মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণে বদলে যাবে অর্থনীতি

মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণে বদলে যাবে অর্থনীতি
এ প্রকল্পে’র ফলে মহানন্দা নদী’র প্রবাহ ও নিষ্কাশন সক্ষমতা বৃদ্ধি’র পাশাপাশি কৃষি কাজে ৮ হাজা’র হেক্ট’র জমিতে সেচ সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। এতে ৫৫ কোটি ৮৩ লাখ টাকা’র কৃষি উৎপাদন বাড়বে। এতে দুই কোটি ৩৭ লাখ টাকা’র মৎস্য উৎপাদনে’র মাধ্যমে এলাকা’র জনগণে’র আর্থ-সামাজিক অবস্থা’র উন্নতি হবে। ৩৬ কিলোমিটা’র নদী খনন, প্রায় ৭ হেক্ট’র জমি অধিগ্রহণ, রাবা’র ড্যাম নির্মাণ ও ওয়াকওয়ে নির্মাণসহ বিভিন্ন কার্যক্রম থাকবে এ প্রকল্পে’র অধীনে। প্রকল্পে’র পরিকল্পনায় এ প্রকল্পটিকে লাভজনক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

সেবা ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জে’র মহানন্দা নদীতে রাবা’র ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। টানা প্রতীক্ষা’র প’র বাংলাদেশ নৌবাহিনী পরিচালিত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ডকইয়ার্ডস এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড মহানন্দা নদীতে রাবা’র ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।

 চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে’র বী’রশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গী’র সেতু’র ৫০০ মিটা’র ভাটিতে রাবা’র ড্যাম নির্মাণে’র কর্মযজ্ঞ চলছে।

গত বছরে’র ১ নভেম্ব’র রাবা’র ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। ২০২৩ সালে’র মে মাসে’র মধ্যে এ’র নির্মাণ কাজ শেষ করা’র লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন- মহানন্দা নদীতে রাবা’র ড্যাম নির্মিত হলে কৃষি খাতে’র স¤প্রসা’রণ হবে। বাড়বে ফসল ও মাছে’র উৎপাদন। ফলে চাঁপাইনবাবগঞ্জে’র কৃষি অর্থনৈতিতে সমৃদ্ধি’র গতি ত্বরান্বিত হবে। এছাড়া প্রকল্পটি এলাকা’র মানুষে’র আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অনন্য ভূমিকা রাখবে।

প্রকল্প প্রস্তাবনায় বলা হয়, এ প্রকল্পে’র ফলে মহানন্দা নদী’র প্রবাহ ও নিষ্কাশন সক্ষমতা বৃদ্ধি’র পাশাপাশি কৃষি কাজে ৮ হাজা’র হেক্ট’র জমিতে সেচ সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। এতে ৫৫ কোটি ৮৩ লাখ টাকা’র কৃষি উৎপাদন বাড়বে। এতে দুই কোটি ৩৭ লাখ টাকা’র মৎস্য উৎপাদনে’র মাধ্যমে এলাকা’র জনগণে’র আর্থ-সামাজিক অবস্থা’র উন্নতি হবে। ৩৬ কিলোমিটা’র নদী খনন, প্রায় ৭ হেক্ট’র জমি অধিগ্রহণ, রাবা’র ড্যাম নির্মাণ ও ওয়াকওয়ে নির্মাণসহ বিভিন্ন কার্যক্রম থাকবে এ প্রকল্পে’র অধীনে। প্রকল্পে’র পরিকল্পনায় এ প্রকল্পটিকে লাভজনক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে’র মহানন্দা নদী’র নাব্য ঠিক রাখতে ড্রেজিং ও ভাঙনরোধে রাবা’র ড্যাম নির্মাণ প্রকল্পটি প্রক্রিয়াক’রণ শুরু হয় ২০১৭ সালে’র জানুয়ারিতে। ২০১৮ সালে’র ১৬ জানুয়ারি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদে’র নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) পাস হয়। এজন্য ১৮৭ কোটি ৩১ লাখ ৬৩ হাজা’র টাকা ব্যয় প্রাক্কলন করে প্রকল্প প্রক্রিয়াক’রণ করে পরিকল্পনা কমিশন।

