[৭০০] চাকরির মেয়াদ শেষ হলেও পদ ছাড়েননি কয়ড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ

S M Ashraful Azom
0

 : উল্লাপাড়া উপজেলার কয়ড়া ফাজিল মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদ (গভর্নিং বডি) চাকুরী শেষ হওয়া অধ্যক্ষকে স্বপদে বহাল রেখে আবারও ৫ বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ মাওলানা শাহজাহান আলী। 

চাকরির মেয়াদ শেষ হলেও পদ ছাড়েননি কয়ড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ



তবে উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: উজ্জল হোসেন বলছেন, অবসরে যাওয়ার সময় পেড়িয়ে গেলেও স্বপদে বহাল থেকে কিভাবে মাওলানা শাহজাহান আলী প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিষয়টি নিয়ম বহির্ভূত।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার কয়ড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলীর চাকরির মেয়াদ ৬০ বছর পূর্ণ হয় গত ২৪ এপ্রিল ২০২৩ ইং তারিখে। চাকুরি শেষ হলেও তিনি অন্য শিক্ষকের উপর দায়িত্ব হস্তান্তর না করেই, এখনও প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন এই কুমতলবী শাহজাহান। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদরাসার) নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অধ্যক্ষ পদে জোরপূর্বক বহাল তবিয়তে রয়েছেন এই কূটকৌশলী ও মামলাবাজ শাহজাহান। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ গভর্নিং বডি'র সভাপতি অবৈধভাবে আবারও তাকে ৫ বছরের জন্য অধ্যক্ষ পদে চুক্তি ভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

তবে তার অধ্যক্ষ পদ না ছাড়ার কারণ হিসেবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক ও ছাত্র অভিভাবক বলেন, 'দীর্ঘদিন ধরে এই মাদরাসায় বিভিন্ন খাতে একক আধিপত্য বিস্তার করে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়ম করে আসছেন এই অধ্যক্ষ। এমন অভিযোগ একাধিকবার তার বিরুদ্ধে উঠলেও গভর্নিং বডির সদস্যরা এই অনিয়ম, দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত থাকায় প্রতিবারই ছাড় পেয়ে যাচ্ছেন এই দুর্নীতিবাজ। মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও তাকে স্বপদে বহাল রাখার পেছনে অনেকগুলো কারণের মধ্যে কয়েকটি কারণ গুরুত্বপূর্ণ। অধ্যক্ষের নিজের মেয়ের জামাইকে অন্য মাদ্রাসা থেকে নিজ মাদ্রাসায় এনে অধ্যক্ষ পদে স্থায়ী নিয়োগ দেবেন বলে, মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে মাদরাসায় ৫ টি শূন্য পদে ২০১৫ সালের পুর্বে কমিটি কতৃক ভুয়া নিয়োগ দেখিয়ে শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করবেন বলে, মাদরাসায় নিয়োগকৃত নিজের বড় ছেলেকে জৈষ্ঠ্যতম শিক্ষক করার ষড়যন্ত্রে, ভুয়া নিয়োগে ছোট ছেলেকে অতিরিক্ত পদে নিয়োগ দেখিয়ে এমপিও ভুক্ত করান তিনি, এপ্রেক্ষিতে মাদ্রাসার সকল শিক্ষকের বেতন ভাতা বন্ধ হয়ে যায়। মহাপরিচালক মাদরাসা শিক্ষার নিকট ভুলস্বীকার করে নীতিমালা বর্হিভুত তার ছেলের এমপিও বাতিল করে পরবর্তীতে বেতন ছাড় করান এই প্রতারক। পুণঃরায় ছেলেকে ঐ পদে পূর্ণবহাল করার কৌশলে তিনি আরও ৫ বছর বেতন-ভাতা বিহীন চুক্তিভিত্তিক পদে অধ্যক্ষ পদে থাকতে চান। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জায়গা-জমির আয় ব্যক্তিগতভাবে ভোগ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন এই দুর্নীতিবাজ অধ্যক্ষ।     

অধ্যক্ষ শাহজাহান আলীকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি এ সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি পদে থেকেই  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চুক্তিভিত্তিক অধ্যক্ষ পদে থাকার আবেদন করেছি। অনুমতি পাইনি। অপর প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, পদ না ছেড়ে আবেদন করার নিয়ম আছে কি-না আমি জানি না।

গভর্নিং বডির সভাপতি মোঃ মজির উদ্দিন জানান, স্কুল-কলেজের ডিজির একটি পরিপত্র দেখিয়ে অধ্যক্ষ পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের অনুমতি দিয়েছি। নিয়ম বর্হিভুত কি-না জানতে চাইলে তিনি মুখ খোলেননি।

উল্লাপাড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম সামছুল হক জানান, চুক্তিভিত্তিক অধ্যক্ষ পদের জন্য তিনি মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন। চাকুরি শেষ হলে পদে থাকতে পারেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি নিয়ম বর্হিভুত বলে জানান।

উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ উজ্জল হোসেন জানান, তার বিরুদ্ধে এই বিষয় সহ নানা অনিয়মের অভিযোগের আলোকে তার উর্ধ্বতন কর্মকতাকে লিখিত ভাবে জানিয়েছি। আরেক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ব্যবস্থা নেওয়া মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার ব্যাপার। আমি তাকে মৌখিক ভাবে জানিয়েছি।  


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

ট্যাগস

Post a Comment

0Comments

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Post a Comment (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Know about Cookies
Ok, Go it!
To Top