল মেম্বার ফ্যাক্টর হয়ে দাড়াবে।



শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।