প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নেন, অন্যরা পিছিয়ে নেয়: শিক্ষামন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নেন, অন্যরা পিছিয়ে নেয় শিক্ষামন্ত্রী

সেবা ডেস্ক: বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ২০০১ সালে শেখ হাসিনা শিক্ষার হার রেখে যান ৬৮ শতাংশ। ২০০৯ সালে ফিরে এসে পেয়েছেন ৪৫ শতাংশে। একইভাবে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ রেখে যান ২০০১ সালে। কিন্তু ফিরে এসে দেখেন সেই খাদ্য ঘাটতি। শেখ হাসিনার সরকার দেশকে এগিয়ে নিয়ে যান। পরে যারা আসেন তারা ফের পিছিয়ে নেন। এখন মানুষ সচেতন হয়েছে। ২০০৯ সাল থেকে শেখ হাসিনাকেই দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে।
রোববার দুপুরে বালাগঞ্জ ওসমানীনগর এডুকেশন ট্রাস্টের পক্ষ থেকে বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, আমি বাংলাদেশের মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই বারবার আওয়ামী লীগকে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দেয়ায়। মানুষের সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে দেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে। সারাবিশ্বের মানুষ অবাক হয়ে বলছে- কি করে বাংলাদেশে এতো উন্নয়ন হচ্ছে? এতো জনসংখ্যা নিয়ে কিভাবে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে?

মন্ত্রী বলেন, আজ মানুষের পেটে ভাতে আছে, গায়ে আছে কাপড়, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ। হাতে হাতে আছে মোবাইল। রাস্তা-ঘাটের যে পরিমাণ উন্নয়ন হয়েছে এখন গ্রামের ঘর পর্যন্তও গাড়ি নিয়ে যাওয়া যায়।

বালাগঞ্জ ওসমানীনগর এডুকেশন ট্রাস্টের চেয়ারপারসন রবিন পালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট ৩ আসনের এমপি মাহমুদ সামাদ চৌধূরী কয়েছ, সিলেট ২ আসনের এমপি মোকাব্বির খান, হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ মিলাদ গাজী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, জেলা পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. তাহমিনা আক্তার, ওসমানীনগর সার্কেল রফিকুল ইসলাম, বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মুস্তাকুর রহমান মওফুর প্রমুখ।

 -সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,