পরিকল্পনা কমিশনে’র কৃষি, পানিসম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগে’র সেচ উইংয়ে’র সংশ্লিষ্ট সিদ্ধান্ত অনুসারে এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ডে’র কর্মকর্তারা বলছেন- ৩৫৩ মিটা’র দীর্ঘ রাবা’র ড্যামটি নির্মাণ সম্পন্ন হলে শুষ্ক মৌসুমে মহানন্দায় পানি ধরে রেখে বিস্তীর্ণ বরেন্দ্র অঞ্চলে অধিকত’র সেচ সুবিধা নিশ্চিত করা যাবে। আ’র এতে এ অঞ্চলে ফসল উৎপাদন দ্বিগুণ হবে। এছাড়া মহানন্দা নদী খননে’র ফলে গভী’রতা’র পাশাপাশি বাড়বে নাব্য ও পানি। এতে মৎস্য প্রজনন ও আহ’রণে’র আরো সুযোগ সৃষ্টি হবে। বদলে যাবে এই এলাকা’র মানুষে’র অর্থনৈতিক দৃশ্যপট।

এ ব্যাপারে সদ’র উপজেলা কৃষি স¤প্রসা’রণ কর্মকর্তা সালেহ আকরাম জানান, শুষ্ক মৌসুমে নদীতে পানি হ্রাস পাওয়ায় ভূগর্ভস্থ পানি’র স্ত’রও নেমে যায়। ফলে গভী’র-অগভী’র নলকূপ দ্বারা সেচ কাজ ব্যয়বহুল হয়ে পড়ে। মহানন্দায় রাবা’র ড্যাম নির্মাণ সম্পন্ন হলে সেচ সুবিধা নিশ্চিত হবে চাষিদে’র। কম খ’রচে কৃষকরা বিভিন্ন ধ’রনে’র কৃষিপণ্য উৎপাদন ক’রতে পা’রবে। রাবা’র ড্যাম প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে কৃষিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে মনে ক’রছেন কৃষি বিভাগে’র এই কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে’র কৃষি অর্থনীতি বিভাগে’র চেয়া’রম্যান ড. আশরাফুল আরিফ জানান, কৃষিনির্ভ’র জনপদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ। জেলা’র অর্থনীতি কৃষি’র ওপ’র নির্ভ’রশীল। রাবা’র ড্যাম কৃষি উপযোগি একটি প্রকল্প। এটি বাস্তবায়ন হলে চাষীদে’র সেচ সুবিধা নিশ্চিত হবে। বাড়বে ফল, ফসল ও মাছে’র উৎপাদন। ফলে চাঁপাইনবাবগঞ্জে’র অর্থনৈতিতে সমৃদ্ধি’র গতি ত্বরান্বিত হবে। এলাকা’র মানুষে’র অর্থনৈতিক জীবন ধারা বদলে যাবে।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে’র মে মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সফরে এসে স্থানীয় মানুষে’র দাবি’র পরিপ্রেক্ষিতে মহানন্দা নদীতে আন্তর্জাতিকমানে’র রাবা’র ড্যাম নির্মাণে’র ঘোষণা দেন। সেই অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী’র কার্যালয় থেকে ব্যবস্থা নিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নির্দেশনা দেয়া হয়। পরে পরিকল্পনা কমিশনে এ সংক্রান্ত পিইসি সভা হয় ২০১৩ সালে’র সেপ্টেম্বরে। প্রয়োজনীয় সমীক্ষা চালানো’র জন্য আইডবিউএমকে নিয়োগ দেয়া হয়। আইডবিউএম এ সংক্রান্ত চূড়ান্ত ফিজিবিলিটি স্টাডি ও ইআইএ প্রতিবেদন দাখিল করে। তা’র ভিত্তিতেই প্রকল্পটি’র পরিকল্পনা সম্পন্ন করা হয়।

  


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।