বকশীগঞ্জে খুব কম সময়ে নারী নির্যাতন মামলার অভিযোগপত্র দাখিল

বকশীগঞ্জে খুব কম সময়ে নারী নির্যাতন মামলার অভিযোগপত্র দাখিল
নারী নির্যাতন মামলার আসামী কোরবান আলী: ইনসেটে নির্যাতিতা নারী


সেবা ডেস্ক: বাংলাদেশে এই প্রথম সর্বনিম্ন সময়ের মধ্যে নারী নির্যাতন মামলার অভিযোগপত্র দাখিলের ঘটনা ঘটেছে জামালপুরের বকশীগঞ্জ থানায়। মাত্র ২০ ঘন্টার মধ্যেই নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার এফআইআর ও অভিযোগপত্র দাখিল করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ। 

গতকাল ১৭ আগষ্ট (মঙ্গলবার) দুপুর ১২ টায় স্বামী কর্তৃক নির্যাতিত হয়ে বিকাল ৪টায় বকশীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা নারী। তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মামলার প্রধান আসামি কোরবান আলীকে গ্রেফতার করে বকশীগঞ্জ পুলিশ। এরইমধ্যে মামলা তদন্ত কাজ সমাপ্ত করে অভিযোগপত্র দাখিলের অনুমতি চান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

আসামীর জিজ্ঞাসাবাদ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুপারভিশন শেষে  বুধবার (১৮ আগষ্ট) সকাল ৯ টায় অভিযোগ পত্র সহ মামলার আসামীকে আদালতে প্রেরণ করেন এসআই ফিরোজ। ২০ ঘণ্টার মধ্যে মামলা এফআইআর ও অভিযোগপত্র দাখিলের ঘটনা বাংলাদেশে এই প্রথম ঘটনা।

মামালার বিবরনীতে জানা যায, বকশীগঞ্জ উপজেলার বাশকান্দা গ্রামের এনামুল হকের মেয়ে রনিকার সাথে বিয়ে হয় মেরুরচর ইউনিয়নের বেতমারী গ্রামের আব্দুল ম‌জি‌দের ছে‌লে কোরবান আলী। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে আসছিল কোরবান আলী। মঙ্গলবার দুপুরে কোরবান আলী শ্বশুরবাড়ীতে এসে রনিকাকে ব্যাপক মারধোর করলে কোরবান আলীকে আটকিয়ে রেখে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে কোরবান আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। বিকালে রনিকা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে ২০ ঘন্টার মধ্যেই তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ।

দ্রুত আইনী ব্যবস্থা ও অভিযোগপত্র দাখিল করায় পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মামলার বাদী নির্যাতিত রনিকা বেগম জানান, পুলিশ খুবই মানবিকভাবে ভাবে আমার পাশে দাড়িয়েছে।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম সম্রাট জানান, জামালপুর পুলিশ সুপার মহোদয়ের দিক নির্দেশনায় আমরা দ্রুত সময়ে অভিযোগপত্র দাখিল করতে সক্ষম হয়েছি। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

,

0 comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।